সদ্য সংবাদ

পুরাতন সংবাদ: May 2019

কমলকুঁড়ি পত্রিকা ৩১ জানুয়ারি ২০১৮, বুধবার

1 2 3 4

আজ একসঙ্গে দেখা যাবে ব্লু  রেড, সুপারমুন ও চন্দ্রগ্রহণ

কমলকুঁড়ি ডেস্ক
1517329448

১৫২ বছর পর আজ বুধবার ৩১ জানুয়ারি আরেকটি বিরল মুহূর্তের সাক্ষী হতে যাচ্ছে বিশ্ব। এদিন একই সময়ে ব্লু রেড মুন, সুপারমুন ও চন্দ্রগ্রহণ দেখা যাবে। সর্বশেষ ১৮৬৬ সালের ৩১ মার্চ এমন বিরল দৃশ্য দেখা গিয়েছিল। খবর  ফার্স্ট পোস্ট, দ্য গার্ডিয়ান, কোয়ার্টজ ।
সাধারণত আমরা প্রতি মাসে একটি পূর্ণিমা দেখতে পাই, কিন্তু কখনো কখনো একই মাসে দুটি পূর্ণিমা ঘটে থাকে। মাসের এই দ্বিতীয় পূর্ণিমাটিই হচ্ছে ব্লু মুন। চাঁদ পৃথিবীর সব থেকে কাছে চলে আসার অবস্থাকে সুপারমুন আখ্যা দিয়েছে জ্যোতির্বিজ্ঞান। বিজ্ঞানীরা বলছেন, উপবৃত্তাকার কক্ষপথে পৃথিবী থেকে চাদের এই নিকটতম অবস্থানকে অনুভূত বা পেরিজি বলা হয়। চাঁদ যখন পৃথিবীর খুব কাছে অবস্থান করে তখন চাঁদকে পৃথিবী থেকে তুলনামূলকভাবে অনেক বড় আর উজ্জ্বল দেখায়। পূর্ণ গোলাকার চাঁদের এই অবস্থাকে সুপারমুন বলা হয়। আর পৃথিবী যখন পরিভ্রমণরত অবস্থায় কিছু সময়ের জন্য চাঁদ ও সূর্যের মাঝখানে এসে পড়ে, তখন পৃথিবী, চাঁদ ও সূর্য একই সরল রেখায় অবস্থান করে। পৃথিবী থেকে তাকালে চাঁদকে আংশিক বা সম্পূণরূপে কিছু সময়ের জন্য অদৃশ্য মনে হয়। এই ঘটনাকে চন্দ্রগ্রহণ বলা হয়। এই তিনটি মহাজাগতিক ঘটনা ৩১ জানুয়ারি একইসঙ্গে ঘটতে যাচ্ছে যা অপরিচিত না হলেও বিরল।
ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ান জানিয়েছে, আজ ৩১ জানুয়ারি সূর্যাস্তের আগে উত্তর আমেরিকার পশ্চিমাঞ্চল থেকে এ বিরল দৃশ্য দেখা যাবে। আর আন্তর্জাতিক তারিখ রেখার কারণে মধ্য ও পূর্বাঞ্চলীয় এশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, নিউ জিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার বেশিরভাগ এলাকায় এ দৃশ্য দেখা যাবে ৩১ জানুয়ারি সূর্যাস্তের পর। ২০১৮ সালের ১ জানুয়ারি একটি সুপারমুন দেখা গিয়েছিল। ৩১ জানুয়ারি আরেকটি সুপারমুন দেখা যাবে। একই মাসে দ্বিতীয় পূর্ণিমা বলে এটি ব্লু মুনও। আবার এদিন চন্দ্রগ্রহণও হবে।
সাধারণ হিসেবে বলা যায়, চন্দ্র বছর সৌর বছরের তুলনায় গড় এগারো দিন কম হয়ে থাকে। এই অতিরিক্ত দিনগুলোর কারণে গড়ে প্রতি ২ দশমিক ৭ বছরে সৌরবর্ষপঞ্জিতে এক মাসে দু’টি পূর্ণিমা ঘটে। একইভাবে প্রতি ১৯ বছরে ৭ বার দেখা পাওয়া যায় ব্লু মুনের।  প্রায় ৪০০ বছর ধরে চলে আসা ‘ব্লু মুন’ ধারণাটির জন্য প্রথমে ভাবা হত তা আসলেই নীল দেখায়। তবে আধুনিক জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন ‘ব্লু মুন’ প্রকৃতপক্ষে দেখতে মোটেই নীল নয়। তবে আকাশে ধুলোবালি বা ধোঁয়ার কারণে চাঁদকে কখনো কখনো সাময়িকভাবে নীলাভ মনে হতে পারে। এটি সময়ের ধারাবাহিকতায় সংঘটিত হওয়া একটি মহাজাগতিক ঘটনা ছাড়া আর কিছুই নয়। সাধারণত সৌর বর্ষপঞ্জিতে ১২টি পূর্ণ চন্দ্র মাস হয়ে থাকে। তবে সৌর মাসের তুলনায় চন্দ্র মাসের দৈর্ঘ্য কম। চান্দ্রমাস ২৯.৫ দিনে সম্পন্ন হয়। এ বছর জানুয়ারি ও মার্চ মাসে দুবার করে পূর্ণিমা দেখা যাবে। তাই এক ব্যতিক্রমী বাস্তবতায় দুই মাসেই ব্লু মুনের দেখা মিলবে। সাধারণত ১৯ বছর পর পর এমন এক বছরে দুবার ব্লু মুনের দেখা পাওয়া যায়। এর আগে ১৯৯৯ সালেও জানুয়ারি ও  মার্চ মাসে ব্লু মুনের দেখা পাওয়া গিয়েছিল। এরপর একই বছরে দুবার ব্লু মুন দেখা যাবে ২০৩৭ সালে।

