সদ্য সংবাদ

পুরাতন সংবাদ: May 2019

সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ ও দুর্নীতিকে কোনো প্রশ্রয় দেওয়া হবে না। – প্রধানমন্ত্রী

ডেস্ক রিপোর্ট:

g-5a96d1c389274-1

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, কেউ দুর্নীতি করলে শাস্তি পেতেই হবে। সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদে যুক্ত কিংবা অপরাধী যেই হোক, কাউকেই ছাড় দেওয়া হবে না। সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ ও দুর্নীতিকে কোনো প্রশ্রয় দেওয়া হবে না। বুধবার দশম জাতীয় সংসদের ১৯তম অধিবেশনের সমাপনী ভাষণে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। খালেদা জিয়ার কারাগারে যাওয়ার পর তার ছেলে তারেক রহমানকে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান করার সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপি নেত্রী জেলে যাওয়ার পর যাকে দায়িত্ব দেওয়া হলো, তিনিও দণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক ফেরারি আসামি। বিএনপির নেতৃত্বে কি একজনও ছিল না যে, তাকে দায়িত্ব দিতে পারত? তিনি বলেন, বিএনপির অধিকাংশ নেতার নামেই দুর্নীতির মামলা রয়েছে। কারও বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলা রয়েছে, কেউ কেউ সাজাপ্রাপ্ত। খালেদা জিয়া জানেন, যাদের দায়িত্ব দেবেন তাদের প্রত্যেকের বিরুদ্ধেই দুর্নীতির মামলা রয়েছে। বিএনপির সবাই তো দুর্নীতিগ্রস্ত, সবার বিরুদ্ধে মামলা রয়েছে। যদি তা-ই না হয়ে থাকে, তাহলে বিএনপি নেত্রী দলে একজনকেও খুঁজে পেলেন না, যাকে দায়িত্ব দিয়ে যাবেন? সবকিছু জেনেই বিএনপি নেত্রী যদি দণ্ডপ্রাপ্ত তারেক রহমানের হাতে দায়িত্ব দিয়ে থাকেন, কোনো কিছু বলার নেই।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদে প্রধানমন্ত্রী ছাড়াও বিরোধী দলের নেতা রওশন এরশাদ সমাপনী ভাষণ দেন। প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের পর রাষ্ট্রপতির অধিবেশন সমাপ্তির আদেশ পাঠ করার মাধ্যমে স্পিকার শীতকালীন অধিবেশনের সমাপ্তি ঘোষণা করেন। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার দুর্নীতি মামলার রায় সামনে রেখে বিএনপির গঠনতন্ত্র সংশোধনের কঠোর সমালোচনা করে সংসদ নেতা বলেন, বিএনপি নেত্রী কারাগারে যাবেন- সেটি আগেই তারা টের পেয়েছিল কি-না জানি না। রায় হওয়ার আগেই রাতারাতি বিএনপি তাদের দলীয় গঠনতন্ত্রের ৭ ধারা পরিবর্তন করেছে। এই ধারায় দুর্নীতিগ্রস্ত কিংবা সাজাপ্রাপ্ত কোনো ব্যক্তি নেতা হতে পারতেন না। রাতারাতি গঠনতন্ত্র সংশোধন করে বিএনপি দুর্নীতিকেই মেনে নিল, দুর্নীতিগ্রস্তকে নেতা হিসেবে মেনে নিল। যে দল দুর্নীতিকে নীতি হিসেবে নেয়, দুর্নীতির দায়ে সাজাপ্রাপ্তকে নেতা হিসেবে মেনে নেয়- সেই দল দেশকে কী দিতে পারে? তিনি বলেন, যে রাজনৈতিক দল দুর্নীতি ও দুর্নীতিবাজকে গ্রহণ করে, সেই দল কীভাবে জনগণের কল্যাণে কাজ করতে পারে? এরা হত্যা-দুর্নীতি-লুণ্ঠন-অর্থ পাচার- এসবই করতে পারে; জনগণের কল্যাণ করতে পারে না। খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে আদালতের রায় প্রসঙ্গে শেখ হাসিনা আরও বলেন, আদালত রায় দিয়েছেন। এখানে সরকারের কোনো হাত নেই। বিচারক রায় দিলেন কেন- সে জন্য অনেক বিএনপি নেতাও হুমকি দেন। তবে কি অপরাধীদের অভয়ারণ্য হবে বাংলাদেশ? এটা তো আমরা হতে দিতে পারি না। দেশে গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত রাখার ওপর গুরুত্বারোপ করে তিনি বলেন, জনগণের ভোটের অধিকার জনগণ ভোগ করবে। তার সরকার দুর্নীতিকে প্রশ্রয় দেয় না। নিজেদের লোককেও ছাড় দেওয়া হয় না। এমনকি মন্ত্রী-এমপিদের বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ উঠলে, যে কোনো সময় ডেকে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। আদালত থেকেও ডেকে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) স্বাধীনভাবে কাজ করছে। আমরা আইন মানি; কখনও নিজেদের দোষকে ঢাকার চেষ্টা করি না। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ওয়ান ইলেভেনের সময় তত্ত্বাবধায়ক সরকার বিএনপি নেত্রীর বিরুদ্ধে যে ধরনের মামলা দিয়েছে, সেই একই ধরনের মামলা তার বিরুদ্ধেও দেওয়ার চেষ্টা করেছে। বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল ট্রাস্টের একাউন্ট বন্ধ করে দিয়ে সব কাগজপত্র পরীক্ষা করেছে- এতটুকু ফাঁক পাওয়া যায় কি-না। শত চেষ্টা করেও ট্রাস্টের এতটুকু অনিয়ম তারা পায়নি। তবে একাউন্ট বন্ধ করে দেওয়ায় বঙ্গবন্ধু ট্রাস্ট থেকে প্রতি মাসে ১৬ থেকে ১৭শ’ শিক্ষার্থীকে যে আর্থিক সহযোগিতা দেওয়া হয়, সেটি বন্ধ হয়ে যায়। এতে ওই সময় অনেক শিক্ষার্থীর লেখাপড়া বন্ধ হয়ে যায়। টাকার অভাবে ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলায় আহতদের সহযোগিতা দেওয়া যায়নি। এতে তাদেরও অসহনীয় কষ্ট করতে হয়েছে। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের নামে আসা টাকা খালেদা জিয়াসহ তার ছেলে ও অন্যদের আত্মসাৎ প্রসঙ্গে সংসদ নেতা বলেন, এতিমদের জন্য টাকা এসেছিল ২৭ বছর আগে। কিন্তু সেই এতিমের টাকা কোথায়? তখনকার দিনে দুই কোটি টাকার অনেক মূল্য ছিল। ওই সময় এ টাকা দিয়ে ধানমণ্ডিতে ৭-৮টি ফ্ল্যাট কেনা যেত। সেই টাকার লোভ বিএনপি নেত্রী সামলাতে পারেননি। এতিমের হাতে একটি টাকাও তুলে দেননি; পুরো টাকাই মেরে খেয়েছেন। শেখ হাসিনা আরও বলেন, তাদের কিছুই নেই। তবুও তারা দু’বোন ধানমণ্ডির পৈতৃক বাড়িটি জনগণের জন্য দান করে দিয়েছেন। অথচ বিএনপি নেত্রী এতিমের দুই কোটি টাকার লোভ সামলাতে পারলেন না! মামলা করেছে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ও দুদক। এখানে সরকারের দোষ কোথায়? খালেদা জিয়ার পক্ষ থেকে ১০৯ বার সময় নেওয়া হয়েছে। ১০ বছর ধরে মামলা চলেছে; তারপর শাস্তি হয়েছে। শুরুতেই এতিমের টাকা দিয়ে দিলে তো এই মামলা চলত না। কিন্তু লোভ সামলাতে পারেননি বলেই আজ এ অবস্থা। ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের নাম উল্লেখ না করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর টাকায় ইত্তেফাক গঠন হয়েছিল। এটা আওয়ামী লীগেরও সম্পদ। অথচ সেই ইত্তেফাকের টাকায় বঙ্গবন্ধুর খুনিদের নিয়ে ওই ব্যক্তি রাজনৈতিক দল গঠন করেছিলেন। সেই ব্যক্তির মুখে এখন গণতন্ত্রের ছবক ও সংজ্ঞা শুনতে হয়- এটাই দুর্ভাগ্যজনক। তিনি জানান, এই ব্যক্তিটি তার কাছে অনেকবার এসেছিলেন- উপদেষ্টা হতে; তিনি করনেনি। এ কারণে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় তার বিরুদ্ধে মামলা দেওয়া হলো। মামলা মোকাবেলার জন্য জোর করে বিদেশ থেকে ফিরে আসি। বর্তমান সংসদকে কার্যকর ও গণতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে ভূমিকা রাখায় সংসদের বিরোধী দল জাতীয় পার্টির ভূমিকার প্রশংসা করেন প্রধানমন্ত্রী।

