সদ্য সংবাদ

বিভাগ: মৌলভীবাজার

চাকুরী জাতীয়করণের দাবীতে মৌলভীবাজার সিভিল সার্জন কার্যালয় সম্মুখে সিএইচসিপিদের অবস্থান কর্মবিরতি

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

20180123_111029

মৌলভীবাজার জেলার ১৮০ জন কমিউনিটি ক্লিনিকের সিএইচসিপি এসোসিয়েশন চাকুরী জাতীয়করণের দাবীতে মৌলভীবাজার জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সম্মুখে অবস্থান কর্মবিরতি পালন করেছে।

20180123_111058

২২ জানুয়ারি আজ মঙ্গলবার মৌলভীবাজার সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সম্মুখে সকাল ৯ টা থেকে অবস্থান কর্মবিরতি পালন করা হয়।

সিএইচসিপি জেলা শাখার সভাপতি আবদুল কাইয়ূম এর সভাপতিত্ব অবস্থান কর্মসূচীতে বক্তব্য রাখেন সাবেক কেন্দ্রয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কাসেম উসমানী, সিলেট বিভাগের সাবেক সাধার সসম্পাদ একে এম জাবের, মৌলভীবাজার সদর উপজেলার সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক কে এম রুবেল আহমদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাজহারুল ইসলাম মনসুর, সাবেক সাধারণ জুয়েল আহমদ, জেলা সাধারণ সম্পাদক আবদুল মুহিত, সাংগঠনিক সম্পাদক রজত চক্রবর্তী, কমলগঞ্জ উপজেলা সভাপতি মঈন উদ্দিন, রাজনগর উপজেলা সভাপতি আমজাদ হোসেন,  কুলাউড়া সভাপতি ইব্রাহীম আলী,  বড়লেখা উপজেলা সভাপতি বিনিত দাশ, জুরি উপজেলা সভাপতি জাকির হোসেন, শ্রীমঙ্গল উপজেলা সভাপতি জাকির হোসেন, নাসির খান।  উপস্থিত ছিলেন জেলার ১৭২ জন সিএইচসিপি।

অধিকার বঞ্চিত শীতার্তদের পাশে শসাফো

Shosafu pc
অধিকার বঞ্চিত শীতার্তদের মাঝে মাসব্যাপি শীতবস্ত্র বিতরনের ব্যতিক্রমি কর্মসূচী নিয়ে মাঠে নেমেছে শব্দচর সাহিত্য ফোরাম (শসাফো)।  কর্মসূচীর প্রথম দিন ২০ জানুয়ারী শনিবার সন্ধা ৭টা থেকে মৌলভীবাজার শহরের বিভিন্ন রাস্তা ও ফুটপাতে শসাফো সভাপতি কবি আবদুল হাই ইদ্রিছী’র নেতৃত্বে অধিকার বঞ্চিত শীতার্তদেরকে খোঁজে বের করে তাদের হাতে শীতবস্ত্র তুলে দেয়া হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন হিউম্যান রাইটস রিভিউ সোসাইটি এর মৌলভীবাজার জেলা সেক্রেটারী, সিনিয়র সাংবাদিক শ.ই.সরকার জবলু, মৌলভীবাজার অনলাইন প্রেসক্লাব এর সভাপতি মশাহিদ আহমদ, সেক্রেটারী মতিউর রহমান, দুর্ণীতি মুক্তকরন বাংলাদেশ ফোরাম মৌলভীবাজার জেলা সেক্রেটারী জিতু তালুকদার, ফটোসাংবাদিক উজ্জল ধর, শসাফো’র সাধারণ সম্পাদক মামুন আবদুল্লাহ, সাংগঠনিক সম্পাদক জিয়াউল হক জিয়া, প্রচার সম্পাদক রফিকুল ইসলাম জসিম, নির্বাহী সদস্য সৈয়দা ফোয়ারা জান্নাত মিমি, ফারহানা শারমীন চৌধুরী ও সৈয়দা তাসনিয়া জান্নাত প্রমুখ। - বিজ্ঞপ্তি