মার্চে প্রাথমিকে আরো ৭ হাজার শিক্ষক নিয়োগে বিজ্ঞপ্তি আসছে

 কমলকুঁড়ি ডেস্ক :
 100

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নতুন করে আরো সাত হাজার সহকারী শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হবে। এ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি আগামী মার্চ মাসে প্রকাশ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর (ডিপিই)।

ডিপিই সূত্রে জানা গেছে, সারা দেশে বর্তমানে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় আছে ৬৪ হাজার ৮২০টি। এর মধ্যে প্রায় ২০ হাজার স্কুলে প্রধান শিক্ষক নেই। সহকারী শিক্ষকের ১৭ হাজার পদ শূন্য রয়েছে। শূন্য এসব পদ পূরণে রাজস্ব খাতে নতুন করে এ সাত হাজার সহকারী শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হবে। অপরদিকে ২০১৪ সালের স্থগিত হওয়া নিয়োগ কার্যক্রমও শুরু হয়েছে। ওই নিয়োগে ১০ হাজার শিক্ষক নিয়োগ দেয়ার কথা ছিল। চলতি বছরের এপ্রিল মাসের মধ্যে ওই নিয়োগ কার্যক্রম সম্পন্ন হবে। বিষয়টি নিশ্চিত করে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক মো. রমজান আলী  বলেন, প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়নে বিভিন্ন উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। তার মধ্যে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক শূন্য পদগুলো পূরণে নতুন নিয়োগ কার্যক্রম রয়েছে। ২০১৪ সালের স্থগিত হওয়া ১০ হাজার সহকারী শিক্ষক নিয়োগ কার্যক্রম চলছে। এ কার্যক্রম আগামী এপ্রিলের মধ্যে শেষ করা হবে। তিনি বলেন, এ নিয়োগ কার্যক্রম শেষ হওয়ার আগেই নতুন করে আরো সাত হাজার সহকারী শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হবে। মার্চে এ বিষয়ে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। অধিদফতর সূত্র আরো জানায়, চতুর্থ প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন কর্মসূচির (পিইডিপি-৪) আওতায় রাজস্ব খাতে জেলা-উপজেলা পর্যায়ে বিদ্যালয়ের অবকাঠামো উন্নয়ন, অতিরিক্ত ক্লাসরুম তৈরি, প্রাথমিক পর্যায়ের স্কুলগুলো অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত উন্নীত করা হবে। এসব বিদ্যালয়ে শূন্য শিক্ষক পদ, প্রয়োজন অনুযায়ী সৃষ্ট পদ, প্রাক-প্রাথমিক স্তর মিলিয়ে আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দেড় লাখ শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হবে।

