সদ্য সংবাদ

বিভাগ: সিলেট বিভাগ

বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মতিন চৌধুরী আর নেই

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জ উপজেলার ০২নং পতনঊষার ইউনিয়নের ০৬ নং ওয়ার্ডের নোয়াগাঁও গ্রামের বাসিন্দা ৭১ এর রনাঙ্গনের বীর মুক্তিযোদ্ধা অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য আব্দুল মতিন চৌধুরী সোমবার (২০ মে) সন্ধ্যা ৭:৩০ মিনিটে নিজ বাড়িতে মৃত্যু বরণ করেছেন। তিনি দীর্ঘ দিন ধরে বার্ধক্য জনিত রোগে ভোগছিলেন।
তিনি পতনঊষার ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মো: সেলিম আহমেদ চৌধুরী, যুক্তরাজ্য প্রবাসী আতিকুর রহমান চৌধুরী ও যুক্তরাজ্য প্রবাসী শওকত চৌধুরীর পিতা।
মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ৩ ছেলে, ১ মেয়ে, নাতী, নাতনী অসংখ্য আত্মীয় স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তাঁর মৃত্যুতে এলাকায় গভীর শোকের ছায়া নেমে আসে।

কমলগঞ্জে এতিম দরিদ্র মেধাবীদের বৃত্তি ও রমজানের সামগ্রী বিতরণ

 কমলকুঁড়ি রিপোর্ট


মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে অরপান ইন অ্যাকশন বাংলাদেশের উদ্যোগে ১৫ জন এতিম দরিদ্র ও মেধাবী শিকার্থীদের মাঝে জনপ্রতি ৩ হাজার টাকা করে ১৫জনের মাঝে নগদ ৪৫ হাজার টাকার বৃত্তি প্রদান করা হয়। একই সাথে ১৫টি পরিবারের আসন্ন রমজান মাসের জন্য আরও ৩ হাজার টাকা করে মোট ৪৫ হাজার টাকার খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়। রোববার (৫ মে) বেলা ২টায় কমলগঞ্জস্থ আব্দুল গফুর চৌধুরী মহিলা কলেজে শিক্ষা বৃত্তির টাকা ও রমজানের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়।
অরপান এন অ্যাকশন বাংলাদেশের কমলগঞ্জ শাখার সভাপতি আহমদ সিরাজের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসান চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসিবে উপস্থিত ছিলেন কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বিলকিছ বেগম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আব্দুর গফুর চৌধুরী মহিলা কলেজ অধ্যক্ষ ও জেলা পরিষদ সদস্য মো. হেলাল উদ্দীন। আয়োজক সূত্রে জানা যায়, সংস্থার প্রধান পৃষ্ঠপোষক যুক্তরাজ্য প্রবাসী শাহনাজ চৌধুরীর পৃষ্ঠপোষকতায় বৃত্তির টাকা ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

কমলগঞ্জে আরডিআরএস বাংলাদেশ ফুটবল প্রতিযোগিতার উদ্বোধন

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট


মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে রোববার (৫ মে) সকাল ১০টায় আরডিআরএস বাংলাদেশ ফুটবল প্রতিযোগিতা-২০১৯ এর উদ্বোধন হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কমলগঞ্জ পৌরসভার মেয়র জনাব মো. জুয়েল আহমদ। প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন মৌলভীবাজার জেলা পরিষদ সদস্য কমলগঞ্জ উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ মো. হেলাল উদ্দীন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার যুগ্ম সম্পাদক মো. মুজিবুর রহমান, পৌর কাউন্সিলর সৈয়দ জামাল হোসেন, আরডিআরএস বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া কর্মসূচির প্রোগ্রাম অফিসার মো. এখলাছ মিয়া, আরডিএস বাংলাদেশ কমলগঞ্জ এলাকা ব্যবস্থাপক মো. মিজানুর রহমান।