জুড়িতে সংঘর্ষে মুক্তিযোদ্ধা নিহত

জুড়ি সংবাদদাতা

2018-01-17--20_09_15

মৌলভীবাজার জেলার জুড়ী উপজেলায় পরকীয়ায় বাধা দেয়াকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষে ইয়াছিন মিয়া (৬৫) নামে এক মুক্তিযোদ্ধা নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ১০ জন।

বুধবার (১৭ জানুয়ারি) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত উপজেলার পূর্ব জুড়ী ইউনিয়নের জামকান্দি গ্রামে এ সংঘর্ষ হয়।

জানা গেছে, সম্প্রতি জামকান্দি গ্রামের জমির মিয়া নামে এক ব্যক্তি সোনারূপা চা বাগানের শ্রমিক হরিলালের স্ত্রীর সঙ্গে সঞ্জু নামে এক শ্রমিককে অনৈতিক কাজ করতে দেখে বাধা দেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে সঞ্জু হাতে থাকা লাইট দিয়ে জমিরকে আঘাত করেন। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সকালে ধরে জমিরের আত্মীয়রা সঞ্জুর সমর্থক সোনা রতন নামে এক চা শ্রমিকের ওপর হামলা করেন। এসময় সঞ্জু ও জমিরের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। একপর্যায়ে প্রতিপক্ষের হামলায় জমিরের পক্ষের ইয়াছিনসহ উভয়পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হন। এদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় ইয়াসিনকে হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ইয়াছিনের ছেলে শাহিনসহ (৩৫) অন্য আহতদের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

কুলাউড়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) আবু ইউসূফ জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়ের করা হয়েছে।

ইজতেমা ও তাবলিগ জামাতের কিছু কথা

মাওলানা মাহিদুল ইসলাম

received_1543967905669799

বিশ্বব্যাপী ইসলাম প্রতিষ্ঠার জন্য নবী করিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে আল্লাহতায়ালার পক্ষ থেকে সর্বপ্রথম যে কর্মসূচি দেওয়া হয়েছিল তার নাম দাওয়াত। তিনি ও তার একনিষ্ঠ সাহাবারা পবিত্র কালেমার দাওয়াত নিয়ে ঘুরেছেন পথে-প্রান্তরে ও মানুষের দুয়ারে-দুয়ারে। মানুষ তাদেরকে পাগল বলেছে, থু-থু দিয়েছে, ঢিল মেরেছে, রক্তাক্ত করেছে। তবুও তারা অবিরাম দাওয়াতের কাজ করেছেন।

তারি ধারাবাহিকতায় উপমহাদেশের মুসলমানদের ধর্মীয় জীবনে চরম অবক্ষয়ও এক দুঃসময়ে বিংশ শতাব্দির তৃতীয় দশকে মাওলানা ইলিয়াস (র.) তাবলীগ আন্দোলন এবং তাবলীগ জামাতের কার্যক্রম শুরু করেন। প্রতিষ্ঠাকাল থেকে অদ্যাবধি এ আন্দোলন সারা বিশ্বে মুসলমানদের মাঝে দাওয়াতে দ্বীনের তৎপরতা অবিরাম গতিতে চালিয়ে যাচ্ছে। তাবলীগ জামাত হলো একটি আন্তর্জাতিক দাওয়াতি সংস্থা। ইসলামের মৌলিক বিশ্বাস এবং ইবাদত সমূহের অনুশীলনও শিক্ষাদানই হচ্ছে তাবলীগ জামাতের মৌল কর্মসূচী।

