সদ্য সংবাদ

পুরাতন সংবাদ: May 2019

কুলাউড়ায় ৩দিন ব্যাপী উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন

mmm

মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় ২০২১ সালের মধ্যে ক্ষুধা ও দারিদ্র মুক্ত মধ্যম আয়ের বাংলাদেশ গড়ার ও বাংলাদেশের মানুষের আর্থ-সামাজিক জীবন মান উন্নয়নে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সারা দেশের ন্যায় সাফল্য উন্নয়ন মেলা ২০১৫ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
৩০ আগস্ট বুধবার সকাল ১১ টায় উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে পরিষদ চত্বর থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা জনমিলন কেন্দ্রে ৩দিন ব্যাপী এ মেলার ফিতা কেটে শুভ উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি জাতীয় সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আব্দুল মতিন ।
পরে উপজেলা জন মিলনায়তনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ নাজমুল হাসান এর সভাপতিত্বে ও সহকারী মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ জাহিদুল রহমানের পরিচালনায় প্রধান অীতথির বক্তব্য রাখেন জাতীয় সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আব্দুল মতিন।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কুলাউড়া উপজেলা চেয়ারম্যান আসম কামরুল ইসলাম, উপজেলা কৃষি অফিসার মোঃ শাহ নেয়াজ, কুলাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মোঃ মতিয়ার রহমান, উপজেলা স্বাস্থ্য ও প:প:কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ডাঃ মহী উদ্দিন, প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ সাঈফ উদ্দিন আহমদ, উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ শরীফ উল ইসলাম, উপজেলা প্রকৌশলী এলজিইডি মোঃ আবুল হোসেন, কুলাউড়া প্রেসক্লাব সাধারন সম্পাদক মোঃ খালেদ পারভেজ বখশ।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সমাজসেবা অফিসার মোঃ নুরুল ইসলাম পাটোয়ারী, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা সেলিনা ইয়াসমিন,নবীন চন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আমির হোসেন, রাবেয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুস ছালাম, বিএইচ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুল কাইয়ুম প্রমুখ।
মেলায় সরকারী বেসরকারীসহ ১৬টি স্টল বসেছে।

কমলগঞ্জে উন্নয়ন মেলা অনুষ্ঠিত

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট ।।Pic-30
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশন চলাকালে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক ও সামাজিক অর্জনের প্রচারণা সংক্রান্ত ৩দিন ব্যাপী উন্নয়ন মেলা ২০১৫ সমাপ্ত হয়েছে। বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) সকালে কমলগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উন্নয়ন মেলা উপলক্ষে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালী অনুষ্ঠিত হয়। প্রধান অতিথি হিসাবে মেলার শুভ উদ্বোধন করেন জাতীয় সংসদের সাবেক চিফ হুইপ মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আলহাজ্ব উপাধ্যক্ষ মো. আব্দুস শহীদ এমপি। Pic-56
র‌্যালী শেষে স্থানীয় ইসলাম কমিউনিটি সেন্টারে আলোচনা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সফিকুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে ও অধ্যক্ষ মো. হেলাল উদ্দিনের উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সংসদ সদস্য আলহাজ্ব উপাধ্যক্ষ মো. আব্দুস শহীদ। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব অধ্যাপক রফিকুর রহমান, উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি এম, মোসাদ্দেক আহমেদ মানিক, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পারভীন আক্তার লিলি, ভাইস চেয়ারম্যান সিদ্দেক আলী, রহিমপুর ইউপি চেয়ারম্যান ইফতেখার আহমেদ বদরুল, সাংবাদিক আব্দুল হান্নান চিনু, ছাত্রলীগ সভাপতি সানোয়ার হোসেন।
উন্নয়ন মেলায় সরকারের বাস্তবায়িত বিভিন্ন দপ্তরের উন্নয়নের প্রকল্পের চিত্র বিল বোর্ডের প্রদর্শন করা হয়। এসময় উপাধ্যক্ষ মো. আব্দুস শহীদ এমপির পুত্র মার্গুব মোর্শেদ রোমিও, প্রশাসনের কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিকসহ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা, বিভিন্ন শ্রেণীপেশার লোকজন উপস্থিত ছিলেন।