কমলগঞ্জ পৌর ফুটবল একাডেমি বনাম মাধবপুর চা-বাগান ফুটবল একাডেমি এ দুটি দলের খেলার মাধ্যমে প্রতিযোগিতার উদ্বোধন হয়। দিনব্যাপি উক্ত প্রতিযোগিতায় প্রথম রাউন্ডে মোট ৮টি টিমের মধ্যে খেলা অনষ্ঠিত হয় । অংশগ্রহনকারী দলগুলো হচ্ছে কমলগঞ্জ পৌর ফুটবল একাডেমী, মাধবপুর চা বাগান ফুটবল একাডেমী, আদমপুর ফুটবল একাডেমী, পতনউষার ফুটবল একাডেমী, ভাষানীগাঁও ফুটবল একাডমেী, পদ্মছড়া চা বাগান ফুটবল একাডমেী, ইত্যাদি স্পোর্টিং ক্লাব ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রউফ ফুটবল একাডেমী। ৬ মে সোমবার বিকাল ৪ ঘটিকায় এ প্রতিযোগিতার ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হবে ।

সরকারি কলেজ শিক্ষক সমিতির মৌলভীবাজার জেলা কমিটি গঠন

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট
 মৌলভীবাজারে সদ্য সরকারিকৃত কলেজ শিক্ষকদের সরকারি কলেজ শিক্ষক সমিতি (সকশিস) গঠন করা হয়েছে। গত শুক্রবার মৌলভীবাজার প্রেসক্লাবে বিকাল ৫টায় মৌলভীবাজার জেলার পাঁচটি সদ্য সরকারিকৃত কলেজ শিক্ষকদের এ কমিটিতে সহকারী অধ্যাপক রজত কান্তি গোস্বামীকে সভাপতি ও প্রভাষক মো. জসীম উদ্দিনকে সাধারণ সম্পাদক করে ২১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়। বড়লেখা সরকারি কলেজের সহকারী অধ্যাপক মো. আব্দুস সবুরের সভাপতিত্বে এই সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন সরকারি কলেজ শিক্ষক সমিতি (সকশিস) কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র সহসভাপতি কামরুল ইসলাম সবুজ, বিশেষ অতিথি ছিলেন সকশিস কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক দিপু কুমার গোপ।
সভায় রাজনগর সরকারি কলেজের সহকারী অধ্যাপক রজত কান্তি গোস্বামীকে সভাপতি, কুলাউড়া সরকারি কলেজের প্রভাষক মো. জসীম উদ্দিনকে সাধারণ সম্পাদক, বড়লেখা সরকারি কলেজের প্রভাষক ঋষিকেশ দাশকে সাংগঠনিক সম্পাদক এবং রাজনগর সরকারি কলেজের প্রভাষক সৈয়দা শাহ লতিফা আক্তারকে মহিলা বিষয়ক সম্পাদক নির্বাচিত করে ২১ সদস্য বিশিষ্ট সরকারি কলেজ শিক্ষক সমিতি (সকশিস) মৌলভীবাজার জেলা কমিটি গঠন করা হয়।
প্রধান অতিথি কামরুল ইসলাম সবুজ জানান, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আসন্ন জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষে সকশিস-এর উদ্যোগে আগামী শীতে ঢাকায় ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধু অলিম্পিয়াড’ আয়োজনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

শমশেরনগরে চা-শ্রমিক সংঘের সমাবেশ বাচাঁর মতো মজুরি, গণতান্ত্রিক শ্রম আইন ও অবাধ ট্রেড ইউনিয়ন অধিকারের দাবি