হযরত ইলিয়াস (রহ) ১৩৫১ হিজরি সালে হজ থেকে ফিরে আসার পর সাধারণ মুসলমানদের দুনিয়া ও সংসারের ঝামেলা থেকে মুক্ত করে ছোট ছোট দলবদ্ধ করে, মসজিদের ধর্মীয় পরিবেশে অল্প সময়ের জন্য দীনি শিক্ষা দিতে থাকেন। এরই মাঝে একদা তিনি হুজুরে আকরাম (স) কে স্বপ্নে দেখেন এবং মহানবী (স) তাকে দাওয়াত ও তাবলিগের কাজের জন্য নির্দেশ দেন। মহানবী (স) এর নির্দেশ মোতাবেক তিনি দাওয়াত ও তাবলিগের কাজের সূচনা করেন। তারপর এ কাজকে আরও বেগবান ও গতিশীল করার জন্য এ উপমহাদেশের সর্বস্তরের আলেম-ওলামা, পীর মাশায়েখ ও বুজুর্গানদের কাছে দোয়া প্রার্থনা করা হয় এবং দিল্লির নিকটস্থ মেওয়াতে সর্বস্তরের মুসলসমানের জন্য ইজতেমা বা সম্মেলনের ব্যবস্থা করা হয়। এরপর ক্রমেই তাবলিগের কার্যক্রম বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তানের গন্ডি ছাড়িয়ে পৌঁছে যায় বিশ্বের আনাচে-কানাচে। হযরত মাওলানা আবদুল আজীজ (রহ) এর মাধ্যমে ১৯৪৪ সালে বাংলাদেশে তাবলিগের মেহনত শুরু হয়। তারপর ১৯৪৬ সালে বিশ্ব ইজতেমা সর্বপ্রথম অনুষ্ঠিত হয় বাংলাদেশের তাবলিগের প্রধান কেন্দ্র কাকরাইল মসজিদে। পরে ১৯৪৮ সালে চট্টগ্রাম হাজী ক্যাম্পে ইজতেমা শুরু হয়। এর পরে ১৯৫৮ সালে নারায়নগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে, তারপর ১৯৬৫ সালে টঙ্গীর পাগারে এবং সর্বশেষে ১৯৬৬ সালে টঙ্গীর ভবেরপাড়া তুরাগ তীরে অনুষ্ঠিত হয় বিশ্ব ইজতেমা এবং সেই থেকে এ পর্যন্ত সেখানেই ১৬০ একর জায়গাতে তাবলিগের সর্ববৃহত্ ইজতেমা বা সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। এবছর প্রথম বারের মতো ২৫,২৬,ও ২৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হচ্ছে তিনদিন ব্যাপী মৌলভীবাজার জেলা ইজতেমা ।

মুসলিম বিশ্বের বর্তমান পরিস্থিতিতে ইজতেমার গুরুত্ব ও তাত্পর্য অপরিসীম। মুসলিম বিশ্ব ইতিহাসের এক নাজুক ও দুর্দিন অতিক্রম করেছে। মায়ানমারের আরাকানে রোহিঙ্গা মুসলমান সহ আফগানিস্তান, ইরাক ও ফিলিস্তিনে নির্বিচারে মুসলমানদের হত্যা করা হচ্ছে। মুসলমানদের প্রথম কিবলা বায়তুল মোকাদ্দাসে স্বাধীনভাবে নামাজ আদায় করা যাচ্ছে না। ইসরাইলী ইহুদীরা বারবার ফিলিস্তিনের ভূখন্ডে অনুপ্রবেশ করে হত্যাকান্ড চালাচ্ছে। মুসলিম উম্মাহের সদস্যদের সেখান থেকে চিরতরে উত্খাত করার হীন প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে। ইরাকের শত শত মসজিদ ও জনপদ ধ্বংস করে দেয়া হচ্ছে। মুসলিম বিশ্বের দুরবস্থার অন্যতম কারণ হচ্ছে ঐক্যহীনতা ও পারস্পরিক দ্বন্দ্ব-কলহ। এ পরিস্থিতিতে মুসলিম বিশ্বের ধর্মীয় সম্মেলনের (ইজতেমা) অনেক গুরুত্ব রয়েছে। বিশ্ব ইজতেমা সহ দেশের সকল ইজতেমায় বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মুসলমানরা এসে সমবেত হন। এতে পারস্পরিক জানাজানি হয় এবং ভ্রাতৃত্ববোধ সৃষ্ট হয়।

