সদ্য সংবাদ

ইসরায়েলের তিনটি ক্ষেপণাস্ত্র ধ্বংসের দাবি সিরিয়ার

ডেস্ক রিপোর্ট

সিরিয়ার দা1মেস্কের কাছে একটি সামরিক ঘাঁটি লক্ষ্য করে ইসরায়েলের ছোড়া তিনটি ক্ষেপণাস্ত্র ধ্বংস করেছে বলে দাবি করেছে দেশটির বিমান প্রতিরক্ষা বিভাগ। দেশটির রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থার সানার বরাত দিয়ে আজ মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) মার্কিন সংবাদমাধ্যম বিজনেস ইনসাইডার এ খবর জানিয়েছে।

সিরিয়া ও ইসরায়েল পাল্টাপাল্টি ভূমি থেকে ভূমি ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানোর তিনদিন পর এ ঘটনা ঘটলো। তবে বার্তা সংস্থাটি এসব ক্ষেপণাস্ত্র কোথায় আঘাত করেছে বা এতে ক্ষয়ক্ষতি বা হতাহতের বিষয়ে কিছু জানায়নি। তারা জানিয়েছে, সোমবার মধ্যরাতে এ হামলা চালানো হয়। আর এ ব্যাপারে ইসরায়েলেরও কোনও মন্তব্য পাওয়া যায়নি বলে খবরে বলা হয়। সানা জানায়, ‘দামেস্কের পাশে গ্রামাঞ্চলে আমাদের সামরিক ঘাঁটি লক্ষ্য করে ইসরায়েলের ক্ষেপণাস্ত্র হামলা প্রতিহত করেছে বিমান প্রতিরক্ষা বাহিনী। তারা তিনটি ক্ষেপণাস্ত্র গুলি করে ধ্বংস করেছে।’ যুক্তরাজ্যভিত্তিক মানবাধিকার সংগঠন ‘সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস’ জানায়, এদিন দামেস্কের জামরায়ে উপকূলে ইসরায়েল বিমান হামলা চালিয়েছে। সেখানে সিরিয়ার একটি সরকারি গবেষণা কেন্দ্র রয়েছে। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, শনিবার সিরিয়ার রাজধানীর বাইরের একটি সামরিক ঘাঁটির পাশে এলাকায় ইসরায়েলের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় বেশ ক্ষতি হয়। তবে কেউ হতাহত হয়নি। সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা সে সময় দাবি করে, সিরিয় বিমান বাহিনী দুটি ক্ষেপণাস্ত্র উপরেই ধ্বংস করেছে। পর্যবেক্ষণ সংগঠনটি বলছে, ওই এলাকায় ইরানি ও হিজবুল্লাহ সদস্যদের উপস্থিতি ছিল। তবে ইসরায়েল তাদের লক্ষ্য করে হামলা চালিয়েছে কিনা তা পরিস্কার হওয়া যায়নি।   শিয়া সশস্ত্র গোষ্ঠী হিজবুল্লাহ লেবাননে ইরানের ঘনিষ্ঠ মিত্র হিসেবে পরিচিত। বাশার আল আসাদকে ক্ষমতায় টিকিয়ে রাখতে সিরীয় ভূখণ্ডেও তৎপরতা রয়েছে সংগঠনটির। আর সেখান থেকে সংগঠনটি লেবাননে  অস্ত্রের চালান নিয়ে যাচ্ছে অভিযোগ ‍তুলে বেশ কয়েকবার বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল।  আর ভবিষ্যতে হামলার আশঙ্কায় সিরিয়ায় ইরানি সেনাদের উপস্থিতির বিরোধিতা করে আসছে ইসরায়েল। তারা বিষয়টি সিরিয়ার আরেক মিত্র রাশিয়ার সামনেও উত্থাপন করেছে।