জাগো নিউজ থেকে সংগ্রহ

মরিছা মাদ্রাসার সাধারণ সভা ও মজলিসে শুরা কমিটি গঠন

27605110_1558646760868580_1681225841_o

মাহিদুল ইসলাম, পতনঊষার প্রতিনিধি

রাজনগর উপজেলার কামারচাক ইউনিয়নের মরিছা মাদ্রাসার সাধারণ সভা ও মজলিসে শুরা কমিটি গঠরের লক্ষে ৩০ জানুয়ারি মঙ্গলবার সকাল ১১ ঘটিকার এক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। মরিছা মাদ্রাসার হল রুমে মোঃ কবির চৌধুরীর সভাপতিত্বে সাধারণ সভায় উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট সমাজসেবক, শিক্ষানুরাগী, দানবীর যুক্তরাজ্য প্রবাসী আলহাজ্ব আব্দুল হান্নান, মাদ্রাসার পরিচালনা কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুল হান্নান চিনু, মাওলানা ফখরুল ইসলাম শাহিন, মদিনাতুল উলুম মাদ্রাসার সভাপতি মোঃ জহর মিয়া, নজরুল ইসলাম, প্রবাসী জাহিদ হাসান, প্রবাসী আব্দুল মালিক রুকন, কয়েছ আহমেদ, আনওয়ার খান, সুলেমান আহমেদ, কবির মিয়া, বাছিত আহমেদ প্রমুখ।

সভায় সর্বসম্মতি ক্রমে মজলিসে শুরা (সাধারণ কমিটি) হযরত মাওলানা আব্দুর রহমানকে সভাপতি ও মোঃ সুলেমান আহমেদকে সহ-সভাপতি করে ১০১ বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়।

প্রধানমন্ত্রী তিন ওলির মাজার জিয়ারত করেছেন

1

কমলকুঁড়ি ডেস্ক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সিলেটে পৌঁছে তিন ওলির মাজার জিয়ারত করেছেন। মঙ্গলবার সকাল ১০টা ৪৫ মিনিটে বিমানযোগে ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছার পর আওয়ামী লীগ সভানেত্রী একে একে হজরত শাহজালাল (রহ.), হজরত শাহপরাণ (রহ.) ও হজরত গাজী বোরহান উদ্দিনের (রহ.) মাজার জিয়ারত করেন। বেলা সোয়া ১১টার দিকে প্রধানমন্ত্রী হজরত শাহজালালের (রহ.) মাজারে পৌঁছান। তিনি মাজার জিয়ারত, ফাতিহা পাঠ ও মোনাজাত করেন। পরে দুপুর পৌনে ১২টার দিকে হজরত শাহপরাণের (রহ.) পৌঁছে মাজার জিয়ারত, ফাতিহা পাঠ ও মোনাজাত করেন তিনি। সেখান থেকে হজরত গাজী বোরহান উদ্দিনের (রহ.) মাজারে যান প্রধানমন্ত্রী। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে মাজার জিয়ারত শেষ করেন তিনি। পরে দুপুরের খাবার, জোহরের নামাজ ও বিশ্রামের জন্য সিলেট সার্কিট হাউসে পৌঁছান প্রধানমন্ত্রী।

ক্রিকেট থেকে ৮ বছরে আয় ১২০৭ কোটি টাকা

 

নিউজ ডেস্ক:

যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী ড. বীরেন শিকদার বলেছেন, আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারের বিগত ৮ বছরে ১ হাজার ২০৭ কোটি ৩ লাখ টাকা আয় করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। এর মধ্যে ২০১৪-১৫ অর্থবছরে সর্বোচ্চ ২২৯ কোটি ৭৬ লাখ টাকা আয় হয়েছে। সোমবার জাতীয় সংসদের প্রশ্নোত্তর পর্বে এ তথ্য জানান তিনি।

সরকার দলীয় মো. নজরুল ইসলাম বাবুর এ সংক্রান্ত প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী আরও জানান, বিসিবি ২০০৯-১০ অর্থবছরে ১০৪ কোটি ৩ লাখ টাকা, ২০১০-১১ অর্থবছরে ১৩৯ কোটি ৪৮ হাজার টাকা, ২০১১-১২ অর্থবছরে ১২৯ কোটি ৮২ লাখ টাকা, ২০১২-১৩ অর্থবছরে ১০১ কোটি ১ লাখ টাকা, ২০১৩-১৪ অর্থবছরে ১৫৬ কোটি ৮২ লাখ টাকা, ২০১৫-১৬ অর্থবছরে ১৬৫ কোটি ২২ লাখ টাকা এবং সর্বশেষ ২০১৬-১৭ অর্থবছরে ১৮১ কোটি ১৬ লাখ টাকা আয় করেছে। তিনি বলেন, ‘বিসিবিকে সরকার কোনো অর্থ দেয় না। সব কাজ তারা নিজস্ব অর্থায়নে নির্বাহ করে।’

বিরোধী দলের সংরক্ষিত আসনের সালমা ইসলামের প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী জানান, প্রতি বছর ক্রীড়া সামগ্রী বাবদ ৮ বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থাকে ৫০ হাজার টাকা এবং ৬৪ জেলা ক্রীড়া সংস্থাকে ১ লাখ টাকা করে দেয়া হয়। চলতি অর্থবছরে ৪৯০টি উপজেলা ক্রীড়া সংস্থাকেও ১ লাখ টাকা করে দেয়া হচ্ছে।

রাজনগরের শান্তকুল উচ্চবিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নির্বাচিত ডাঃ আব্দুল আলী 

 পতনঊষার প্রতিনিধি

2018-01-29--22_12_32-1

রাজনগর উপজেলার কামারচাক ইউনিয়নের শান্তকুল উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন ডাঃ মোঃ আব্দুল আলী।  গত ২৮ জানুয়ারি রবিবার সকাল ১১ ঘটিকার শান্তকুল উচ্চ বিদ্যালয়ে হল রুমে  সর্বসম্মতিক্রমে  সভাপতি নির্বাচিত করা হয়। সদস্য হিসাবে শফিক আলী, আব্দুল মনাফ, জয়নাল আবেদিন ও মহিলা সদস্য রাহেলা আক্তার কে নির্বাচিত করা হয়।

নবনির্বাচিত সভাপতি ডাঃ আব্দুল আলী শান্তকুল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি এবং শান্তকুল জামে মসজিদ পরিচালনা কমিটির সভাপতির দায়িত্ব আছেন এবং সামাজিক সংগঠন শান্তকুল আদর্শ সংঘের উপদেষ্টা। তিনি বিদ্যালয়ের সার্বিক উন্নয়নের জন্য সকলের সহযোগিতা কামনা করছেন।

কমলগঞ্জের কেওলার হাওরে অনাবাদি জমিতে ধানের আবাদ ॥ কৃষকের মূখে হাসির ঝিঁলিক

প্রনীত রঞ্জন দেবনাথ, কেওলার হাওর থেকে ফিরে :

20180127_134329
নব দিগন্তের সুচনা হয়েছে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার কেওলার হাওরে। এতদিন শুকনো মৌসুমে এই হাওরে যে জমিগুলো আনাবাদি পড়ে থাকতো চলতি বোর মৌসুমে সেই অনাবাদি জমিতে এলাকার কৃষকরা ধানের আবাদ করেছেন। আর সেই ধান পাকার পর কেটে গোলায় তুলবেন, দুর হবে তাদের এত দিনকার দু:খ কষ্ট। এমনই বুক ভরা স্বপ্ন দেখছেন হাওর পাড়ের মানুষেরা। আজ যেন তাদের আনন্দের আর শেষ নেই।

