সদ্য সংবাদ

সবাই এক সাথে কাজ করলে সোনার বাংলা গড়ে উঠার স্বপ্ন পূর্ণ হবে ——-কমলগঞ্জে ড. মুহাম্মদ জাফর ইকবাল

Pic----01
কমলকুঁড়ি রিপোর্ট
বিশিষ্ট লেখক-গবেষক, সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ও শিক্ষাবিদ ড. মুহাম্মদ জাফর ইকবাল বলেছেন, যে চেতনা নিয়ে মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে সুন্দর বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন দেখেছিল মুক্তিযোদ্ধারা, তা বাস্তবায়ন করতে হলে জাতি ভেদ ভূলে গিয়ে কাঁধে কাঁধে মিলিয়ে সবাইকে এক সাথে কাজ করতে হবে। তবেই সোনার বাংলা গড়ে উঠার স্বপ্ন পূর্ণ হবে। দেশের ৪ কোটি ছেলে-মেয়ে লেখাপড়া করছে। তারা যদি সঠিকভাবে বিজ্ঞান বুঝতে পারে, তা হলে বাংলাদেশকে বিশে^র কেউ ঠেকিয়ে রাখতে পারবেনা। তিনি আরো বলেন, মণিপুরীরা এক ধরনের আদিবাসী। তারা ছাড়াও দেশে গারো, ত্রিপরা, সাঁওতাল সহ নানা আদিবাসী রয়েছে। এই সব আদিবাসীদের মধ্যে শুধু মাত্র মণিপুরীদের মধ্যেই বিজ্ঞান বিষয়ে আগ্রহ আছে। অন্য আদিবাসীদের মধ্যে সে আগ্রহ নেই। তিনি আক্ষেপ করে বলেন, আমার বিশ^বিদ্যালয়ে আমার বিভাগে একমাত্র মণিপুরী ছাড়া আর কোন আদিবাসী ছাত্র নেই। আমার ইচ্ছা অন্যান্য জাতিগোষ্ঠীর মানুষ যেন বিজ্ঞান বিষয়ে আগ্রহী হয়। তিনি গত শনিবার সন্ধ্যায় মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার আলীনগর ইউনিয়নের দয়াময় সিংহ উচ্চ বিদ্যালয়ে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহনে মণিপুরী বিজ্ঞান প্রজন্ম -এর আয়োজনে ২ দিনব্যাপী বিজ্ঞান উৎসব-২০১৭ সমাপনী দিনে আলোচনা সভা পুরস্কার বিতরনী অনুষ্টানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

Pic----02
দয়মায় সিংহ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক প্রভাত কুমার সিংহের সভাপত্বিতে ও কিরন সিংহের সঞ্চালনায়  অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট লেখক-গবেষক, সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ও শিক্ষাবিদ ড. মুহাম্মদ জাফর ইকবাল। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকার, সিলেট এর উপ-পরিচালক দেবজিৎ সিনহা, কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ মাহমুদুল হক, মণিপুরী মাধ্যমিক শিক্ষক কল্যাণ সমিতির সভাপতি কৃষ্ণ কুমার সিংহ। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিজ্ঞান উৎসব কমিটির আহ্বায়ক সুকান্ত সিংহ, বিপুল সিংহ, ব্রজেন্দ্র সিংহ ও শিক্ষার্থী বাবলু সিংহ। আয়োজকরা জানান, কমলগঞ্জ উপজেলার মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞান চর্চায় উৎসাহ প্রদানে এ উৎসবের আয়োজন করা হয়। উৎসবে প্রজেক্ট প্রদর্শণী, প্রশিক্ষণ কর্মশালা, বিজ্ঞান সভা ও ক্যারিয়ার বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা ও কুইজ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। বিজ্ঞান উৎসবে কমলগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১৫০জন শিক্ষার্থী অংশ গ্রহন করেন।