সদ্য সংবাদ

বিভাগ: কমলগঞ্জ

কমলগঞ্জে ভারতে প্রখ্যাত নৃত্যশিল্পী অধ্যাপক পদ্মশ্রী কলাবতী দেবীকে সংবর্ধনা প্রদান

2
কমলকুঁড়ি রিপোর্ট
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে ভারতীয় উপমহাদেশের প্রখ্যাত মণিপুরী নৃত্যশিল্পী ও নৃত্যগুরু রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন অধ্যাপক পদ্মশ্রী শ্রীমতি কলাবতী দেবীকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে।
বাংলাদেশ মণিপুরী আদিবাসী ফোরাম এর আয়োজনে ও মণিপুরী সমাজ কল্যাণ সমিতি, মণিপুরী যুব কল্যাণ সমিতি, মণিপুরী থিয়েটার এর সহযোগিতায় শুক্রবার (১৯ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় কমলগঞ্জ উপজেলার আদমপুর ইউনিয়নের ঘোড়ামারার দক্ষিণ মণ্ডপে এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ মণিপুরী আদবাসী ফোরামের উপদেষ্টা রসমোহন সিংহ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন উপমহাদেশীয় সংস্কৃতি প্রসার কেন্দ্র সাধনার ধ্র“মেল প্রকল্পের আটস্টিক পরিচালক লুবনা মরিয়ম। পৌরি সম্পাদক সুনীল সিংহ এর সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের সদস্য বিশিষ্ট অভিনেত্রী ও নিদের্শক রোকেয়া রফিক বেবী, মাধবপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক রাজকান্ত সিংহ,  মণিপুরী সমাজ কল্যাণ সমিতির সভাপতি প্রতাপ চন্দ্র সিংহ।

1

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ মণিপুরী আদিবাসী ফোরাম এর সাধারণ সম্পাদক ও বিশিষ্ট সমাজসেবক সমরজিত সিংহ। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য ফোরামের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ও শিক্ষিকা বিলকিছ বেগম, মণিপুরী নৃত্যশিল্পী ও প্রশিক্ষক সুইটি দাস চৌধুরী প্রমুখ।
অনুষ্ঠানের শুরুতে অতিথিদের উত্তরীয় এবং ফোরামের পক্ষ থেকে সংবর্ধিত অতিথিকে সম্মাননা স্মারক প্রদান করেন বাংলাদেশ মণিপুরী আদিবাসী ফোরাম সাধারণ সম্পাদক সমরজিত সিংহ। এছাড়া কমলকুঁড়ি পত্রিকার পক্ষ থেকে সম্পাদক পিন্টু দেবনাথ  সংবর্ধিত অতিথিকে উত্তরীয় পড়িয়ে দেন। অতিথির উদ্দেশ্যে মানপত্র পাঠ করেন বিশিষ্ট অভিনেত্রী জ্যোতি সিনহা, মণিপুরী থিয়েটারের পক্ষে ক্রেষ্ট প্রদান করেন সভাপতি সুভাশিষ সমীর।

মৌলভীবাজার জেলার শ্রেষ্ট কমলগঞ্জ থানার এএসআই মো: হামিদুর রহমান

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

2018-01-19--16_44_34

মৌলভীবাজার জেলার শ্রেষ্ট হয়েছেন কমলগঞ্জ থানার এএসআই মো: হামিদুর রহমান। ১৮ ডিসেম্বর ২০১৭ তারিখের মাসিক কল্যাণ সভায় মৌলভীবাজার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শাহজালাল এর নিকট থেকে এএসআই মো: হামিদুর রহমান শ্রেষ্ট হিসাবে পুরষ্কার গ্রহন করেন।

১৯ জানুয়ারি শুক্রবার বামডো এর কার্যকরী পরিষদের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন

 কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

Piv--1
বাংলাদেশ মণিপুরী মুসলিম ডেভেল পমেন্ট (বামডো) এর কার্যকরী পরিষদেরদ্বি-বার্ষিকী নির্বাচন ১৯ জানুয়ারি শুক্রবার কমলগঞ্জ উপজেলার আদমপুর ইউনিয়নের তেতইগাঁও রশিদ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় সেন্টারে অনুষ্ঠিত হবে। ইতিমধ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন পরিচালনা কমিটি। নির্বাচনকে সামনে রেখে বিভিন্ন স্থানে পোষ্টারে পোষ্টারে ছেয়ে গেছে। প্রার্থীরা ভোটারদের কাছে গিয়ে ভোট প্রার্থনা করছেন। মোট ভোটার ১৫৮০ জন। এর মধ্যে পুরুষ ১১১২ ও মহিলা  ৪৬৮ জন। সম্পূর্ণ গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচন কমিশনের সদস্য সচিব আব্দুল খালেক জানান, ১১টি পদে নির্বাচনের মধ্যে সভাপতি  পদে আব্দুল মজিদ চৌধুরী এবং সাহিত্য সাংস্কৃতিক পদে হোসেন আহমদ বিনাপ্রতদ্বন্ধিতার নির্বাচিত হয়েছেন। ১৯ জানুয়ারি ৯টি পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ৯টি পদে ২১ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। প্রতিদ্বন্ধি প্রার্থীরা হলেন সহ-সভাপতি পদে মোঃ রহিম উদ্দিন মজুমদার (মই মার্কা), হাজী খাইরুজ্জামান ( বাইসাইকেল)। সাধারণ সম্পাদক পদে মোঃ সাজ্জাদুল হক স্বপন (তালা), মোঃ আব্দুল ওয়াহিদ (হরিণ), মোঃ হাবিব আলী (মাছ)। সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে মোঃ সেলিম রাজা (উড়োজাহাজ), মোঃ রশিদ উদ্দিন (টেবিল), মোঃ ফয়জুর রহমান (আম)। কোষাধ্যক্ষ পদে নূর মোহাম্মদ (হাতি), মোঃ মহব্বত আলী (কুদাল)। সাংগঠনিক সম্পাদক পদে আনোয়ার বক্স রানা (মোরগ), মোঃ উছমান খান (গোলাপ ফুল)। সমাজকল্যাণ সম্পাদক পদে হাফেজ শফিকুর রহমান (বাল্ব), মোহির উদ্দিন (রিক্সা)। ক্রীড়া সম্পাদক পদে মোঃ আব্দুল খালিক (মোটর সাইকেল), মোঃ রাফে আলী (ফুটবল)। আন্তর্জাতিক ও মহিলা বিষয়ক সম্পাদক পদে মোঃ আনোয়ার হোসেন রানা (মোবাইল), মোঃ ইউনুস আলী (চশমা), হামিদুর রহমান (মোমবাতি)। অফিস ও লাইব্রেরী সম্পাদক পদে মোঃ সাইফুর রহমান (গরুর গাড়ী) ও মোঃ শাহেজামান (কম্পিউটার)। নির্বাচনের কমিশন চেয়ারম্যান এর দায়িত্ব পালন করছেন হাজী আব্দুস সামাদ, সদস্য সচিব মোঃ আব্দুল খালেক, সদস্য মোঃ মুজিবুর রহমান, মোঃ রেজাউল করিম ও মোঃ হেলাল উদ্দিন। প্রিজাইটিং অফিসার হিসাবে থাকবেন কমলগঞ্জ উপজেলা সহকারি শিক্ষা কর্মকর্তা জয় কুমার হাজরা।

শমশেরনগরে এএটিএম বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে বার্ষিক মিলাদ অনুষ্টিত

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

Pic--Kamalgonj01
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর এএটিএম বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে বার্ষিক মিলাদ মাহফিল ও পুরস্কার বিতরনী অনুষ্টান বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে অনুষ্টিত হয়। বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি এবিএম আরিফুজ্জামান অপুর সভাপতিত্বে বার্ষিক অনুষ্টানে প্রধান অতিথি ছিলেন কমলগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মোঃ জুয়েল আহমেদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শামছুন নাহার পারভীন, শমশেরনগর বণিক কল্যাণ সমিতির সভাপতি মোঃ আব্দুল মালিক বাবুল প্রমুখ। আলোচনা শেষে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। মিলাদ ও দোয়া মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন এএটিএম বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মিহির ধর চৌধুরী, দাতা সদস্য ও স্কুল পরিচালনা কমিটির সদস্যবৃন্দসহ এলাকার বিভিন্ন পর্যায়ের লোকজন।