সংগ্রহ: সমকাল

৩৮টি চা বাগানে ৩৯১ জন যক্ষ্মা রোগি সনাক্ত

নিজস্ব সংবাদদাতা:: গত ৯ মাসে (এপ্রিল ২০১৭ থেকে জানুয়ারি ২০১৮) চা শিল্পাঞ্চলের ৩৮টি চা বাগানে ২ হাজার ৪৯০ জন চা শ্রমিকের স্বাস্থ্য (কফ ও অন্যান্য) পরীক্ষা করে মোট ৩৯১ জন যক্ষ্মা রোগি সনাক্ত করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য প্রকল্পের কনফারেন্স রুমে চা ও রাবার বাগানের ব্যবস্থাপক ও সহকারী ব্যবস্থাপকদের নিয়ে হীড বাংলাদেশ-এর চ্যালেঞ্জ টিবি প্রকল্পের এক সেমিনারে এ তথ্য জানানো হয়।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা.মো:জয়নাল আবেদিন টিটোর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজারের সিভিল সার্জন ডা. সত্যকাম চক্রবর্তী। বিশেষ অতিথি ছিলেন হীড বাংলাদেশ এর কার্যনিবাহী পরিষদ কমিটির সদ্যস ডা.ডেভিড তন্ময় বিশ্বাষ, এমএসএইচ এর ডিভিসনাল কো-অরডিনেটর আশিষ ঘোষ, জিএফএটিএম প্রকল্পের পরিচালক মুনুরো যাকোব,চ্যালেঞ্জ টিবি প্রজেক্ট ম্যানেজার শিমন মার্ডি, ডিস্টিক্ট প্রোগ্রাম অফিসার তাপস বাড়ই, এম এন্ড ই অফিসার সিবাস্তিন বিশ্বাস ও শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবের সহ সভাপতি_১ ইসমাইল মাহমুদ। উপস্থিত ছিলেন প্রকল্পের মেডিকেল টেকনোলজিস্ট রিন্টু কুমার সিংহ, ফিল্ড সুপারভাইজার জেমস সরেন।

উল্লেখ্য, হীড বাংলাদেশ, কমলগঞ্জ চ্যালেঞ্জ টিবি বাংলাদেশ মৌলভীবাজার, সিলেট ও হবিগঞ্জ জেলায় ১৮৪টি চা বাগান, ৭২টি খাসিয়া পুঞ্জি, ৫৬টি রাবার বাগানে যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে।