20180127_131452
সরেজমিন গিয়ে স্থানীয় কৃষকদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, কমলগঞ্জ উপজেলার মুন্সীবাজার, পতনউষার, শমশেরনগর ও আলীনগর ইউনিয়ন নিয়ে এই হাওরের অবস্থান। এই চারটি ইউনিয়নের প্রায় অর্ধশতাধিক গ্রামে প্রায় ২৫ হাজার পরিবারের বসবাস। চারটি ইউনিয়নের প্রায় ৯০০ হেক্টর ফসলী জমির এই কেওলার হাওর। এক সময় কেওলার হাওরে আউশ, আমন আর বোর ফসল ফলানো হতো। কিন্তু পানি নিষ্কাশন আর যাতায়াতের সুবিধা না থাকায় গত দশ বছর ধরে হাওরের অর্ধেক ফসলি জমি কৃষকরা পতিত ফেলে রাখেন। কারণ কষ্ট করে ফলানো ফসল তারা ঘরে তুলতে পারেন না। বর্ষার পানিতে সেই ফসল তলিয়ে যায়। এতে করে কৃষকরা শ্রম ও আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হন। মূলত: এ দুটি কারনেই কেওলার হাওরে জমিকে ধান চাষ করা থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিলেন ওই এলাকার কৃষকরা।
তবে চলতি বোর মৌসুমের আগে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও সাবেক চিফ হুইপ আলহাজ্ব উপাধ্যক্ষ মো: আব্দুস শহীদ কৃষকদের এই দু:খ লাঘবের জন্য কেওলার হাওর উন্নয়নে তাঁর ব্যক্তিগত প্রচেষ্ঠা চালিয়ে হাওরের বুক চিরে যাওয়া উপশি ও খাইজান খালটি দৈর্ঘ্যে প্রায় ৩৫০০ ফুট ও প্রস্থে ১৫ ফুট পূন:খনন করা হয়। আর কেওলার হাওরের রুপসপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে থেকে র্প্বূ দিকে লাঘাটা ছড়ার পাড় পর্যন্ত ২০০০ ফুট রাস্তা পূন: সংস্কার করা হয়। এতে হাওরে পতিত জমিগুলো চাষ উপোযোগী হয়ে উঠে।

