সদ্য সংবাদ

পুরাতন সংবাদ: May 2019

কমলগঞ্জে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে একজনের মৃত্যু


কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি:
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে শিতীল দাস ওরপে লটই (৫০) নামে এক চা বিক্রেতার মৃত্যু হয়েছে। সোমবার ( ২৯ এপ্রিল ) বেলা পৌনে ৩টায় রহিমপুর ইউনিয়নের শ্রীনাথপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সোমবার দুপুর পৌনে ৩টার দিকে রহিমপুর ইউনিয়নের অভ্যন্তরে চা স্টল ব্যবসায়ী শিতীল দাস ওরপে লটই ইউনিয়নের পরিষদের পাশেই শ্রীনাথপুর গ্রামের নিজ বাড়িতে ঘরের টিনের চালে কাজ করছিলেন। এ সময় বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিটে মাটিতে লুটে পড়েন। গুরুতর আহত অবস্থায় সাথে সাথে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

কমলগঞ্জে পরিবহন ধর্মঘটে জনদূর্ভোগ চরমে


কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি:
সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মো. ওয়াসিম আব্বাসকে বাস থেকে ফেলে দিয়ে হত্যার সাথে জড়িত বাস চালক জুয়েল আহমদ ও সহকারী মাসুক আলীর বিরুদ্ধের দায়ের করা মামলার ধারা পরিবর্তনসহ ৭ দফা দাবিতে সিলেট বিভাগে সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ফেডারেশনের ডাকা দিনব্যাপী পরিবহন ধর্মঘটে অচল হয়ে পড়ে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে পরিবহন ধর্মঘট পালিত হয়েছে। সোমবার সকাল থেকে ধর্মঘট পালন করছেন তারা। ধর্মঘটের কারণে সকাল থেকে ট্রেন ছাড়া কোনো রুটে যানবাহন চলাচল করেনি। এতে চরম ভোগান্তিতে শিক্ষার্থী, চাকুরীজীবিসহ সাধারণ যাত্রীরা। ধর্মঘটের কারণে সকাল থেকে কমলগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে চলাচলের ক্ষেত্রে একমাত্র বাহন হিসেবে রিকশার আধিক্য দেখা গেছে। তাছাড়া মোটরসাইকেল ও কিছু প্রাইভেটগাড়িও চলাচল করতে দেখা যায়। তবে কোনো অটোরিকশা চলাচল করতে দেখা যায়নি। কোথাও কোথাও দু’একটি ছোট ছোট গাড়ী চললেও ভাড়া নেয়া হয় ২ থেকে ৩ গুণ বেশী । এতে জনদূর্ভোগে পড়েছে শ্রমজীবী, শিক্ষার্থীসহ সাধারণ যাত্রীরা।
পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন এর ধর্মঘটের কারণে ভোগান্তিতে পড়েছে স্কুল পড়ুয়া ছাত্রছাত্রী ও কর্মজীবি সাধারণ মানুষ। যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দিয়ে সাধারণ মানুষকে জিম্মি করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ভোগান্তিতে পড়া সাধারণ মানুষ। ধর্মঘটের কারণে সময়মত কর্মস্থলে যেতে পারেননি অনেকেই। কলেজ ছাত্র শিপন মিয়া, লাভলী আক্তার, চাকুরীজীবি সানজিদা বেগম, ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ন্যায় বা অন্যায় যে কোন প্রকার দাবি আদায় করার জন্য মানুষকে এভাবে জিম্মি করা এক প্রকার অভ্যাসে পরিনত হয়েছে পরিবহন শ্রমিকদের। পরিবহন ধর্মঘটের কারণে সকল শিক্ষার্থী না আসায় শমশেরনগর বিএএফ শাহীন কলেজের সোমবারের সিটি পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে।
প্রসঙ্গত, ৭ দফা দাবিতে সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন এই কর্মবিরতি ঘোষণা করেছে। তাদের দাবির মধ্যে সিকৃবির শিক্ষার্থী ঘোরি মো. ওয়াসিম নিহতের ঘটনায় দায়েরকৃত হত্যা মামলাটি দন্ডবিধির ৩০২ এর স্থলে ৩০৪ ধারায় অন্তর্ভূক্ত করার বিষয়টি রয়েছে। এছাড়া সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ এর কয়েকটি ধারায় জরিমানার অঙ্ক কমানো, সড়ক-মহাসড়কে তল্লাশির নামে পুলিশের হয়রানি বন্ধের দাবিও রয়েছে।

