সদ্য সংবাদ

পুরাতন সংবাদ: March 20th, 2019

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালকের সাথে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর নেতৃবৃন্দের মতবিনিময়

সাজু মারছিয়াং 

 141
মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসনের আয়োজনে শ্রীমঙ্গল উপজেলা সম্মেলন কক্ষে বিশেষ এলাকার জন্য উন্নয়ন সহায়তা (পার্বত্য চট্টগ্রাম ব্যতিত) শীর্ষক কর্মসূচির আওতায় শ্রীমঙ্গল কমলগন্জ উপজেলায় বাস্তবায়িত প্রকল্প দর্শন ও ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় সভা শুক্রবার ০৮মার্চ বিকাল ৪টায় অনুষ্ঠিত হয়।
 সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক (প্রশাসন) মোঃ খলিলুর রহমান। সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক (ভারপ্রাপ্ত) মোঃ রোকন উদ্দিন।  এসময় উপস্থিত ছিলেন শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) সাহিদুল হক, কমলগন্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশেকুল হক। 
সভায় বিভিন্ন নৃগোষ্ঠীর প্রতিনিধিগণ বক্তব্য রাখেন। এতে আরও উপস্থিত ছিলেন বৃহত্তর সিলেট আদিবাসী ফোরামের সহ সভাপতি জিডিশন প্রধান ও মহাসচিব ফিলা পতমী, মনিপুরী সমাজ কল্যান সংস্থার সাধারন সম্পাদক কমলাকান্ত সিংহ, খাসি সোশ্যাল কাউন্সিলের প্রচার সম্পাদক সাজু মারছিয়াং, শ্রীমঙ্গল সদর ইউপি চেয়ারম্যান ভানু লাল রায়, রাজ ঘাট ইউপি চেয়ারম্যান বিজয় বুনার্জি প্রমুখ।
এর আগে তিনি কমলগঞ্জে বিভিন্ন স্থান পরিদর্শন করেন।

জীববৈচিত্র রক্ষার স্বার্থে লাউয়াছড়ার ভিতরের রাস্তা ও ট্রেন লাইন নতুনভাবে নির্মান ও সরানোর বিষয়টি সরকারের পরিকল্পনায় রয়েছে – পরিবেশ ও বন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন

Pic-22কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

কমলগঞ্জের লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানে বিভিন্ন প্রাণী ও জীববৈচিত্র রক্ষার স্বার্থে লাউয়াছড়ার ভিতর দিয়ে যে রাস্তা ও ট্রেন লাইন রয়েছে সেটি নতুনভাবে নির্মান ও সরানোর বিষয়টি সরকারের পরিকল্পনায় রয়েছে। পাশাপাশি পাকা রাস্তাটি বন্ধ না করে উভয় পাশে কাঁটাতারের বেড়া দিয়ে ফ্যানসিং করার পরিকল্পনা আছে। এটি বাস্তবায়িত হলে তখন আর লাউয়াছড়ায় বন্য প্রানী দূর্ঘটনায় মারা যাবেনা। পরিবেশ ও বন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন শনিবার (৯ মাচ) মৌলভীবাজার বর্ষিজুড়া ইকোপার্ক পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

Pic-1
মন্ত্রী আরো বলেন, পরিবেশের জন্য ক্ষতিকারক পলিথিন ব্যবহার আমরা এক সাথে বন্ধ করে দিলে তখন এমনিতেই পলিথিন বন্ধ হয়ে যাবে। তবে পলিথিন ব্যবহারের বিকল্প পাটের ব্যাগ ব্যবহারে আর্থীক অনুদান প্রদানের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। পাটের ব্যাগ ব্যবহার শুরু হলে এমনিতেই পলিথিন চিরতরে বন্ধ হয়ে যাবে। এসময় উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য নেছার আহমদ, মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক (ভারপ্রাপ্ত) রোকন উদ্দিন, মৌলভীবাজার পৌরসভার মেয়র ফজলুর রহমান, মৌলভীবাজার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শাহজালাল, বিভাগীয় বন কর্মকর্তাসহ জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ।

হত্যা না আত্মহত্যা ? কমলগঞ্জে লাশ কবরে নেয়ার পথে আটকে দিল পুলিশ !

14
কমলকুঁড়ি রিপোর্ট
একটি লাশ কবরে নেয়ার পথে আটকে দিল পুলিশ। পরিবারের সদস্যরা তড়িঘড়ি করে এক যুবকের লাশ দাফনের পূর্বেই পুলিশ উপস্থিত হয়ে লাশের অবস্থা দেখে ময়না তদন্ত ছাড়া লাশ দাফনের অনুমতি না দিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে থানায়।
ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার দুপুরে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার সদর ইউনিয়নের উত্তর রাসটিল¬া এলাকায়।
কমলগঞ্জ পুলিশ সূত্রে জানা যায়, রাসটিল¬া গ্রামের উস্তার মিয়ার পুত্র বুলবুল আহমেদ (২৩) শুক্রবার রাত সাড়ে দশ টায় বাড়ীর মধ্যে আতœহত্যা করে বলে পুলিশে খবর দেয় পরিবারের লোকজন।রাতে কমলগঞ্জ থানার এসআই আব্দুস শহীদের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে গেলে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান এবং গণ্যমান্য ব্যক্তিদের দিয়ে সুপারিশ করিয়ে লাশ ময়না তদন্ত ছাড়াই দাফন করার অনুমতি নেয় পরিবারের লোকজন। এদিকে যুবকের মৃত্যু ঘিরে রহস্য দেখা দিলে তড়িঘড়ি করে দাফনের জন্য পরিবারের সদস্যরা ও আত্মীয়-স্বজন উদ্যোগ নেয়। এ নিয়ে এলাকার মানুষের মধ্যে সন্দেহের সৃষ্টি হয়, বিষয়টি আবারো পুলিশকে অবহিত করা হলে, শনিবার দুপুরে কমলগঞ্জ থানার পুলিশের উপ-পরিদর্শক চম্পক দামের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল লাশ দাফনের কিছুক্ষণ পূর্বে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে মৃত ব্যক্তির ঘাড়ে ও গলায় আঘাতে চিহ্ন দেখে মৃত্যুর কারণ ও ফাঁস লাগানোর আলামত কোথায় এমন প্রশ্নে পরিবারের লোকজন মুখ না খুললেও তার দুই সহোদর বদর ও মামুন রহস্যজনক আচরণ করায় পুলিশের মনে সন্দেহ সৃষ্টি করে। পরে লাশ দাফনের অনুমতি না দিয়েই লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়। এ ব্যাপারে এসআই চম্পক দাম জানান, তার ঘাড় ও গলায় ফাঁস লাগার চিহ্ন অবস্থায় সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করা হয়েছে।
কমলগঞ্জ সদর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান জানান, আগামী ২৯শে মার্চ বুলবুলের বিয়ে হওয়ার কথা,কিন্তু এর আগেই কেন আতœহত্যা করলো সেটাই ভাবার বিষয়।
কমলগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আরিফুর রহমান বলেন, রাতে আমরা স্ট্রোক করে মারা যাওয়ার কথা শোনে লাশ দাফনের অনুমতি দিয়েছি, সকালে যখন শুনেছি ফাঁস লাগানোর কথা, তখন দুপুরে লাশ উদ্ধার করে থানায় আনা হয়েছে, ময়না তদন্তের জন্য মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হবে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলে বুঝা যাবে এটি হত্যা নাকি আতœহত্যার ঘটনা।