কমলগঞ্জে অসহায় দুঃস্থদের মধ্যে ঢেউটিন ও নগদ অর্থ বিতরণ

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট ।। Pic-555
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার স্থানীয় সরকার ও দূর্যোগ ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের বরাদ্ধকৃত অসহায় দুঃস্থদের মধ্যে  ঢেউটিন ও নগদ অর্থ বিতরণ করা হয়েছে। বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদ হলরুমে প্রধান অতিথি হিসাবে জাতীয় সংসদের সাবেক চিফ হুইপ উপাধ্যক্ষ মো. আব্দুস শহীদ এমপি আনুষ্ঠানিকভাবে এসব বিতরণ করেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান এর পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যাপক রফিকুর রহমান, আলীনগর ইউপি চেয়ারম্যান ফজলুল হক বাদশা, কমলগঞ্জ পৌরসভার প্যানেল মেয়র আনোয়ার হোসেন প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে উপজেলার ১৩০ জন অসহায় দুঃস্থদের মধ্যে জনপ্রতি ১ বান্ডিল  ঢেউটিন ও নগদ ৩ হাজার টাকা প্রদান করা হয়।

কমলগঞ্জে মোটর সাইকেল দুর্ঘটনায় নিহত-১, আহত আরোহী

শমশেরনগর প্রতিনিধি ||
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের শমশেরনগর-চাতলাপুর চেকপোষ্ট সড়কের কানিহাটি চা বাগান এলাকায় নেশাগ্রস্থ অবস্থায় দ্রুত গতিতে মোটরসাইকেল চালিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দুর্ঘটনায় পড়ে মোটর সাইকেল চালক নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় মোটর সাইকেলের পিছনের আরোহী গুরুতরভ আহত হয়েছে।
জানা যায়, গত মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) রাত ৮ টায় কুলাউড়া উপজেলার সীমান্তবর্তী শরীফপুর ইউনিয়নের চাতলাপুর চা বাগান এলাকা থেকে ফেন্সিডিল সেবন করে সাথী আরোহীকে নিয়ে শমশেরনগর ফেরার পথে পথিমধ্যে কানিহাটি চা বাগানের সড়কের বাঁক এলাকায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দুর্ঘটনায় পড়ে চালক সন্তোষ গোয়ালা (৩০) ও আরোহী মানিক শেখ গুরুতরভাবে আহত হয়। আহতদের মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সন্তোষ গোয়ালা মারা যায়। আহত মানিক শেখের অবস্থা আশঙ্কাজনক হলে তাকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। শমশেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্ব প্রাপ্ত কর্মকর্তা উপ পরিদর্শক মতিউর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