তাবলিগ শব্দের অর্থ প্রচার। মানুষের কাছে গিয়ে ইসলাম ধর্মের বিধিবিধান জ্ঞাত করা ও ইসলামের প্রতি মানুষকে আকৃষ্ট করাই হচ্ছে তাবলিগ।
৬টি উসূলের ওপর ভিত্তি করে এ আন্দোলন। উসূলগুলো হচ্ছে- কলেমা, নামজ, এলেম ও জিকির, একরামুল মুসলিমীন, সহি নিয়ত ।
ইসলামের মৌলিক বিষয়গুলোর ক্ষেত্রে গোটা মুসলিম বিশ্ব এক মন ও এক দেহের মত একই কালেমার ছায়াতলে দাঁড়িয়ে যেতে পারে এটাই প্রত্যয়ন করি মৌলভীবাজার তিনদান ব্যাপী জেলা ইজতেমা থেকে এবং সফলতা কামনা করছি ।

মৌলভীবাজারের পুলিশ সুপার শাহজালালসহ বিপিএম ও পিপিএম পদক পেলেন-৩ জন

কমলকুঁড়ি ডেস্ক

নিষ্ঠার সাথে পেশাগত দায়িত্ব পালনে ও জঙ্গি তৎপরতা কঠোরভাবে দমনে সর্বোচ্চ সাহসিকতার কারণে স্বীকৃতি স্বরূপ বাংলাদেশ পুলিশের সর্বোচ্চ এওয়ার্ড বিপিএম পদক পেয়েছেন মৌলভীবাজারের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শাহ্ জালাল । পুলিশ সপ্তাহে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই পদক প্রদান করেন।

একই কারেণ পিপিএম পদক পেয়েছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) রাশেদুল ইসলাম ও মৌলভীবাজার মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুল মালিক।

উল্লেখ্য যে, মৌলভীবাজারের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শাহজালাল গত বছরের ২৮ মার্চ মৌলভীবাজারের বড়হাট এবং নাসিরপুরের দু’টি বাড়িতে জঙ্গি আস্তানায় অপারেশন ম্যাক্সিমাস ও অপারেশন হিটব্যাক অভিযান পরিচালনার সময় ‘সোয়াত’ টিমের পাশাপাশি কার্যকরী ভূমিকা রাখেন।

মৌলভীবাজারের সিনিয়র এএসপি (সদর) রাশেদুল ইসলাম জেলার আইন শৃঙ্খলা রক্ষা ও মাদক নিয়ন্ত্রণে জোরালো ভূমিকা রাখেন।

মৌলভীবাজার মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুল মালেক গত বছরের ৪ জানুয়ারি রাতে মৌলভীবাজার শহরের যমুনা পেট্রলপাম্পের কাছে ইয়াবা ব্যবসায়ীকে আটক অভিযান পরিচালনার সময়দ দুস্কৃতিকারী কর্তৃক অতর্কিত চাপাতির কোপে গুরুত্ব আহত হন এ ঘটনায় এসআই আব্দুল মালেক ছাড়াও পুলিশের এক সদস্য আহত হন।

মৌলভীবাজারে ইউরোসিটি হাউজিং লিমিটেড শুভ উদ্বোধন

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

26113825_1907917999237263_2343256946111251211_n

মৌলভীবাজার-সিলেট রোডস্থ জুগিডর এলাকায় অবস্থিত ইউরোসিটি হাউজিং লিমিটেড (কে এন্ড বি গ্রুপের একটি প্রতিষ্ঠান) এর শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে।
শনিবার (৩০ ডিসেম্বর) দুপুরে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রধান অতিথি হিসাবে মৌলভীবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য সৈয়দা সায়রা মহসীন। উদ্বোধন করেন।
অফিস ও প্রজেক্ট উদ্বোধন করেন মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি মোঃ নেছার আহমদ।