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট


আন্তর্জাতিক শ্রমিক সংহতি দিবস ‘মহান মে দিবস’ উদযাপনের ধারাবাহিক কর্মসূচির অংশ হিসেবে চা-শ্রমিক সংঘ মৌলভীবাজার জেলা কমিটির উদ্যোগে কমলগঞ্জ উপজেলার শমসেরনগরে সমাবেশ করেছেন চা শ্রমিকরা। রোববার (৫ মে) সকাল সাড়ে ১১ টায় সংগঠনের অস্থায়ী কার্যালয় সম্মুখে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বাঁচার মতো মজুরি, গণতান্ত্রিক শ্রম আইন ও অবাধ ট্রেড ইউনিয়ন অধিকারের দাবি জানানো হয়।
শমসেরনগরে চা-শ্রমিক সংঘের প্রবীণ চা শ্রমিক নেতা স্যামুয়েল বেগম্যান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্ট-এনডিএফ মৌলভীবাজার জেলা কমিটির সভাপতি কবি শহীদ সাগ্নিক, বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন সংঘ মৌলভীবাজার জেলা কমিটির সভাপতি মো. নুরুল মোহাইমীন মিল্টন ও ধ্রুবতারা সাংস্কৃতিক সংসদ মৌলভীবাজার জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক অমলেশ শর্ম্মা। সমাবেশের শুরুতে সিলেট আইন মহাবিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যক্ষ, বিশিষ্ট আইনজীবী, সাম্রাজ্যবাদ-সামন্তবাদ বিরোধী গণতান্ত্রিক আন্দোলনের অগ্রসৈনিক, ভাষা আন্দোলনের অন্যতম সংগঠক, পূর্ব-পাকিস্তান চা-শ্রমিক সংঘের কোষাধ্যক্ষ ও আইন উপদেষ্ঠা রাজনীতিবিদ এডভোকেট মনির উদ্দিন আহমদ এর মৃত্যুতে তাঁর অসমাপ্ত কাজকে অগ্রসর করার প্রত্যয়ে তাঁর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে দাড়িয়ে ১ মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন চা-শ্রমিক সংঘের যুগ্ম -আহবায়ক হরিনারায়ন হাজরা, সুনছড়া চা-বাগানের প্রশান্ত কৈরী, রঞ্জু নাইড়–, পুষ্প কালিন্দী, গণেশ বাসফোর, সুনীল কর, রাজনগর চা-বাগানের শ্রমিকনেতা নারায়ন গোড়াইত, হেমরাজ লোহার, বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন সংঘ মৌলভীবাজার জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক রজত বিশ্বাস, মৌলভীবাজার জেলা হোটেল শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক শাহীন মিয়া, মৌলভীবাজার জেলা রিক্সা শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি সোহেল মিয়া প্রমূখ।
সমাবেশে বক্তারা বলেন, ১৮৮৬ সালে রক্তঝরা সংগ্রামের মধ্য দিয়ে শ্রমিক শ্রেণি সামাজিক স্বীকৃতি এবং বিশ্বব্যাপী ৮ ঘন্টা শ্রম, ৮ ঘন্টা বিশ্রাম ও ৮ ঘন্টা বিনোদনের দাবি প্রতিষ্ঠিত করে। ৮ ঘন্টা শ্রম দিবস এবং মহান মে দিবসে ছুটি কারো দান নয় বরং শ্রমিক শ্রেণীর রক্তস্নাত পথে অর্জিত অধিকার। প্রয়াত চা-শ্রমিকনেতা মফিজ আলীসহ তৎকালীন চা-শ্রমিক নেতৃবৃন্দের ভূমিকায় ১৯৬৪ সালে ৩ মে শমসেরনগরে পূর্ব-পাকিস্তান চা-শ্রমিক সংঘের উদ্যোগে প্রথম মহান মে দিবস পালন করে। সেই সময় মে দিবসে চা-শ্রমিকদের ছুটি ছিল না। পূর্ব-পাকিস্তান চা-শ্রমিক সংঘের আন্দোলনের প্রেক্ষিতে চা-শ্রমিকরা মে দিবসে আজও ছুটি ভোগ করছেন। দেড়শ বছরের বেশি সময় চা-শ্রমিকদের ছুটির দিনের মজুরি থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছিল, চা-শ্রমিক সংঘের আইনী ও প্রচার আন্দোলনের কারণে ২০১৬ সাল থেকে চা-শ্রমিকরা ছুটির দিনের মজুরি পাচ্ছেন, যদিও সে ক্ষেত্রেও রয়েছে বে-আইনী শর্ত।
সমাবেশ থেকে বর্তমান বাজারদরের সাথে সংগতিপূর্ণভাবে মাসিক ২০ হাজার টাকা মূল মজুরি হিসেবে দৈনিক ৬৭০ টাকা মজুরি, চা-শিল্পে নৈমিত্তিক ছুটি(বছরে ১০ দিন) কার্যকর ও অর্জিত ছুটি প্রদানে বৈষম্যসহ শ্রম আইনের বৈষম্য নিরসন করে গণতান্ত্রিক শ্রমআইন প্রণয়ন এবং সাপ্তাহিক ছুটির দিনে মজুরি ও উৎসব বোনাস প্রদানে সকল অনিয়ম বন্ধ করে শ্রমআইন মোতাবেক নিয়োগপত্র, পরিচয়পত্র, সার্ভিস বুক প্রদান এবং ৯০ দিন কাজ করলেই সকল শ্রমিককে স্থায়ী(পাক্কা দফা) করার দাবি জানানো হয়।

কমলগঞ্জে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর শিক্ষার্থীদের মাঝেশিক্ষা বৃত্তি উপকরণ বিতরণ