কমলগঞ্জে জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহের সমাপনী ও বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ

কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি:
“খাদ্যের কথা ভাবলে, পুষ্টির কথাও ভাবুন”- এই প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের আয়োজনে সোমবার বেলা ১১টায় জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহের সমাপনী ও বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়েছে
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সভাকক্ষে ভারপ্রাপ্ত উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো: ডা. এ বি এম সাজেদুল কবিরের সভাপতিত্বে ও মেডিকেল টেকনিশিয়ান মো: আশরাফুল আলমের পরিচালনায় অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মেডিকেল অফিসার ডা. মানস কান্তি সিংহ, ডা. মুন্না সিনহা, ডা. রিফাত, কমলকুঁড়ি পত্রিকার সম্পাদক পিন্টু দেবনাথ, বাংলাদেশ বেতারের প্রতিনিধি রাজকুমার সোমেন্দ্র সিংহ, সাংবাদিক মোনায়েম খান, আব্দুল বাছিত, মহিলা স্বাস্থ্য পরিদর্শিকা নাজমা বেগম, সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক আন্জুমান আরা রুবি, সেনিটারি ইন্সপেক্টর দুলাল মিয়া প্রমূখ।
অতিথিবৃন্দ শিক্ষার্থীদের চিত্রাঙ্গন প্রতিযোগিতায় ৩ জন, মায়েদের রান্নাবান্না প্রতিযোগিতায় ৩ জন, কৃষি সম্পর্কিত প্রতিযোগিতায় কৃষক ৩ জন এবং ৮ জন বিচারকের হাতে পুরস্কার তুলে দেন।
এসময় বক্তারা বলেন, সব খাদ্য পুষ্টিকর খাদ্য নয়। খাবার সময় আমাদের ভাবতে হবে কোন খাদ্যটি পুষ্টিযুক্ত। সেটাই খেতে হবে। সে ব্যাপারে আমাদের সন্তানদের সচেতন করতে হবে। অনুষ্ঠানে বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষার্থী, বেসরকারি সংস্থার প্রতিনিধিবৃন্দ এবং হাসপাতালের কর্মকর্তা, কর্মচারীবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।

কমলকুঁড়ি পত্রিকা ৩০ এপ্রিল ২০১৯

কমলগঞ্জে কমিউনিটি ক্লিনিকের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আয়োজনে রোববার (২৮ এপ্রিল) কমিউনিটি ক্লিনিকের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে র‌্যালী অনুষ্ঠিত হয়। র‌্যালী শেষে কমপ্লেক্সের হল রুমে আলোচনা সভা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ভারপ্রাপ্ত প: প: কর্মকর্তা ডা. এবিএম সাজেদুল কবীরের সভাপতিত্বে ও সিএইচসিপি মো: মঈন উদ্দিনের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন মেডিকেল অফিসার ডা: মুন্না সিনহা, এমসিইপিআই আশরাফুল ইসলাম, স্যানেটারী ইন্সপেক্টর দুলাল আহমদ, স্বাস্থ্য পরিদর্শক অতুল চন্দ্র দেব, সহকারি স্বাস্থ্য পরিদর্শক আনজুমান আরা রুবি প্রমুখ।

কমলগঞ্জে মীতৈ মণিপুরী সম্প্রদায়ের ৫দিনব্যাপী প্রাচীন ধর্মীয় উৎসব লাই-হারাওবা শুরু