কমলগঞ্জে মৎস্য বিষয়ক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

0004
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলায় মৎস্য চাষ প্রযুক্তি সেবা সম্প্রসারণ প্রকল্প (২য় পর্যায়) এর আওতায় মৎস্য বিষয়ক এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা মৎস্য দপ্তর এর আয়োজনে উপজেলা কৃষি সম্পসারণ বিভাগের প্রশিক্ষণ হলরুমে বুধবার বেলা সাড়ে ১২ টায় এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
কমলগঞ্জ উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. শাহাদাত হোসেন এর সভাপতিত্বে ও রফিকুল ইসলাম এর সঞ্চালনায় মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. শামছুদ্দীন আহমদ। আলোচনায় অংশ নেন কমলগঞ্জ প্রেসকাব সভাপতি এম, এ, ওয়াহিদ রুলু, সাংবাদিক নূরুল মোহাইমীন মিল্টন, মৎস্য চাষী সাহেদ আহমদ, আব্দুর রব, ইউপি সদস্য এখলাছ মিয়া ও কুচিয়া চাষি রাজেন্দ্র কুমার সিনহা প্রমুখ।
সভায় উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. শাহাদাত হোসেন কয়েকটি ইউনিয়নে ৬টি মৎস্য প্রদর্শনী কার্যক্রম, একটি গলদা চিংড়ি প্রদর্শনী, কুচিয়া খামার সহ ১ লক্ষ ৮০ হাজার টাকার প্রদর্শনী বাস্তবায়ন এবং বিল, নার্সারী ও সরকারি-বেসরকারি পুকুর সমুহে প্রকল্পের মধ্যদিয়ে মৎস্য চাষের আওতায় নিয়ে আসার বিষয়ে পরামর্শ প্রদান করেন।
অনুষ্ঠানে সাংবাদিক, স্থানীয় মৎস্য চাষীসহ গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

কমলগঞ্জে সুহৃদ কুইজ প্রতিযোগিতা -২০১৮ এর ফলাফল প্রকাশ ও পুরষ্কার বিতরণ

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

 

IMG_20180228_135151

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে সমকাল সুহৃদ সমাবেশ এর আয়োজনে ভাষার মাস উপলক্ষে বুধবার “সুহৃদ কুইজ প্রতিযোগিতা”-২০১৮ এর ফলাফল প্রকাশ ও পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠান উপজেলা সদরের কলেজ রোডস্থ আম্বিয়া কেজি স্কুলের হলরুমে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কমলগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মোঃ জুয়েল আহমেদ।
কমলগঞ্জ সুহৃদ সমাবেশ এর সভাপতি শাব্বির এলাহীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক পিন্টু দেবনাথের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন কমলগঞ্জ সুহৃদ সমাবেশের উপদেষ্টা সমকাল প্রতিনিধি প্রনীত রঞ্জন দেবনাথ, আম্বিয়া কেজি স্কুলের অধ্যক্ষ মমতা সিনহা, সমাজসেবক ঈমান উদ্দিন।  অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান, জয়নাল আবেদীন, আসহাবুর ইসলাম শাওন, আব্দুল বাছিত খান, আলাল আহমদ, বিদ্যালয়ের শিক্ষক নার্গিস আক্তার, স্বর্ণা দে,আবুল কাশেম, নুরুল ইসলাম, বিউটি রানী সিনহা, নুরুজ্জামান বেগম, শারমিন আক্তার প্রমুখ।
উল্লেখ্য, আম্বিয়া কেজি স্কুলের ৫ম শ্রেণীর ২২ জন শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে সুহৃদ কুইজ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এর মধ্যে ৩জন শিক্ষার্থী সব্বোর্চ মার্ক পেয়ে উত্তীর্ণ হয়। ১ম স্থান অধিকার করে অস্মিতা সিনহা, ২য় স্থান অর্থি সিনহা মেধা ও ৩য় স্থান সানজিদ ইসলাম। অনুষ্ঠানে অতিথিরা ৩জন শিক্ষার্থীকে অভিনন্দনপত্র, সুহৃদ সম্মাননা স্মারক ও শিক্ষা উপকরণ প্রদান করা হয়। এছাড়া অংশগ্রহণকারী সকল শিক্ষার্থীকে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করা হয়।

সংযুক্ত আরব আমিরাতে ‘সিলেট বিভাগ প্রবাসী সমিতি’র কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটি : নজরুল ইসলাম সভাপতি ও সোহেল আহমদ সম্পাদক নির্বাচিত