25994851_1907918089237254_1554412736111876253_n
ইউরোসিটি হাউজিং লি. এর চেয়ারম্যান এ. এম শাকুর খাঁন এর সভাপতিত্বে শেখ জুলি আরা তানিয়া ও এমদাদুল হকের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট রাধাপদ দেব সজল, মৌলভীবাজার প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক এস, এম, উমেদ আলী, নাজিরাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান সৈয়দ এনামুল হক রাজা, কনকপুর ইউপি চেয়ারম্যান রেজাউর রহমান চৌধুরী রেজা, কালাপুর ইউপি চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমান প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজনৈতিক, জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক ও সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ।   পরে উপস্থিত সবাইকে মধ্যাহ্ন ভোজে আপ্যায়িত করা হয়।

মৌলভীবাজারে যাত্রীবাহী বাস উল্টে খাদে, আহত-২৫

1474092128

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

মৌলভীবাজারে একটি যাত্রীবাহী বাস বুধবার ২৭ ডিসেম্বর দুপুরে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে খাদে পড়ে গেলে ২৫ জন যাত্রী আহত হয়।

ঘটনাটি মৌলভীবাজার শেরপুর সড়কের কামালপুর এলাকায় ঘটে। আহতদের উদ্ধার করে মৌলভীবাজার ২৫০শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল পাঠানো হয়েছে।

জানা যায়, শেরপুর থেকে ছেড়ে আসা এস জামান গ্রুপ নামের একটি যাত্রীবাহী বাস মৌলভীবাজার শহরে আসার পথে কামালপুর বাজার এলাকায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে যায়। তবে এ ঘটনায় নিহতের কোন খবর পাওয়া যায়নি।

তথ্যটি নিশ্চিত করেন মৌলভীবাজার ফায়ার সার্ভিসের ফায়ারম্যান শাহিন আহমদ।

শ্রীমঙ্গলে অজ্ঞাত ব্যক্তির মৃতদেহ উদ্ধার

2017-12-26--16_03_54
শ্রীমঙ্গল সংবাদদাতা

মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গলে অজ্ঞাত এক ব্যক্তির মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ মঙ্গলবার (২৬ ডিসেম্বর) সকালে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতাল মর্গ থেকে মৃতদেহটি উদ্ধার করা হয়।

জানা যায়- সোমবার (২৫ ডিসেম্বর) দিনগত রাত সাড়ে ১১টার দিকে শ্রীমঙ্গল-হবিগঞ্জ সড়কের সকিনা সিএনজি স্টেশনের কাছ থেকে গুরুতর আহত অবস্থায় ওই ব্যক্তিকে উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। এ অবস্থায় তাকে শ্রীমঙ্গল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে সেখানে গভীর রাতে তার মৃত্যু হয়। পরে মঙ্গলবার সকালে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে ময়নাতদন্তের জন্য মৃতদেহ পাঠানো হয়।

শ্রীমঙ্গল ফায়ার স্টেশনের ফায়ারম্যান মো. ফারহাদ মিয়া বলেন- সোমবার রাতে খবর পেয়ে সকিনা সিএনজি স্টেশনের কাছ থেকে ওই ব্যক্তিকে উদ্ধার করি। আশপাশের লোকজনের বক্তব্য তাকে গাড়ি ধাক্কা দিয়ে ফেলে গিয়েছিল। শ্রীমঙ্গল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান- তাদের কাছে এ রকম কোনো তথ্য নেই।

মৌলভীবাজার মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) রনেশ ভট্টাচার্য বলেন- মঙ্গলবার সকালে মৃতদেহ শ্রীমঙ্গল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে সুহেল মিয়া নামে এক অ্যাম্বুলেন্স চালক মৌলভীবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে নিয়ে আসে। পরে আমরা তাকে ময়নাতদন্তে পাঠাই।