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট


মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলায় সমতলে বসবাসকারী খাসিয়া, মণিপুরি, ত্রিপুরী, সাওতালসহ বিভিন্ন ক্ষু-নৃ-গোষ্ঠীর পরিবারের স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়–য়া শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা বৃত্তির টাকা ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করা হয়। রোববার (৫ মে) দুপুর ১২টায় কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে এসব শিক্ষা বৃত্তির টাকা ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করেন মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসক মো. তোফায়েল ইসলাম। কমলগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশেকুল হকের সভাপতিত্বে ও প্রধান শিক্ষক মোশাহিদ আলীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কমলগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুমী আক্তার, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. মোশারফ হোসেন, বৃহত্তর সিলেট আদিবাসী ফোরাম নেতা ও মাগুরছড়া খাসিয়া পুঞ্জির হেডম্যান জিডিশন প্রধান সুছিয়াং।
কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদ সূত্রে জানা যায়, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে সমতলের ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নে গৃহীত “বিশেষ এলাকার জন্ন উন্নয়ন সহায়তা (পার্বত্য চট্রগ্রাম ব্যতীত)” শীর্ষক কর্মসূচির আওতায় চলতি ২০১৮-২০১৯ অর্থ বছরে প্রাপ্ত ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিশেষ শিক্ষা বৃত্তি ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠানে ১ম শ্রেণি থেকে ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত মোট ৬৫০ জন শিক্ষার্থীর মাঝে শিক্ষা উপকরণ হিসেবে মোট ২০০টি উন্নত স্কুল ব্যাগ, ৪০০টি রেইন কোট, ৪০০টি রং পেন্সিল বক্স, ৪০০টি ড্রয়িং খাতা, ২০০টি জ্যামিতি বক্স, ৪০০টি ওয়াটার পট ও ১০০টি অভিধান বিতরণ করা হয়।
৮ম শ্রেণি থেকে সম্মান শেষ বর্ষ পর্যন্ত ১৫৫জন শিক্ষার্থীর মাঝে ২ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত করে মোট ৫ লাখ টাকার শিক্ষা বৃত্তি প্রদান করা হয়।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসক মো. তোফায়েল ইসলাম বলেন, মৌলভীবাজার জেলার মধ্যে কমলগঞ্জ উপজেলায় বিভিন্ন ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর মানুষের বেশি বসবাস রয়েছে। এসব নৃ-গোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নে ও তাদের পরিবারের সন্তানদের শিক্ষা সহায়তা হিসেবে এই শিক্ষা বৃত্তির টাকা ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করা হয়। এ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলে তিনি বলেন।

কমলগঞ্জের রহিমপুরে ভিজিডি এর চাল বিতরণ

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট


মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার ১নং রহিমপুর ইউনিয়নে ২০৭ জন উপকারভোগীদের মধ্যে ২০১৯-২০২০ চক্রের এপ্রিল মাসের ভিজিডি এর চাল বিতরণ করা হয়েছে। রোববার (৫ মে) সকাল ১১টায় আনুষ্ঠানিকভাবে ভিজিডি এর চাল বিতরণ করেন মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক মো: তোফায়েল ইসলাম। ১নং রহিমপুর ইউপি (স্বর্ণপদকপ্রাপ্ত) চেয়ারম্যান মো: ইফতেখার আহমেদ বদরুল এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশেকুল হক। পরে জেলা প্রশাসক ইউনিয়ন পরিষদ ও তথ্য সেবা কেন্দ্র পরিদর্শন করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য, সদস্যা, ইউপি সচিব মো: সুলেমান হাসান, তথ্য সেবা কেন্দ্রের উদ্দোক্তা প্রমুখ।