বামডো সাধারণ সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন হাজী মোঃ আব্দুল ওয়াহিদ

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

Wahid (1)
বাংলাদেশ মণিপুরী মুসলিম ডেভেলপমেন্ট (বামডো) এর কার্যকরী পরিষদের নির্বাচন আগামী ১৯ জানুয়ারি শুক্রবার কমলগঞ্জ উপজেলার আদমপুর রশিদ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক পদে বর্তমান সাধারণ সম্পাদক, তেতইগাঁও রশিদ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি, ভান্ডারীগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক (অব:) হাজী মোঃ আব্দুল ওয়াহিদ হরিণ মার্কা নিয়ে প্রার্থী হয়েছেন। তিনি কমলকুঁড়ি পত্রিকার সাথে একান্ত সাক্ষাতে মিলিত হন। নিম্নে তা তুলে ধরা হল:
কমলকুঁড়ি : নির্বাচনে কেন প্রার্থী হয়েছে ?
হাজী মোঃ আব্দুল ওয়াহিদ : প্রার্থী হওয়ার একমাত্র কারণ এ জাতি গোষ্ঠীকে কিভাবে আর অগ্রসর করা যায় এ মনোভাব নিয়ে।
কমলকুঁড়ি : পাশ হওয়ার ব্যাপারে কতভাগ আশাবাদী ?
ওয়াহিদ : শতভাগ ইনশাল্লাহ্ ।
কমলকুঁড়ি : আপনারা ৩জন প্রার্থী। কাকে প্রতিদ্বন্ধি মনে হয়?
ওয়াহিদ : ৩ জনই আমার প্রতিদ্বন্ধি। সাজ্জাদুল হক স্বপন একজন শিক্ষক মানুষ। সম্পর্কে আমার ভাগিনা। আমার চেয়ে শিক্ষায় যোগ্যতায় বেশি। তবে বয়সে আমার ছোট। অন্যদিকে হাবীব আলী সাবেক ইউপি সদস্য ছিলেন। তাই সকলই আমার প্রতিদ্বন্ধি। কাউকে আলাদা করে দেখার অবকাশ নেই।
কমলকুঁড়ি : শুনেছি, নির্বাচনকে সামনে রেখে টাকার ছড়াছড়ি এমনটা অভিযোগ রয়েছে। আপনার মতামত কি ?
ওয়াহিদ : এটি আমার জানা নেই। তবে অন্য প্রার্থী সম্পর্কেও আমার জানার প্রয়োজন মনে করি না।
কমলকুঁড়ি: নির্বাচিত হলে সমাজ উন্নয়নে আপনার ভূমিকা বলুন।
ওয়াহিদ : একটি জাতিকে সামনের দিকে অগ্রসর করতে শিক্ষার কোন বিকল্প নেই। প্রথমেই শিক্ষার জন্য কাজ করে যাব। কারণ আমি একজন শিক্ষক ছিলাম।  শিক্ষার গুরুত্ব সম্পর্কে আমি জানি। এছাড়া সমাজ উন্নয়নে যা যা করণীয় তা করে যাব।
কমলকুঁড়ি : সময় দেয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ
ওয়াহিদ : আপনাকেও ধন্যবাদ।

চিকিৎসা অবহেলায় রোগীর মৃত্যুর অভিযোগে কমলগঞ্জে পাত্রখোলা চা বাগানে অর্ধদিবস কর্মবিরতি পালিত