 কমলকুঁড়ি রিপোর্ট


ঈশ্বরকে সন্তুষ্ট করতে মীতৈ মণিপুরী সম্প্রদায় প্রতি বছর “লাই-হারাওবা” উৎসব পালন করে। ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনায় মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের আদমপুরের কোনাগাঁও-এর “উজাও-লাইরেম্বী লাইশং” মন্দির প্রাঙ্গণে শনিবার (২৭ এপ্রিল) সন্ধ্যা থেকে পাঁচদিনব্যাপী এই উৎসব শুরু হয়েছে। স্থানীয় উদয়ন সংঘের আয়োজনে পাঁচদিনব্যাপী এ উৎসবে রয়েছে মীতৈ মনিপুরীদের ধর্মীয় ও সংস্কৃতির নানান অনুষ্ঠান। এ উৎসবে ভার- ভাংলাদেশের জ্ঞানী-গুণী ব্যক্তিবর্গরাও অংশ গ্রহন করছেন।
জানা যায়, উৎসবটি ধর্মীয় প্রথা অনুযায়ী প্রতিদিন মাইবীর ঐশ্বরীক বাণীসহ লোকগান, লোক নৃত্য ও ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠান পরিবেশনের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হবে। মণিপুরী লাই-হারাওবা একটি উৎসব যা মীতৈ মণিপুরী সংস্কৃতির সঙ্গে ওতোপ্রোতভাবে জড়িত। এটি মূলত সনামহী ধর্মের ঐতিহ্যগত দেবতাদেরকে উৎসাহিত করার জন্য উদযাপন করা হয়। এই উৎসবে প্রদর্শিত নৃত্য সমূহকে মনিপুরী নৃত্যশৈলীর একটি সুপ্রাচীন নৃত্যধারা হিসেবে বিবেচনা করা হয়। মণিপুরী সমাজে প্রচলিত অন্যতম প্রাচীন লোকনৃত্যানুষ্ঠান “লাই-হারাওবা জাগোই” থেকেই এসেছে। এই লাই-হারাওবা উৎসব। এ নৃত্যে প্রকৃতি পূজার পরিচয় মেলে। লাই শব্দের অর্থ ঈশ্বর, হারাওবা অর্থ আনন্দ এবং জাগোই অর্থ নৃত্য। অর্থাৎ নাচ গানের মাধ্যমে ঈশ্বরকে খুশী করা।
লাই-হারাওবা নৃত্যে দেখা যায় পৃথিবীর সৃষ্টিতত্ত্ব থেকে শুরু করে গৃহায়ন,শস্যবপন, জন্ম-মৃত্যু সবকিছুই নৃত্য ও সংগীতের সুর লহরীতে ঝংকৃত হয়। এ নৃত্যেও আঙ্গিক অংশগুলো যেমন লৈশেম জাগোই (গৃহায়ন নৃত্য),লৈসা জাগোই (কমুারী নৃত্য) প্রর্ভতি মণিপুরী সাংস্কৃতিক লোক সংস্কৃতি হিসেবে প্রদমিৃত হয়। লাই-হারাওবা নৃত্যের দুটি ধারাতেই পরিবেশিত হয় নানান ধরনের কাহিনী নির্ভর নৃত্যগীত। এই নৃত্য ধারার সাথে জড়িয়ে আছে মণিপুরীদের সনাতন ধর্মে বর্ণিত সৃষ্টি তত্ত্ব।
উৎসব উপলক্ষে কমলগঞ্জের আদমপুরে প্রতিটি মীতৈ মণিপুরী পরিবারে দেশী বিদেশী অতিথিদের আগমণ ঘটেছে। প্রতিদিন সন্ধ্যার পর থেকে উৎসবে নানা ধরনের নৃত্য পরিবেশন করছেন মনিপুরী নারীরা। সাতে সাথে রয়েছে মীতৈ মনিপুরীদের ঐতহ্যবাহী খাবার পরিবেশন। আয়োজকরা জানান, ১ মে পাঁচদিনব্যাপী লাই-হারাওবা উৎসবের সমাপ্তি হবে।

কমলগঞ্জে কাল বৈশাখী ঝড়ে দু’শতাধিক ঘর বিধ্বস্ত ॥ রেল ও সড়ক যোগাযোগ বন্ধ ॥ বিদ্যুৎ ব্যবস্থা লন্ডভন্ড

 কমলকুঁড়ি রিপোর্ট


মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া কাল বৈশাখী ঝড়ে উপজেলার পতনউষার, শমশেরনগর, মুন্সিবাজার ও পৌরসভার এলাকায় দুইশতাধিক ঘর বিধস্ত হয়েছে। উপড়ে পড়েছে হাজারো গাছ পালা। ১১ কেভির প্রায় ১০০টি স্থানে গাছ ভেঙে বিদ্যুৎ ব্যবস্থা লন্ডভন্ড হয়ে পড়েছে। কমলগঞ্জ-কুলাউড়া সড়কে শমশেরনগর এয়ারপোর্ট রোডে ব্যাপক পালা গাছ পড়ায় সড়ক যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। এছাড়া লাউয়াছড়া পাহাড়ে রেল লাইনের উপর গাছ পড়ায় রেল যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। ঢাকাগামী পারাবত এক্সপ্রেস ও সিলেটগামী আন্তনগর পাহাড়িকা এক্সপ্রেস ট্রেন শ্রীমঙ্গল ও কুলাউড়া ষ্টেশনে আটকা পড়েছে। বিদ্যুৎ লাইন লন্ডভন্ড হয়ে যাওয়ার করণে বিদ্যুৎহীন ছিল পুরো কমলগঞ্জ। এছাড়া বজ্রপাতে পতনঊষার ইউনিয়নে এক কৃষকের ৪০ হাজার টাকার মহিষ মৃত্যু হয়েছে। ঝড়ের সাথে ছিল বিকট শব্দের বজ্রপাত। এতে উপজেলাবাসী আতঙ্কিত হয়ে পড়েন।