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

Provasi
সিলেট বিভাগের প্রবাসীদের উদ্যোগে সংযুক্ত আরব আমিরাতে প্রতিষ্ঠিত ‘সিলেট বিভাগ প্রবাসী সমিতি’র কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটি গঠিত হয়েছে। গত ২৩ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার সমিতির এক বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সভায় উপস্থিত সকলের সর্বসম্মতিক্রমে বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ নজরুল ইসলাম সভাপতি, মোঃ সোহেল আহমদ (স্বপন) সাধারণ সম্পাদক ও মোয়াজ্জিম আহমদকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে সমিতির পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়। সমিতির পূর্ণাঙ্গ কমিটি শিগগির প্রকাশ করা হবে।

মুন্সীবাজারে স্কুল ব্যাগ বিতরন

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

55 (1) copy
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার মুন্সীবাজার ইউনিয়নের মাধ্যমিক ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে স্কুল ব্যাগ বিতরন করা হয়েছে। এলজিএসপি-৩’র অর্থায়নে মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১২ টায় আনুষ্ঠানিকভাবে শিক্ষার্থীদের মাঝে ব্যাগ তুলে দেন মুন্সীবাজার ইউপি চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মোতালিব তরফদার। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ইউপি সচিব সারোয়ার হোসেন, ইউপি সদস্য সুনীল মালাকার সুমন মজুমদার, চয়ন দেবনাথ, রেজাউল করিম নোমাম, তথ্য কেন্দ্রের উদ্যোক্তা এস এম এবাদুল হক। অনুষ্ঠানে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৮৩ জন শিক্ষার্থীর মাঝে ব্যাগ প্রদান করা হয়।

কমলগঞ্জে শুদ্ধস্বরে জাতীয় সংগীত প্রশিক্ষণ কর্মশালা উদ্বোধন

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

01
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে দুইদিন ব্যাপী শুদ্ধস্বরে জাতীয় সংগীত প্রশিক্ষন কর্মশালা উদ্বোধন হয়েছে। মঙ্গলবার বেলা দেড়টায় কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদ হল রুমে মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসক মো. তোফায়েল ইসলাম প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এ কর্মশালার উদ্বোধন করেন।
কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহমুদুল হক এর সভাপতিত্বে ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোশাররফ হোসেন এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. রফিকুর রহমান, সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুমী আক্তার। উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা জানান, জাতীয় সংগীতের সাথে জড়িত এ ধরনের ২৬ জন শিক্ষক শিক্ষিকাকে নিয়ে এই কর্মশালা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। কর্মশালায় অংশগ্রহনকারীরা পরবর্তিতে নিজেদের বিদ্যালয়সহ অন্যান্য বিদ্যালয়ে শুদ্ধস্বরে জাতীয় সংগীত পরিবেশনের শিক্ষা দান করবেন।

বীর মুক্তিযোদ্ধা উপাধ্যক্ষ ড. মোঃ আব্দুস শহীদ এমপি সরকারী প্রতিশ্রুতি সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি নির্বাচিত

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

MP Sohid
বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের সাবেক চিফ হুইপ বীর মুক্তিযোদ্ধা উপাধ্যক্ষ ড. মোঃ আব্দুস শহীদ এমপি সরকারী প্রতিশ্রুতি সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন।

মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায়  মহান জাতীয় সংসদে সংসদীয় নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে উপস্থাপন করেন বর্তমান চিফ হুইপ আ,স,ম ফিরোজ এমপি।   এ সময় স্পীকার ড. শিরিন শারমিন এমপি সংসদে উপাধ্যক্ষ ড. মোঃ আব্দুস শহীদ এমপিকে সভাপতি করে কমিটি নির্বাচিত করেন।

এ খবর ছড়িয়ে পড়লে উপাধ্যক্ষ মোঃ আব্দুস শহীদ এমপির নির্বাচনী এলাকা মৌলভীবাজার-৪ (কমলগঞ্জ-শ্রীমঙ্গল) এর নেতাকর্মী ও সাধারণ জনগণ আনন্দ মিছিল বের করেন ও মিষ্টি বিতরণ করা হয়।