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

22555
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার মাধবপুর ইউনিয়নে ন্যাশনাল টি কোম্পানীর (এনটিসি) মালিকাধীন পাত্রখোলা চা বাগানে কম্পাউন্ডার ও ড্রেসারের অবহেলার কারনে রোগীর মৃত্যুর অভিযোগে চা বাগান শ্রমিকরা অর্ধদিবস কর্মবিরতি পালন করেছে। শ্রমিকদের দাবির প্রেক্ষিতে কর্তৃপক্ষ চা বাগানের ড্রেসারকে অপসারন ও কম্পাউন্ডারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাসে শ্রমিকরা কর্মবিরতি প্রত্যাহার করে। মঙ্গলবার সকাল ৮ টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত শ্রমিকরা এই কর্মবিরতি পালন করে।
পাত্রখোলা চা বাগানের শ্রমিক অভিনয় ভৌামক, অনিতা পাইনকা, পিন্টু পাইনকা, মজিদ মিয়া, ছোটবাবু ভৌামকসহ সাধারণ চা শ্রমিকরা জানান, পাত্রখোলা চা বাগানের অফিস পিয়ন মিন্টু পাইনকা (৪৫) শারীরিকভাবে অসুস্থ্যতাজনিত কারনে চা বাগান কর্তৃপক্ষ বাগানের হাসপাতালের কম্পাউন্ডার খোকন কূর্মী এর মাধ্যমে গত ১ জানুয়ারি মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে তিন দিন রাখার পর মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালের চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য সিলেট এম,এ,জি ওসমানী মেডিকেল কলেজে ভর্তির জন্য রেফার্ড করেন। তবে মিন্টু পানিকার চিকিৎসার দায়িত্বাধীন কম্পাউন্ডার খোকন কূর্মী ও ড্রেসার রনজিত পাল গাফিলতি করে তাৎক্ষনিক সিলেটে প্রেরণ না করে চা বাগানে ফেরত নিয়ে আসেন। চা বাগানে আনার পর তার শারীরিক অবস্থার অবনতির কারনে ৮দিন পর গত ১২ জানুয়ারী শুক্রবার বিকালে সিলেট এম,এ,জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করলে ঐ রাতেই সে মারা যায়।
পাত্রখোলা চা বাগান পঞ্চায়েত সভাপতি দেবাশীষ চক্রবর্তী শিপন কর্মবিরতির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, চা বাগানের কম্পাউন্ডার ও ড্রেসারের চিকিৎসা অবহেলার গাফিলতির কারনেই রোগী মারা গেছে। এ কারনেই মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে চা বাগানের সাধারণ শ্রমিকরা বাগানের প্রধান ফটকের সামনে বিক্ষোভ করে কর্মবিরতি পালন করে। তবে বাগানের ম্যানেজমেন্ট ড্রেসার রনজিত পালকে অপসারন ও কম্পাউন্ডার খোকন কূর্মীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাসে দুপুর ১২টার পর কর্মবিরতি প্রত্যাহার করে চা শ্রমিকরা কাজে যোগ দেয়।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে পাত্রখোলা চা বাগান ব্যবস্থাপক মো. শামসুল ইসলাম সেলিম বলেন, দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ্য মিন্টু পাইনকার চিকিৎসায় কোন ত্রুটি করা হয়নি। বাগানের কম্পাউন্ডারকে দায়িত্ব দিয়ে যথাসময়ে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরন করা হয়। পরে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে। তবে গাফিলতির কারনে বাগানের ড্রেসার ও কম্পাউন্ডারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।