জানা যায়, রোববার (২৮ এপ্রিল) দুপুরে কাল বৈশাখীর ঝড়ে পতনউষার ইউনিয়নে পতনউষার, শ্রীরামপুর, চন্দ্রপুর, ধোপাটিলা, রসুলপুর, বৃন্দাবনপুর, দক্ষিনপল্কীসহ ১০টি গ্রামের বাড়িঘর ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। রাস্তার গাছপালা উপড়ে পড়ে। পতনউষারের বিভিন্ন এলাকায় পল্লী বিদ্যুৎ এর ১১ কেভি লাইন ছিড়ে পড়েছে। এছাড়া পতনউষার গ্রামের আলাল মিয়া, দক্ষিনপল্কী গ্রামের বিধবা মহিলা আগুরী বিবিসহ প্রায় ২০টি ঘর সম্পূর্ণ বিধস্ত হয়। অপরদিকে একই সময় শমশেরনগর, মুন্সিবাজার ও কমলগঞ্জ পৌরসভায় ঝড়ে দু’শতাধিক ঘর সম্পূর্ণসহ শতাধিক বাড়িঘর বিধস্ত হয়। কমলগঞ্জ আব্দুল গফুর চৌধুরী মহিলা কলেজে আধাপাকা একাডেমিক ভবনের টিন ছাউনিসহ পৌরসভার ৫, ১, ২ নং ওয়ার্ডের ঘরের টিন উড়িয়ে নিয়েছে। কয়েক শতাধিক গাছ পালা উপড়ে পড়েছে। গ্রামঞ্চলের বিদ্যুত এর তার ছিড়ে পড়েছে। ৩টি ইউনিয়নে শতাধিক ঘর আংশিক বিধস্ত হয়েছে। এছাড়া প্রায় শতাধিক স্থানে বিদ্যুৎ লাইনের তার ছিড়ে পড়েছে। ঝড়ে বেশি গাছপালা বিধস্ত হয়েছে শমশেরনগর এলাকায়। বিমান ঘাটি এলাকার কুলাউড়া সড়কের উপর অধর্শতাধিক গাছ পালা ভেঙ্গে পড়ে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সড়ক যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে।
পতনউষার ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান নারায়ন মল্লিক সাগর জানান, তার ইউনিয়নে ঝড়ে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। প্রায় দুই শত বসতঘর ক্ষতিগ্রস্ত ও কোটি টাকার গাছপালার ক্ষতিসাধন হয়েছে। তিনি সরেজমিনে পরিদর্শন করেছেন। বিধস্ত ঘর হওয়ায় খোলা আকাশে বসবাস করছেন ক্ষতিগ্রস্তরা।


বাংলাদেশ রেলওয়ে শ্রীমঙ্গল জোনের উপসহকারী প্রকৌশলী মনির হোসেন ট্রেন আটকা পড়ার বিষয়টি স্বীকার করেন।
কমলগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ডিজিএম মোবারক হোসেন জানান, ঝড়ে ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়েছে। প্রায় শতাধিক স্থানে তার ছিঁড়ে গেছে। বিদ্যুৎ ব্যবস্থা স্বাভাবিক করতে ১ দিন লেগে যাবে।
কমলগঞ্জ উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কমর্কতা মো. আছাদুজ্জামান বলেন, তিনি সরেজমিনে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করছেন। ঘরের তালিকা দেয়ার জন্য চেয়ারম্যানদের বলা হয়েছে।
কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) সুমি আক্তার বলেন, বিষয়টি তিনি জানেন। তবে ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা আসলে পরে ব্যবস্থা করা হবে।