কমলগঞ্জ এলাকার ভিতরে স্থাপিত হলো শ্রীমঙ্গলের সীমানা পিলার

Pic-11
শাহীন আহমেদ, কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার)
কমলগঞ্জ উপজেলার সীমানা এলাকার ভিতরেই স্থাপন করা হয়েছে শ্রীমঙ্গল উপজেলার সীমানা পিলার। কমলগঞ্জ-শ্রীমঙ্গল সড়কের নির্জন পাহাড়ী এলাকা নুরজাহান চা বাগানের প্রবেশ মুখে ৩০ জুন ২০১৫ শ্রীমঙ্গল উপজেলা পরিষদ এর সৌজন্যে সীমানা পিলার স্থাপন করা হলেও এ নিয়ে কোন মাথা ব্যাথা নেই কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদ কিংবা উপজেলা প্রশাসনের। ক্ষুব্ধ কমলগঞ্জবাসী অচিরেই কমলগঞ্জ সীমানার ভিতর থেকে শ্রীমঙ্গল সীমানা পিলার সরানোর জোর দাবী জানিয়েছেন।
সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, কমলগঞ্জ থেকে শ্রীমঙ্গল যাবার পথে নূরজাহান চা বাগানের প্রবেশ পথের কিছুটা সামনে রয়েছে ‘স্বাগতম কমলগঞ্জ উপজেলা’ লিখা বোর্ড। যেটি কমলগঞ্জের সাবেক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আজাদুর রহমান মল্লিক এর সময়ে স্থাপন করা হয়। একি সময় কমলগঞ্জ উপজেলার চতুর্দিকেও স্থাপতি হয় সীমানা বোর্ড। এ অবস্থায় প্রায় এক মাস যাবত নির্মান কাজ করে গত ৩০ জুন কমলগঞ্জ সীমানা এলাকার ভিতরে ‘ধন্যবাদ আবার আসবেন, শ্রীভূমি শ্রীমঙ্গলে, সৌজন্যে ঃ উপজেলা পরিষদ, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার লিখা সীমানা পিলার উদ্বোধন করেন শ্রীমঙ্গল উপজেলা চেয়ারম্যান রনধীর কুমার দেব ও সে সময়ের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শহীদ মোহাম্মদ ছাইদুল হক। নির্জন পাহাড়ী এলাকার ভিতর সীমানা পিলারটি স্থাপন করায় ব্যাপক ভাবে মানুষের নজরে সেটি আসেনি। ৩ মাস অতিবাহিত হলেও কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদ কিংবা উপজেলা প্রশাসন এ বিষয়ে কোন পদক্ষেপ গ্রহন করেনি। তাদের নিরবতা জনমনে নানা প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে। এ বিষয়ে কমলগঞ্জ সাংবাদিক সমিতির সভাপতি আব্দুল হান্নান চিনু বলেন, লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান কমলগঞ্জে অবস্থিত হলেও সেটি শ্রীমঙ্গলের বলে অনেকেই দাবী করে। যে কারনে আজাদুর রহমান মল্লিক নির্বাহী কর্মকর্তা থাকাকালীন সময় আমাদের দাবীর প্রেক্ষিতে কমলগঞ্জের চর্তুদিকে সীমানা পিলার স্থাপন করা হয়েছিল। কিন্তু কমলগঞ্জের সীমানার ভিতরে শ্রীমঙ্গলের সীমানা পিলার স্থাপন করা অত্যন্ত দুঃখজনক। অচিরেই সেটি সরানো হউক। কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সফিকুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি নিয়ে উপজেলা পরিষদের মাসিক সভায় আলোচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থার উদ্যোগ নেয়া হবে। কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান পারভীন আক্তার লিলি বলেন, কমলগঞ্জের সীমানার ভিতর শ্রীমঙ্গলের সীমানা পিলার স্থান ঠিক হয়নি। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সকলের সাথে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

সরকার প্রত্যেক উপজেলায় মিনি ষ্টেডিয়াম করার উদ্যোগ নিয়েছে -মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক

1111
কমলকুঁড়ি রিপোর্ট ॥
মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসক মো. কামরুল হাসান বলেছেন, বর্তমান সরকার প্রত্যেক উপজেলায় একটি করে মিনি ষ্টেডিয়াম করার উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। ফুটবল অত্যন্ত একটি জনপ্রিয় খেলা। এটাকে ধরে রাখতে হবে। সরকার এজন্য প্রয়োজনীয় পৃষ্ঠপোষকতা করে যাচ্ছে। খেলাধূলা মাধ্যমে শারিরিক ও মানসিক বিকাশ ঘটে। পরস্পরের মধ্যে সৌহার্দ্য পূর্ণ সম্পর্ক সৃষ্টি হয়।
জেলা প্রশাসক মঙ্গবার ২৯ সেপ্টেম্বর বিকালে কমলগঞ্জ উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী মোকাবিল ফুটল মাঠে স্থানীয় জি এম অগ্রদূত স্পোটিং ক্লাবের আয়োজনে ৮ম মুণিপুরী মুসলিম ফুটবল টুর্ণামেন্টের পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। মৌলভীবাজার জেলা জজ কোর্টের সাবেক জিপি পিপি এডভোকেট এ এস এম আজাদুর রহমানের সভাপতিত্বে ও শিক্ষক সাজ্জাদুল হক স্বপনের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) প্রকাশ কান্তি চৌধুরী, কমলগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক রফিকুর রহমান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সফিকুল ইসলাম, ইসলামপুর ইউপি চেয়ারম্যান সোলেমান মিয়া, সমাজসেবক আজিজুর রহমান, হাজী জয়নাল আবেদীন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন অধ্যক্ষ নুরুল ইসলাম।
খেলায় ট্রাইবেকারে কান্দিগাঁও স্পোটিং ক্লাব ১-০ গোলে কুমড়াকাপন স্পোটিং ক্লাবকে পরাজিত করে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক আরও বলেন, ভারতের শেষ সীমান্ত আর বাংলাদেশের শেষে সীমান্তের মধ্যে দিয়ে অত্যন্ত সুন্দর চমৎকার একটি বিকেল কাটালাম। চারিদিকে প্রকৃতি, পাশে ধলাই নদী। এই শান্ত পরিবেশ কখনো দেখিনি। আমি সত্যি অভিভূত। তিনি বলেন, এ মাঠের উন্নয়নের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। আর যারা এ মাঠকে বেদখল করতে চায় তাদের সজাগ করে বলেন, মাঠ সকলের, সকলই ব্যবহার করতে পারবেন। এখানে বেদখল করে খেলোয়াড়দের প্রতিভা বিকাশ ঘটাতে পারেন না। এসব আপনাদেরই সন্তান।