কমলগঞ্জে এক রাতে সাত দোকানে চুরি

কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি:
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার পতনউষার ইউনিয়নের শ্রীসূর্য্য রথটিলা বাজারে এক রাতে পাশাপাশি সাতটি দোকানে চুরি হয়েছে। বুধবার (১ মে) দিবাগত রাতে এ চুরির ঘটনা ঘটে।
জানা যায়, বুধবার দিবাগত রাতে শ্রীসূর্য্য রথটিলা বাজারের নাবিল এন্ড তানিয়া স্টোর, বিসমিল্লাহ স্টোর, ইরফান মিযার চায়ের দোকান, জননী স্টোর, জুনেদ মিয়ার ফার্নিচারের দোকান, কয়েছ মিয়ার চায়ের দোকান, স্থানীয় বেসরকারী সংস্থা চাঁদের হাসি সার্বিক গ্রাম উন্নয়ন সমবায় সমিতি লিঃ এর দরজা ও সাটার ভেঙ্গে চুরি হয়েছে।
নাবিল এন্ড তানিয়া স্টোরের মালিক ফুটিকুল ইসলাম বলেন, এবার চোরচক্র তার দোকান থেকে ২ হাজার টাকার সামগ্রী চুরি করে নিয়েছে। ইতিপূর্বে গত ২৯ মার্চ তার দোকান চুরি হলে ২৯ হাজার টাকার মালামাল চুরি হয়েছিল।
শমশেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পরিদর্শক (তদন্ত) অরুপ কুমার চৌধুরী বলেন, তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছেন। তার কাছে বিষয়টি রহস্যজনক বলে মনে হয়েছে। তিনি আরও বলেন, এ বিষয়ে কোন দোকানী লিখিত অভিযোগ দিচ্ছে না। তারপরও পুলিশ তদন্ত করে দেখছে বলে তিনি জানান।

কমলগঞ্জে শিক্ষক রওশন আরা চৌধুরীর বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত


কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি:
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক রওশন আরা চৌধুরীর চাকুরী থেকে অবসর গ্রহণ উপলক্ষে এক বিদায় সংবর্ধনা বৃহস্পতিবার দুপুরে বিদ্যালয় মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, কন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য, বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক মো. রফিকুর রহমান।
কমলগঞ্জ মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় এসএমসি সভাপতি মো. কামাল উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও সহকারি শিক্ষক সমরেন্দু সেনগুপ্তের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রামভজন কৈরী, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বিলকিস বেগম, উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. মোশারফ হোসেন, সহকারি উপজেলা শিক্ষা অফিসার জয় কুমার হাজরা ও সংবর্ধিত বিদায়ী শিক্ষক রওশন আরা চৌধুরী। স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গাজী মো. সালাউদ্দিন। অনুষ্ঠানে বিদায়ী শিক্ষককে বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে মানপত্রসহ উপহার সামগ্রী প্রদান করা হয়। এ সময় বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