Share
5
Tweet
0

৩০ ডিসেম্বর মৌলভীবাজারে ইউরোসিটি হাউজিং লিমিটেড শুভ উদ্বোধন

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

received_1990850811133650-1

আগামী ৩০ ডিসেম্বর শনিবার সকালে সাড়ে ১০টায় মৌলভীবাজার-সিলেট রোডস্থ জুগিডর এলাকায় অবস্থিত ইউরোসিটি হাউজিং লিমিটেড {কে এন্ড বি গ্রুপের একটি প্রতিষ্ঠান} এর শুভ উদ্বোধন হতে যাচ্ছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন মৌলভীবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য সৈয়দা সায়রা মহসীন।

অফিস ও প্রজেক্ট উদ্বোধন করবেন মৌলভীবাজার পৌরসভার মেয়র মো: ফজলুর রহমান। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন মৌলভীবাজার সদর উপজেলা পরিষদ এর চেয়ারমান মো. মিজানুর রহমান, জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি মোঃ নেছার আহমদ, দি মৌলভীবাজার চেম্বার অব কমার্স ইন্ড্রাষ্ট্রিজ সভাপতি মোঃ কামাল হোসেন, টোটাল গ্রুপ লিমিটেড এর মানেজিং ডাইরেক্টর কাজী শাহ আরফিন, মৌলভীবাজার প্রেসক্লাব সহ-সভাপতি আব্দুল হামিদ মাহবুব ও এইচ এন এইচ একাউনটেন্ট্ এন্ড টেক্সট কনসালটেন্সি, ইউ কে এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক তরিকুর রশীদ চৌধুরী শওকত ।

অনুষ্টানে সভাপতিত্ব করবেন ইউরোসিটি হাউজিং লি. এর চেয়ারম্যান এ. এম শাকুর খাঁন। ইউরোসিটি হাউজিং লি. এর ম্যানেজিং ডাইরেক্টর সৈয়দ তাজুল ইসলাম একটি দাওয়াতপত্রে উদ্বোধনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। – বিজ্ঞপ্তি

কমলগঞ্জ উপজেলা সমিতির সম্মেলন-২০১৭ অনুষ্ঠিত ॥ সভাপতি ডা: পদ্ম মোহন সিনহা, সাধারণ সম্পাদক শো: শাহাব উদ্দিন

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

Pic Somiti-1
মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসক (ভারপ্রাপ্ত) মোঃ আশরাফুর রহমান বলেছেন, কমলগঞ্জ উপজেলায় অনেক মেধাবী, জ্ঞানী, প্রাজ্ঞ ও বিচক্ষণ মানুষ জন্ম গ্রহণ করেছেন। যারা নিজ নিজ কর্মস্থলে অবদান রাখছেন এবং দূরদর্শীতার পরিচয় দিচ্ছেন। তাঁদেরকে অনুস্মরণ করা প্রয়োজন। দেশ বিদেশের বরণ্য ব্যক্তিবর্গ কমলগঞ্জ উপজেলার আকর্ষণীয় স্থানগুলো দেখতে আসেন। মৌলভীবাজার জেলা কে চায়ের দেশ হিসাবে পরিচিত হলেও, শ্রীমঙ্গল ব্যবসা বাণিজ্যে এগিয়ে কিন্তু কমলগঞ্জ উপজেলা অপরূপ সৌন্দর্য্যে লীলাভূমি আকষর্ণীয় হিসাবে পরিচতি লাভ করেছে। কমলগঞ্জ উপজেলা একটি বিশাল সম্ভাবনাময় উপজেলা। এখানে রয়েছে লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান, মাধবপুর লেক, হামহাম জনপ্রপ্রাত, রয়েছে চা বাগান, ফরেষ্ট, বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান এর স্মৃতি বিজড়িত স্থান, শমশেরনগর বিমান বন্দর, মুক্তিযুদ্ধের গৌরবগাঁথা, ইতিহাস, ঐতিহ্য সর্বপুরি উপজাতি ও ১৬টি নৃ-তাত্ত্বিক জনগোষ্ঠীর বসবাস। কমলগঞ্জ উপজেলাকে নিয়ে আমরা গর্ববোধ করি। এ উপজেলার পরিচয় ধরে রাখতে সকলই, বিশেষ করে নতুন প্রজন্মরা এগিয়ে আসতে হবে।