বড়লেখায় দুই প্রাইমারী স্কুলের একাডেমিক ভবনের উদ্বোধন

Barlekha_Bhobon_Udbudon[1]

বড়লেখা সংবাদদাতা ।।

বড়লেখাউপজেলার কামিলপুর ও মুছেগুল কয়েছ আহমদ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নবনির্মিত একাডেমিক ভবনের উদ্বোধন করা হয়েছে। ২৭ সেপ্টেম্বর রোববার প্রধান অতিথি হিসেবে ভবন দুইটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন জাতীয় সংসদের হুইপ শাহাব উদ্দিন এমপি। কামিলপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি জামাল উদ্দিন মাস্টারের সভাপতিত্বে শিক্ষক শামীম আহমদ ও এম সামছুল হকের পরিচালনায় এ উপলক্ষে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম সুন্দর, ইউএনও এসএম আব্দুল¬াহ আল মামুন, উপজেলা প্রকৌশলী বিদ্যুৎ ভুষন পাল, শিক্ষা অফিসার পার্থ সারতি পাল, দক্ষিণভাগ ইউপি চেয়ারম্যান আজির উদ্দিন, উপজেলা আ’লীগ নেতা আনোয়ার উদ্দিন, আব্দুল লতিফ, আব্দুন নুর, সুব্রত কুমার দাস শিমুল, প্রধান শিক্ষিকা রিয়াজুন নেছা, সহকারী শিক্ষক প্রদীপ কুমার পাল, অভিভাবক সদস্য আব্দুল বাছিত, আব্দুল মান্নান, আব্দুস সালাম প্রমূখ। এদিকে উপজেলার মুছেগুল কয়েছ আহমদ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নবনির্মিত একাডেমিক ভবনের উদ্বোধনী সভায় সভাপতিত্ব করেন পরিচালনা কমিটির সভাপতি মইজ উদ্দিন।

কমলগঞ্জে সমবায়ের ভ্রাম্যমান প্রশিক্ষণ ইউনিট

আর কে সোমেন:: 20150929_122816-1

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলায় ভ্রাম্যমান প্রশিক্ষন কোর্স অনুষ্ঠিত হয়েছে। মৌলভীবাজার জেলা সমবায় কার্যালয় ও উপজেলা সমবায় অফিসের আয়োজনে বুধবার উপজেলা কৃষি হলরুমে উপজেলার ৫ টি সমবায় সমিতির ব্যবস্থাপনা কমিটির ২৫ জন সদস্যের অংশগ্রহনে এক ভ্রাম্যমান প্রশিক্ষন সম্পন্ন হয়। উক্ত প্রশিক্ষনে বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ সামসুদ্দিন আহমদ,উপজেলা প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মোঃ আহসান হাবিব, উপজেলা মৎস কর্মকর্তা শাহাদত হোসেন,  উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা জীতেন্দ্র সরকার, জেলা সমবায় কার্যালয়ের প্রশিক্ষক জবা রানী নাথ, উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সমবায় পরির্দশক মোঃ মিনার আলী, বাংলাদেশ বেতারের প্রতিনিধি আর কে সোমেন প্রমুখ। প্রশিক্ষনে বসতবাড়ির আঙ্গিনায় শাকসব্জি চাষ, কৃষি যন্ত্রপাতির প্রয়োগ বিধি, হাঁসমুরগী ও গবাদি পশুপালন এবং মৎস চাষের উপর প্রশিক্ষন অনুষ্ঠিত হয়।