কমলগঞ্জে মহান মে দিবস পালন

 কমলকুঁড়ি রিপোর্ট


“শ্রমিক মালিক গড়বো দেশ,এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ” এই প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে নিয়ে নানা আয়োজনের মধ্যে দিয়ে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের রহিমপুর ইউনিয়নের মৃর্তিগা চা বাগান নাচ ঘরে সহ¯্রাধিক চা শ্রমেিকর উপস্থিতিতে মে দিবসের সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। চা শ্রমিক সমাবেশে শ্রমিকদের নানা দাবির মুখে মৌলভীবাজার-৪ আসনের সাংসদ উপাধ্যক্ষ ড. এম এ শহীদ বলেন চা শ্রমিক সন্তানদের কাজের দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে কমলগঞ্জ ও শ্রীমঙ্গল উপজেলা দুটি কারিগরি বিদ্যালয় স্থাপন করা হবে। রোববার (১ মে) মহান মে দিবস পালন উপলক্ষে বেলা ১টায় বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের মনু-দলই ভ্যালির (অঞ্চল) আয়োজনে এ শ্রমিক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
মনু-দলই ভ্যালির কার্যকরি কমিটির সভাপতি ও ইউপি সদস্য ধনা বাউরীর সভাপতিত্বে দিলীপ বৈদ্য ও প্রদীপ পালের সঞ্চালনায় শ্রমিক সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার-৪ আসনের সাংসদ উপাধ্যক্ষ ড. এম এ শহীদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশেকুর হক, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বিলকিছ বেগম, কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আরিফুর রহমান, উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি মোসাদ্দেক আহমেদ মানিক, রহিমপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইফতেখার আহমদ বদরুল ও বিআরডিবি চেয়ারম্যান ইমতিয়াজ আহমদ।
সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মনু-দলই ভ্যালির সাধারণ সম্পাদক নির্মল দাশ পাইনকা, চা শ্রমকি নেতা রাম যতন কৈরী, কুলচন্দ্র তাঁতী, পঙ্কজ কুন্ড ও মেরি রাল্ফ। চা শ্রমিক নেতৃবৃন্দরা প্রধান অতিথি সাংসদকে উদ্দেশ্য করে কিছু দাবি উপস্থাপন করেন। দাবিগুলো হচ্ছে কমলগঞ্জের প্রতিটি চা বাগানের প্রাথমকি বিদ্যালয়গুলি সরকারীকরণ করতে হবে। এনটিসির চা বাগানের জন্য একটি গ্রুপ হাসপাতাল স্থাপন করতে হবে। চা শ্রমিক সন্তানদের জন্য আলাদা কারিগরি মহাবিদ্যালয় স্থাপন করতে হবে। চা বাগানের বিভিন্ন ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর সংস্কৃতি চর্চার জন্য চা শিল্পাঞ্চলে আলাদা একটি সাংস্কৃতিক একাডেমী স্থাপন করতে হবে।
প্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্যে আরও বলেন, শ্রীমঙ্গলের রাজঘাট চা বাগানের রামছড়া চা বাগানে সরকারিভাবে একটি উচ্চ বিদ্যালয় স্থাপন করা হবে। ১০ কোটি টাকা ব্যয়ে শ্রীমঙ্গলস্থ চা শ্রমিক ইউনয়িনের কেন্দ্রীয় কার্যালয় লেবার হাউজের ১০ তলা ভবন নির্মাণ করা হবে। দুই উপজেলা দুটি কারিগরি বিদ্যালয় স্থাপন করা হবে। দেওড়াছড়া চা বাগান শশ্মান ঘাটের উন্নয়ন কাজে ৩ লাখ টাকার অনুদান ও শমশেরনগর চা বাগান দুর্গা মন্দির নির্মাণে ১০ লাখ টাকার অনুদান দেওয়া হবে। তিনি আরো বলেন, জঙ্গীদের ব্যপারে সতর্ক থাকতে হবে, জঙ্গীদের কোন দেশ নাই,এরা কোন ধর্মের নয়, এদের একটি নাম এরা জঙ্গী।সবশেষে মৃর্তিগা চা বাগান নাচঘরে সুনিল বিশ্বাসের রচনায় চা শ্রমিকদের অংশ গ্রহনে নাটক “ নিজ ভূমে পরবাস” মঞ্চায়ন হয়।


অন্যদিকে ট্রাক, ট্যাংক, লরী, পিকাপ, কভারভ্যান ( রেজি নং ২৪০৩) শ্রমিক ইউনিয়ন কমলগঞ্জ উপজেলা শাখার আয়োজনে বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের করা হয়। শাখার সভাপতি মো. জহিরুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক মো. মছব্বির খান র‌্যালিতে নেতৃত্ব প্রদান করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন কার্যকরি সভাপতি ইলিয়াছ মিয়া, সহসভাপতি পল্লব দত্ত, যুগ্ম সম্পাদক জুয়েল মিয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক হোসেন মিয়া, কোষাধ্যক্ষ জসমেদ মিয়া, প্রচার সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, দপ্তর সম্পাদক রুমেল আহমদ, সমাজকল্যাণ সম্পাদক মালেক মিয়া, ক্রীড়া সম্পাদক হান্নান মিয়া, সদস্য আকবর হোসেন, মুকিত মিয়া ও পাত্রখোলা, মাধবপুর, আদমপুর, মুন্সিবাজার, গুলেরাহাওর ও কমলগঞ্জ শাখার নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া সকাল ১১টায় জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের রেজি:নং (২৩৫৯) কমলগঞ্জ উপজেলা শাখা আয়োজনে কমলগঞ্জ উপজেলা সদরে মহান মে দিবসের এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়। উপজেলা ময়না চত্ত্বর মোড় থেকে শোভাযাত্রাটি বের হয়ে প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে ভানুগাছ চৌমুহনী চত্ত্বরে গিয়ে শেষ হয়। পরে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে উপজেলা সিএনজি শ্রমিক শাখার সভাপতি আলমাছ মিয়ার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য¡ অধ্যাপক মো. রফিকুর রহমান। বক্তব্য রাখেন ভানুগাছ চৌমুহনী গ্রুপ কমিটির সম্পাদক মো. সেলিম মিয়ার সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা সিএনজি গ্রুপের সহ-সভাপতি কালাম মিয়া, খলিল মিয়া, সম্পাদক মো. দিলবর মিয়া, ভানুগাছ চৌমুহনী গ্রুপ কমিটির সভাপতি মো. নূর মিয়া প্রমুখ।