Pic Somiti
মোঃ আশরাফুর রহমান সোমবার (২৫ ডিসেম্বর) সকাল ১১টায় বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে মৌলভীবাজার জেলায় বসবাসরতদের নিয়ে গঠিত কমলগঞ্জ উপজেলা সমিতি সম্মেলন-২০১৭ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।
মৌলভীবাজার পৌরসভা মিলনায়তনে অনুষ্টিত সম্মেলনে সমিতির সভাপতি ডা: এম.এ. মতিন এর সভাপতিত্বে সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক (ভারপ্রাপ্ত) মোঃ আশরাফুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সারোয়ার আলম, মৌলভীবাজার পৌরসভার মেয়র মোঃ ফজলুর রহমান।
দেশটিভি মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি সালেহ এলাহী কুটির সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন সমিতির সাধারণ সম্পাদক ডা: পদ্ম মোহন সিনহা। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাবেক সিভিল সার্জন ডা: শফিক উদ্দিন আহমদ,  মো: শাহাব উদ্দিন, মো: মেরাজ চৌধুরী, মো: সুলতান মিয়া প্রমুখ।
সম্মেলন শেষে বর্তমান কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করে ২১ সদস্য বিশিষ্ট কমলগঞ্জ উপজেলা সমিতি, মৌলভীবাজার এর কার্যনির্বাহীর নতুন কমিটি গঠন করা হয়।
কমিটির উপদেষ্টাবৃন্দ হলেন ডা: এম. এ. মতিন, ডা: শফিক উদ্দিন আহমেদ, ডা: সুধাকর কৈরী, এডভোকেট সমর কান্তি দাস চৌধুরী, এডভোকেট আমিরুল ইসলাম (পংকী) ও এডভোকেট মহিউদ্দিন মানিক।
কার্যনির্বাহী কমিটির সভাপতি হলেন ডা: পদ্ম মোহন সিনহা, সহ-সভাপতি এডভোকেট চাঁদ মুরারী সিংহ (স্বপন), জালাল উদ্দিন আহমদ, সাধারণ সম্পাদক মো: শাহাব উদ্দিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো: রেজাউল করিম, সহ-সাধারণ সম্পাদক বিকাশ দত্ত, সাংগঠনিক সম্পাদক মো: সুলতান মিয়া, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক জ্যোতি সিনহা, কোষাধ্যক্ষ কৃষ্ণ কুমার সিংহ, প্রচার সম্পাদক শ্যামল সিংহ, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মো: আয়ুব আলী, দপ্তর সম্পাদক শ্যামল কান্তি সিংহ, শিক্ষা ও সাহিত্য বিষয়ক সম্পাদক সুজিত সিংহ, সমাজকল্যাণ সম্পাদক রাজমনি সিংহ, ক্রীড়া সম্পাদক তোফায়েল আহমদ, নির্বাহী সদস্য মোঃ নূরুল হক, সালেহ এলাহী কুটি, দিলীপ কুমার দাস, এম.এ কাওছার, অনিল কুমার সিংহ ও সুরঞ্জিত সিংহ।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কমলগঞ্জ উপজেলা থেকে আগত বিভিন্ন শ্রেণী পেশার ও মৌলভীবাজার জেলায় বসবাসরত নেতৃবৃন্দ।  সবশেষে সকলকে মধাহ্ন ভোজে আপ্যায়িত করা হয়।