নিজের বিয়ে রুখতে প্রধান শিক্ষকের সাহায্য চাইলো দশম শ্রেণীর ছাত্রী

কমলগঞ্জ থেকে সংবাদদাতা :
কমলগঞ্জে বাল্য বিবাহ রুখতে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের সাহায্য চেয়ে আবেদন করলো দশম শেণীর এক ছাত্রী শ্রাবনী কর (১৬)। তার বাবা শমসেরনগর চা বাগানের দরিদ্র চা শ্রমিক রাম গড়। বাবা অপ্রাপ্ত বয়সে মেয়ের বিয়ে দিতে পাত্রপক্ষকে নিয়ে রবিবার (২৮ এপ্রিল) আলোচনায় বসবেন। ছাত্রীটি মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের শমসেরনেগর হাজী মো. উস্তওয়ার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে পড়ে। ছাত্রী আরও লেখা পড়া করে প্রাপ্ত বয়সে বিয়ে করতে চায়। বিষয়টি বাবাকে বোঝালেও কোন কাজ হচ্ছে না। অবশেষে নিজের বাল্য বিবাহ রোধ করতে ও বিবাহের হাত থেকে রক্ষা করার সাহায্য চেয়ে শনিবার (২৭ এপ্রিল) সকালে বাল্য বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষকের কাছে ছাত্রীটি লিখিত আবেদন করে।
চা বাগানগুলিতে বাল্য বিবাহ একটি সাধারণ বিষয় বলে দশম শ্রেণির এ ছাত্রীর বাবাও তার বিয়ের জন্য আলোচনা করতে পাত্র পক্ষকে রবিবার তার বাসায় আমন্ত্রণ জানান। এ বিষয়টি টের পেয়ে ছাত্রী অবশেষে শনিবার সকালে বিদ্যালয়ে এসেই প্রধান শিক্ষকের কাছে লিখিত আবেদন করে বাল্য বিবাহের হাত থেকে রক্ষা করার অনুরোধ জানায়।
ছাত্রীর আবেদন পেয়ে হাজী মো. উস্তওয়ার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো, নুরে আলম সিদ্দিক শনিবার দুপুরেই দ্রুত পরিচালনা কমিটির সভাপতিসহ সদস্যদের ডেকে এনে আলোচনাক্রমে কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপ কামনা করেন।
কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশেকুল হক বলেন, তিনি সরকারি কাজে ঢাকায় অবস্থান করছেন। বিষয়টি তিনি শুনেই বর্তমানে কমলগঞ্জে নির্বাহী কর্মকর্তার দায়িত্বরত সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুমী আক্তারকে দ্রুত প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের নির্দেশনা দিয়েছেন। হাজী মো. উস্তওয়ার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক মো. নুরে আলম সিদ্দিক এ প্রতিনিধিকে বলেন, ছাত্রীর আবেদন পেয়ে পরিচালনা কমিটির সিদ্ধান্তক্রমে কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপ কামনা করেন। পরে সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুমী আক্তারের ফোন পেয়ে তিনি (প্রধান শিক্ষক) নিজে উপজেলা প্রশাসন কার্যালয়ে গিয়ে ছাত্রী আবেদনটি দিয়ে এসেছেন।
ছাত্রীর বাবা রাম কর বলেন, সুযোগমত একটি ভাল বর পেয়েছেন। তাই বিয়ে দিতে চাচ্ছেন। এটি একটি বাল্য বিবাহ হবে আর বাল্য বিবাহ আইননত দন্ডনীয় অপরাধ বলতে তিনি বলেন, বিয়ে ঠিক করে রেখে দিবেন। পরে মেয়ের বিয়ে দিবেন।
কমলগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুমী আক্তার বাল্য বিবাহের চেষ্টার অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, রবিবার ছাত্রীর বাড়িতে বরপক্ষ আসলে তিনি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ॥ কুলাউড়ায় স্কুলছাত্রীকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে জখম