20180127_132748
গত শনিবার দুপুরে সরজমিনে কেওলার হাওরে গিয়ে দেখা যায়, কৃষকরা মনের আনন্দে হাওরে জমি চাষ দিচ্ছেন। কেউবা চাষকৃত জমিতে ধানের চারা রোপন করছেন। কেউ কেউ ব্যস্ত রয়েছেন বীজতলা থেকে চারা উত্তোলনের কাজে। এক সময় ফেলে রাখা হাওরের পতিত জমি সবুজ ধান গাছে ভরে উঠছে। কেবল স্থানীয় এমপির একটু উদ্যোগ আর প্রচেষ্ঠাই বদলে দিয়েছে কেওলার হাওরের এই চিত্র। বিস্তীর্ণ হাওরের মাঠ জুড়ে এখন শুধু সম্ভাবনার হাত ছানি। স্থানীয় কৃষক মাসুক মিয়া, দুরুদ আহমদ, জুবায়ের আহম্মেদ, শামিম আহম্মেদ, মৌরাজ মিয়া, সিপার মিয়া, আব্দুর হান্নান জানান, এতো দিন তাদের জমি পতিত ফেলে রাখতেন। কিন্তু এখন তারা আবার নতুন করে স্বপ্ন দেখছেন। চলতি বোর মৌসুমে তাদের সবাই হাওরে পতিত জমিতে ধান চাষ করেছেন। আর এটা সম্ভব হয়েছে হাওরে পানি নিষ্কাশন আর যাতায়াতের ব্যবস্থা করে দেয়ায়। এখন তারা অনায়াসেই ঠেলায় করে সার, বীজ নিয়ে হাওরের শেষ সীমানা পর্যন্ত যেতে পারবেন। এখন লাঘাটা ছড়ায় এলাকার কৃষকদের দাবী সুইচ গেইট নির্র্মানের। একই সাথে বনবিষ্ণুপুর, রামেশ্বরপুর, ধুপাটিলা, কুদালিছড়া, রায়নগরের ঘনিয়ামারা ও খোদিজান ছড়া, মইদাইল ও ভুমিগ্রামের মান্দারছড়া, বাসুদেবপুরের ভাওরকোনা বিল খননেরও দাবি করে বলেন, তা না হলে পাহাড়ী ঢলে উজান থেকে আসা ছড়ার পানির সাথে পলি মাটি এসে কেওলার হাওর ভরাট হয়ে যাবে।
কেওলার হাওর দেখতে যান স্থানীয় সংসদ সদস্য ও জাতীয় সংসদের সাবেক চিফ হুইপ, বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদ, কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহমুদুল হক,কমলগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এম, মোসাদ্দেক আহমদ মানিক, কমলগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো: আব্দুল মোকতাদির পিপিএম, পতনউষার ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার তওফিক আহমদ বাবু, মুন্সীবাজার ইউনিয়ন চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মোতালিব তরফদার, প্যানেল চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান, যুক্তরাজ্য ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নাজমুল ইসলাম ইমন, স্থানীয় ইউপি সদস্য, কৃষক, সাংবাদিক। সেখানে এমপি ও স্থানীয় প্রশাসনের কর্মকর্তাগণ হাওরপাড়ের কৃষকদের সাথে তাদের সমস্যা নিয়ে মতবিনিময় করেন।
মুন্সিবাজার ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মোতালিব তরফদার এবং পরিষদের সদস্য মো. শফিকুর রহমান বলেন, কেওরার হাওর উন্নয়ন এলাকাবাসীর দীর্ঘ দিনের দাবি ছিল। আজ কেওলার হাওরে প্রাণ ফিরে এসছে। কৃষকরা ধান চাষ করছে। এতে শুধু কৃষকরাই লাভবান হবে না এখানে উৎপাদিত ফসল দেশের কৃষির উন্নয়নে বিরাট ভূমিকা রাখবে।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সামছুউদ্দিন আহম্মেদ বলেন, পানি নিস্কাশনের সুষ্ট ব্যবস্থা না থাকায় এই হাওরে আড়াইশ হেক্টর জমি আনাবাদি থেকে যেত। ওই জমিতে এখন থেকে বছরে প্রায় দুই হাজার মেট্রিকটন ধান উৎপন্ন হবে।
উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. শাহাদাত হোসেন বলেন, খাল খননের ফলে হাওরে কৃষির সাথে সাথে মৎস্য সম্পদেরও উন্নয়নে নব দিগন্তের সূচনা হবে।
কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ মাহমুদুল হক বলেন, খালটি খননের দীর্ঘদিনের দাবি ছিল এলাকাবাসীর। এলাকার এমপি মহোদয়ের প্রচেষ্টায় খালটি খনন করা হচ্ছে। কাজও প্রায় শেষ পর্যয়ে রয়েছে। খালটি খননের ফলে হাওরের প্রায় ২৮৬ হেক্টর জমি এখন চাষাবাদ করা যাবে। খালে পানি থাকায় এই হাওরে এখন তিনটি ফসলেরই আবাদ হবে।
স্থানীয় সংসদ সদস্য ও সাবেক চিফ হুইপ আলহাজ্ব উপাধ্যক্ষ মো: আব্দুস শহীদ বলেন, দেশে কৃষি জমি বৃদ্ধির জন্য প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা রয়েছে। সেই নির্দেশনার আলোকেই আমি এলাকায় কাজ করে যাচ্ছি। তাছাড়া এই খালটি খনন করা এলাকার কৃষকদের প্রাণের দাবি ছিল। খালটি খননের ফলে এই হাওরে এখন মানুষ সারা বছরই তিনটি ফসল ফলাতে পারবে। কৃষকদের উন্নয়নে সব ধরণের পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

