সদ্য সংবাদ

কমলগঞ্জে এক ইলেকট্রিশিয়ানের বিরুদ্ধে প্রতারণা ও দূর্নীতির অভিযোগ ॥ পল্লী বিদ্যুৎ বোর্ডের চেয়ারম্যানের বরাবরে অভিযোগ প্রেরণ

সংবাদদাতা

download
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে এক পল্লী বিদ্যুতের ইলেকট্রিশিয়ারে বিরুদ্ধে অনিয়ম, দূর্নীতি প্রতারণার অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগটি পল্লী বিদ্যুৎ বোর্ডের
চেয়ারম্যান বরাবরে গত ৮ অক্টোবর প্রেরণ করা হয়েছে। যার অনুলিপি বিভিন্ন দপ্তরে প্রেরণ করা হয়।
লিখিত অভিযোগে জানা যায়, কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর ইউনিয়নের সতিঝির গ্রামের এরফান মিয়া অভিযোগ করেন, কৃষ্ণপুর গ্রামের মুজিবুর রহমানের ছেলে মো: মোহিদুল রহমান ওরফে আব্দুল মোহিত মৌলভীবাজার পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কমলগঞ্জ জোনাল অফিসের তালিকাভূক্ত ইলেকট্রিশিয়ান। বিদ্যুৎ অফিসের লোক পরিচয়ে উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের সহজ সরল মানুষদের কাছ থেকে বিদ্যুৎ সংযোগ খুঁটি স্থাপন, খুটি পরিবর্তন, নতুন সংযোগ পাইয়ে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে প্রতারণা করে লাখ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছেন। এমনকি রড, বোর্ড ক্রয় না করলে, মিটার সিকিউরিটির টাকা (২০০০-২৫০০) না প্রদান করলে ও তার স্বাক্ষর ছাড়া কেউ বিদ্যুৎ সংযোগ পাবে না বলে হুমকি প্রদান করেন।

এরফান মিয়া আরও অভিযোগ করেন, কমলগঞ্জ জোনাল অফিসের জনৈক এক কর্মকর্তার সাথে সখ্যতা গড়ে। জোনাল অফিসের একচ্ছত্র ক্ষমতার অধিকারী হয়ে মোহিত রাতারাতি কোটি টাকার স্থাবর অস্থাবর সম্পদের মালিক বনে গেছেন।

প্রতারণা বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন পত্রপত্রিকা খবর প্রকাশিত হয়। এরই প্রেক্ষিতে বছর খানেক পূর্বে জেনারেল ম্যানেজার শিবু লাল বসু আব্দুল মোহিত কে সাময়িক স্থগিতাদেশ করেন। তারপরও জোনাল অফিসে সব সময় বিচরণ করতে দেখা যায়

এ ব্যাপার অভিযুক্ত আব্দুল মোহিত এর বক্তব্য জানতে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেনি।

এরফান মিয়া অভযোগের অনুলিপি প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে মন্ত্রী, সংসদ সদস্য, সচিব, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, উপজেলা চেয়ারম্যান, ইউএনও, অফিসার ইনচার্জ, ইউপি চেয়ারম্যান, জেনারেল ম্যানেজার, কমলগঞ্জ প্রেসক্লাব, সাংবাদিক সমিতি, রিপোর্টার্স ইউনিটি ও অনলাইন প্রেসক্লাবে প্রদান করা হয়।