শমশেরনগরে প্রয়াত সমাজকল্যাণ মন্ত্রী স্মরণে নাগরিক শোকসভা

শমশেরনগর প্রতিনিধি:
প্রয়াত সমাজকল্যাণ মন্ত্রী, বীর মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ মহসীন আলী স্মরণে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর চৌমুহনায় এক নাগরিক শোক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বিকাল ৫টায় শমশেরনগর উন্নয়ন পরিষদের সভাপতি আব্দুল গফুরের সভাপতিত্বে এ নাগরিক শোক সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য ও জনতা ব্যাংকের পরিচালক সৈয়দ বজলুল করিম। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা ও ঢাকাস্থ শমশেরনগর উন্নয়ন পরিষদের সচিব মো: খালেকুর রহমান, ইভা বড়–য়া, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান শামছুদ্দীন খান। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন লিয়াকত আলী, ইউপি সদস্য তাজুদ আলী, আওয়ামীলীগ নেতা মনির হোসেন, ছাত্রলীগ নেতা শাহীন আহমদ প্রমুখ।
সভায় বক্তারা প্রয়াত সমাজকল্যাণ মন্ত্রী সম্পর্কে বলেন, দেশ ও জাতি একজন সৎ ও ন্যায় পরায়ন বঙ্গবন্ধুর সেবককে হারিয়েছে। মুক্তিযুদ্ধে মরণ পণ লড়াই করে সৈয়দ মহসীন আলী আহত হয়েছিলেন। মৌলভীবাজারের মাটি ও মানুষের বন্ধু ছিলেন। তিনি সব সময় সাধারন মানুষের সুখ ও দুঃখের কথা শুনার জন্যই মন্ত্রী থাকাকালীন সময়ে একদিনও মৌলভীবাজার সার্কিট হাউজে রাত্রিযাপন করেননি। সাধারন মানুষ ও তৃণমূল পর্যায়ের নেতা কর্মীর জন্য তাঁর দরজা সব সময় খোলা ছিল। তিনি সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকে ধাপে ধাপে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাািন ভাতা বৃদ্ধি করেছেন। নিয়মিত বিধবা, বয়ষ্ক, প্রতিবন্ধী ভাতাসহ বিশেষ খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করে গেছেন।

মাধবকুণ্ডের ঝর্ণা দেখে বাড়ি ফেরা হলো না শিশু ফাহিমার

বড়লেখা প্রতিনিধি:

ঈদের আনন্দ উপভোগ শেষে বাড়ি ফেরা হলো না ফাহিমার। পথে সিএনজি চালিত অটোরিকশা কেড়ে নিলো তার প্রাণ। ঘটনাটি ঘটেছে মৌলভীবাজারের বড়লেখার মাধবকুণ্ড জলপ্রপাত এলাকায়।

হাসপাতাল ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ঈদের পরের দিন জুড়ি উপজেলার হাফিজ মিয়ার স্ত্রী পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সঙ্গে শিশুকন্যা ফাহিমা (১০)কে নিয়ে মাধবকুণ্ডে বেড়াতে যান। সেখান থেকে দুপুরের দিকে তারা একটি সিএনজি চালিত অটোরিকশা করে জলপ্রপাত এলাকা ত্যাগ করছিলেন।

অটোরিক্সাটিতে অতিরিক্ত যাত্রী বহন করছিলো। একসময় রিক্সাটি লক্ষীছড়া নামক স্থানে আসার পর ফাহিমা গাড়ি থেকে ছিটকে অটোরিকশার নিচে চাপা পড়ে যায় । গুরুতর আহত হওয়া ফাহিমাকে দ্রুত বড়লেখা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসাধীন আবস্থায় বিকেলে তার মৃত্যু হয়।

শিশুকন্যা ফাহিমার মৃত্যুতে হাফিজ মিয়া এবং তার স্ত্রী মুর্ষে পড়েছেন। পুরো পরিবার জুড়ে এখন শুধুই শোকের মাতম।