আহত স্কুলছাত্রী ও আটক বখাটে।

কুলাউড়া থেকে সংবাদদাতা :
কুলাউড়ায় প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় স্কুলছাত্রীকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে জখম করেছে এক বখাটে। স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে বখাটের বর্বর হামলার শিকার হয় ৮ম শ্রেণির ছাত্রী ছামিরা আক্তার (১৪)। সে জয়চন্ডী ইউনিয়নের মীরশংকর এলাকার মধ্যপ্রাচ্য প্রবাসী সরফ উদ্দিনের মেয়ে।
শনিবার (২৭ এপ্রিল) কুলাউড়া উপজেলার ঘাটেরবাজারের পাশে বিকাল ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।
আশঙ্কাজনক অবস্থায় শিক্ষার্থীকে প্রথমে কুলাউড়া হাসপাতালে ও পরে সিলেটে ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। হামলাকারী বখাটে জুয়েল (১৯)কে গণধোলাই দিয়ে পুলিশের নিকট সোপর্দ করেছে স্থানীয় লোকজন।
আহত শিক্ষার্থী ছামিরার চাচা মুজিবুর রহমানসহ প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, উপজেলা সদরের আল-হেরা ইসলামী ক্যাডেট স্কুল এন্ড কলেজের ৮ম শ্রেণির ছাত্রী ছামিরা আক্তার স্কুলে ক্লাস শেষে বাড়ি ফেরার পথে সাদিপুর গ্রামের বকুল মিয়ার বখাটে পুত্র জুয়েল বটি দা (স্থানীয় ভাষায় আইদা) দিয়ে পূর্বপরিকল্পিতভাবে অতর্কিত হামলা চালায়। এসময় ছামিরার চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসে। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে কুলাউড়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় সিলেট ওসমানী হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।
এদিকে ঘটনাস্থলে এগিয়ে আসা লোকজন বখাটে জুয়েলকে দাসহ আটক করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশের নিকট সোপর্দ করে। পুলিশ জুয়েলকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।
ছামিরার চাচা আরো জানান, ছামিরাকে আগে থেকেই জুয়েল উত্যক্ত করতো। সে স্থানীয় সপ্তগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়ে লেখাপড়া করতো। কিন্তু জুয়েলের কারণে তাকে স্কুল পরিবর্তন করে কুলাউড়া আল-হেরা ইসলামী ক্যাডেট স্কুল এন্ড কলেজে ভর্তি করা হয়। সে সময় জুয়েলের বিরুদ্ধে থানায় একটি সাধারণ ডায়রিও করা হয়েছিলো।
কুলাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নুরুল হক জানান- ‘মাথার ডান থেকে পেছনের দিকে কোপ মেরেছে। এতে শিক্ষার্থীর ডান কান অর্ধেকটা ঝুলে গেছে। পেছন দিকে কোপের গভীরতা ২ ইঞ্চি পরিমাণ। আহত শিক্ষার্থীর অবস্থা আশঙ্কাজনক।’
কুলাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ ইয়ারদৌস হাসান বখাটে জুয়েলের আটকের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান- ‘তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। শিক্ষার্থীর পরিবার থেকে অভিযোগ পাওয়ার পর মামলা দায়ের করা হবে।

মৌলভীবাজারে পুলিশের সঙ্গে বন্দুক যুদ্ধে মাদক ব্যবসায়ী নিহত আহত ৩ পুলিশ

মৌলভীবাজারে পুলিশের সঙ্গে বন্দুক যুদ্ধে নিহত মাদক ব্যবসায়ী ও আহত একজন।

মৌলভীবাজার থেকে সংবাদদাতা :
মৌলভীবাজারে গোয়েন্দা সংস্থা ডিবি পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুক যুদ্ধে মুহিবুর রহমান জিতু (২৭) নামে এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে।
শনিবার (২৭ এপ্রিল ) ১২টার দিকে মৌলভীবাজার ও কুলাউড়া সড়কের রায়শ্রী নামক এলাকায় এই ‘বন্দুক যুদ্ধে’র ঘটনা ঘটে।
এ ঘটনায় ৩ ডিবি পুলিশ আহত হয়েছেন। এ সময় ইয়াবাসহ বেশ কিছু দেশীয় অন্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ।
নিহত জিতু তার বাড়ি চাঁদনীঘাট ইউনিয়নে নিমারাই গ্রামে বাসিন্দা। বর্তমানে মৌলভীবাজারের শহরের বেরিরচড় এলাকায় বাসা নিয়ে বসবাস করেন।
আহত তিন পুলিশ হলেন, উপ-পরিদর্শক মুবিন উল্লাহ (৪৫), কনস্টেবল কবির আহমদ (৪৪), কনস্টেবল সোহেল মিয়া (৪০)।
মৌলভীবাজার মডেল থানার ওসি মো.আলমগীর হোসেন এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন,ঘটনাস্থল একটি পাইপগান, এক রাউন্ড গুলি, তিনশতাধিক ইয়াবা, রাম দা উদ্ধার করা হয়েছে।