শোক সংবাদ : মোঃ মনির মিয়া জমাদার

1

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার ২নং পতনঊষার ইউনিয়নের রশিদপুর জমাদার বাড়ির সাবেক সংরক্ষিত ইউপি সদস্য ছায়া বেগম এর স্বামী, কানাডা প্রবাসী মোঃ নুরুল ইসলামের পিতা পতনঊষার ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি মোঃ মনির মিয়া জমাদার (৭৫) আজ সোমবার (২৯ জানুয়ারি) বেলা ১১টায় নিজ বাড়ীতে মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে স্ত্রী, ১ ছেলে ও ২ মেয়ে, নাতী নাতনী ও অসংখ্য আত্মীয় স্বজন গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তিনি দীর্ঘ দিন লিভার জনিত রোগে ভোগছিলেন। বিকাল ৫টায় মরহুমের জানাজা শেষে রশিদপুর কদমতলী কবরস্থানে দাফন সম্পন্ন হবে বলে মরহুমে নাতনী অনলাইন প্রেসক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক হিফজুর রহমান তুহিন জানিয়েছেন।

রাজ্জাক আবারও টেস্ট দলে

 H

ফাইল ছবি

খেলাধুলা :

তিন বছর পর আবারও টেস্ট দলে ডাক পেলেন রাজ্জাক।  শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচের জন্য তাকে দলে নিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। চট্টগ্রামে এই ম্যাচটি শুরু হবে আগামী ৩১ জানুয়ারি।

এরআগে, ২০১৪ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি থেকে ৮ ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রামে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেই সর্বশেষ টেস্ট খেলেছিলেন রাজ্জাক। তিন বছর পর সেই চট্টগ্রাম এবং সেই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেই জাতীয় দলে ফিরতে চলেছেন রাজ্জাক। জাতীয় দলের হয়ে তিনি এখন পর্যন্ত ১২টি টেস্ট খেলেছেন ২৩টি উইকেট শিকার করেছেন। সম্প্রতি প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে প্রথম বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে ৫০০ উইকেটের মাইলফলক ছুঁলেন অন্যতম সেরা বাম হাতি স্লো অর্থোডক্স আবদুর রাজ্জাক। চার দিনের ক্রিকেটে বর্তমান তার উইকেট সংখ্যা ৫১০টি।

ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে হঠাৎ চোট পেয়ে মাঠ থেকে সোজা হাসপাতালে যেতে হলো সাকিব আল হাসানকে। বাম হাতের কনিষ্ঠ আঙ্গুলে সেলাই দিতে হয়েছে। যার ফলে ৩১ জানুয়ারি থেকে চট্টগ্রামে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে শুরু হতে যাওয়া টেস্টে সাকিব খেলতে পারবেন না বলে জানিয়ে দেয়া হয়েছে বিসিবির পক্ষ থেকে। তার পরিবর্তে চট্টগ্রাম টেস্টে নেতৃত্ব দেবেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। সাকিবের পরিবর্তে ইতোমধ্যে বাম হাতি স্পিনার সানজামুল ইসলাম এবং লেগ স্পিনার তানবীর হায়দারকে স্কোয়াডে রাখা হয়েছে। কিন্তু এ দু’জনের কেউই যে সাকিবের জায়গা পূরণ করার মতো নয়! অনেক ভেবে-চিন্তে নির্বাচকরা আবারও রাজ্জাককে ডাক দিলেন। তিন বছর পর টেস্ট দলে ডেকে নেয়া হলো অভিজ্ঞ এ স্পিনারকে। আজ সন্ধ্যা ৭টার ফ্লাইটেই চট্টগ্রাম উড়ে যাচ্ছেন রাজ্জাক এবং সেখানে গিয়ে দলের সঙ্গে যোগ দেবেন বলে টিম ম্যানেজমেন্ট সূত্রে জানা গেছে।