কমলগঞ্জের মেধাবী শিক্ষার্থী লিমার হার্ট অপারেশনের জন্য গুড নেইবারস্ এর সোয়া

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

10
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের মধ্যভাগ মোকামবাজার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণীর মেধাবী শির্ক্ষাথী  হার্টের জটিলতায় আক্রান্ত লিমা আক্তার (৮) এর চিকিৎসার্থে আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা  গুড নেইবারস্ মৌলভীবাজার সিডিপি দুই লক্ষ পনের হাজার টাকা আর্থিক অনুদান প্রদান করে।  সোমবার(২৬ ফেব্রুয়ারী) সন্ধ্যায় আদমপুরে সংস্থার মৌলভীবাজার সিডিপি কার্য্যালয়ে স্পেশাল ট্রিটম্যান্ট কেস প্রকল্পের আওতায় আর্থিক অনুদানের চেক হস্তান্তর করা হয়। এ সময়  উপস্থিত ছিলেন গুড নেইবারস্ মৌলভীবাজার সিডিপির প্রকল্প ব্যবস্থাপক রিমো রনি হালদার, কমলগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সভাপতি এম এ রুলু, সাংবাদিক শাব্বির এলাহি, মধ্যভাগ সরকারী স্কুলের সহকারী শিক্ষক আব্দুল আজিম, ডাঃ ইসমাইল হোসেন, ডা: শ্রীনিবাস দেব নাথ, লিমা আক্তার ও তার মা বেগম বিবি।

সিলেট বিভাগে নৃত্য প্রথম স্থান অধিকার করে কমলগঞ্জের শিশু শিল্পী অর্থি সিনহা

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

Kamalgonj Pic Dance
জাতীয় শিশু পুরষ্কার প্রতিযোগিতা-২০১৮-তে সিলেট বিভাগীয় পর্যায়ে শিশু নৃত্য বিভাগে প্রথম স্থান লাভ করেছে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের শিশু  নৃত্য শিল্পী অর্থি সিনহা। মৌলভীবাজার জেলা পর্যায়ে শিশু নৃত্যে অর্থি শেষ্ঠ নির্বাচিত হয়ে ৬ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার সিলেট নজরুল একাডেমীতে বিভাগীয় পর্যায়ে অনুষ্ঠিত প্রতিযোগিতায় সে শিশু নৃত্যে প্রথম স্থান লাভ করে।অর্থি সিনহা আদমপুর ইউনিয়নের ঘোড়ামারা গ্রামের অমূল্য কুমার সিংহের মেয়ে ও কমলগঞ্জ উপজেলা সদরের আম্বিয়া কেজি স্কুলের পঞ্চম শ্রেনির ছাত্রী ও এ স্কুলে অধ্যক্ষ অনিতা রানী সিনহার মেয়ে। কমলগঞ্জ উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগ ও তার পরিবার সূত্রে জানা যায়, অর্থি দ্বিতীয় শ্রেণি থেকে নৃত্যে প্রশিক্ষণ নিচ্ছে। সে গত বছর ডিসেম্বর মাসে বাংলাদেশ সরকারের সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে ঢাকার নাম করা একটি প্রতিষ্ঠানের আমন্ত্রণে কমলগঞ্জের ঘোড়ামারা মনিপুরী নৃত্য দলের কনিষ্ঠ সফর সঙ্গী হয়ে ভারতের দিল্লী সফর করে।  ১৫ দিনের সফরে ভারতে বিখ্যাত নৃত্য একাডেমী বালসাংগামে প্রশিক্ষণ নিয়ে কনিষ্ঠ নৃত্য শিল্পী হিসাবে সুনাম অর্জন করে। আগামী মাসে ঢাকায় জাতীয় পর্যায়ের অনুষ্ঠিত শিশু পুরষ্কার প্রতিযোগিতায় অর্থি সিনহা সিলেট বিভাগের প্রতিনিধিত্ব করবে।