কমলগঞ্জের দেওরাছড়া চা বাগানে চা শ্রমিক নিহত

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

10
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে চা শ্রমিকের হাতে অপর চা শ্রমিক নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার (১৪ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় ৭টায় উপজেলার ১নং রহিমপুর ইউনিয়নের দেওরাছড়া চা বাগানে।
স্থানীয় জানা যায়,  রোববার পৌষ সংক্রান্তি উপলক্ষে চা শ্রমকি বসতিগুলো পূজা র্অচনা হয়। প্রতিটি বাড়িতেই নানা ধরনের পিঠার আয়োজন করা হয়। অনকে চা শ্রমকি আবার নেশাগ্রস্ত হয়ে পড়ে। এমনিভাবে দেওরাছড়া  চা বাগানের বাজার লাইন এলাকার মৃত গঞ্জু উড়াং-এর ছেলে চা শ্রমকি মানিক লাল উড়াং (২৫)-এর ঘরে তার সাথী একই এলাকার মৃত তীর মুড় উড়াং-এর ছেলে চা শ্রমকি বাবুল উড়াং (২৪) এসে দুজনই নেশাগ্রস্ত অবস্থায় কথাকাটাকাটি হয়। নেশাগ্রস্থ অবস্থায় মানকি লাল উড়াং আর বাবুল উড়াং ধারালো দা দিয়ে একে অপরকে কুপাতে থাকে। কুপাকুপিতে উভয়ই আহত হন। পরে স্থানীয়রা তাদের মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মানিক লাল উরাং নিহত হন। বাবুল উরাং আশংকাজনক অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন। রাতে খবর পেয়ে কমলগঞ্জ থানা পুলিশ ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ইফতেখার আহমেদ বদরুল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।  স্থানীয় ইউপি সদস্য সিতাংশু কর্মকার জানান কোন কারণে একে অন্যকে কুপাতে থাকে তা বলা যাচ্ছে না। রাত ১০:২৫ মিনিটে কমলগঞ্জ থানার ওসি মোঃ মোকতাদির হোসেন ঘটনার ১জন নিহত আর অপর জন আহত বিষয়টি কমলকুঁড়িকে নিশ্চিত করেন।

পতনঊষারের সরিষতলায় শীতবস্ত্র বিতরণ

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

003 copy
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের পতনঊষার ইউনিয়নের সরিষতলায় শীতার্ত দরিদ্রদের মধ্যে শীতবস্ত্র (কম্বল) বিতরণ করা হয়েছে। রবিবার (১৪ জানুয়ারি) বিকালে স্থানীয় সরিষতলা উলামা পরিষদের আয়োজনে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রধান অতিথি হিসাবে শীতবস্ত্র বিতরণ করেন কমলগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মোঃ জুয়েল আহমেদ।
মাওঃ হোসাইন আহমদ কদরের সভাপতিত্বে ও মাও: মোস্তাফিজুর রহমানের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন পতনঊষার ইউপি চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার তওফিক আহমেদ বাবু, মাও: নুরুল মোক্তাকিন জুনাইদ, মাও: মুফতি মোশাহিদ কাসেমী, কমলকুঁড়ি পত্রিকার পিন্টু দেবনাথ, সাংবাদিক শাহীন আহমেদ, পৌর কাউন্সিলর দেওয়ান আব্দুর রহিম, ইউপি সদস্য সাজিদ আলী, লুৎফুর রহমান জাকারিয়া, মুফতি তালেব উদ্দিন, বিশিষ্ট সমাজসেবক ঈমান উদ্দিন ইমানী, লায়েক খান প্রমুখ। অনুষ্ঠানে ১১০ জন শীতার্তদের মধ্যে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়।

কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অত্যাধুনিক এ্যাম্বুলেন্স হস্তান্তর

001

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৭০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে বরাদ্দকৃত অত্যাধুনিক এ্যাম্বুলেন্সের চাবি আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করা হয়েছে। উন্নয়ন মেলা চলাকালে উপজেলা পরিষদ চত্বরে গত বৃহষ্পতিবার বিকেলে জাতীয় সংসদের সাবেক চিফ হুইপ উপাধ্যক্ষ মো: আব্দুস শহীদ এমপি কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: মো: ইয়াহিয়ার কাছে অত্যাধুনিক এ্যাম্বুলেন্সের চাবি হস্তান্তর করেন। এ সময় কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ মাহমুদুল হক, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এম, মোসাদ্দেক আহমেদ মানিক, কমলগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মো: জুয়েল আহমেদ, উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: টি এইচ নিশিতা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

কমলগঞ্জে মণিপুরী ললিতকলা একাডেমীতে ৭ মণিপুরী মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

904
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার শাধবপুর শিববাজারস্থ মণিপুরী ললিতকলা একাডেমীতে ৭ মণিপুরী বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে। মণিপুরী ললিতকলা একাডেমীর আয়োজনে শুক্রবার সন্ধ্যায় আনুষ্ঠানিকভাবে এই সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সদস্য, কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক মো: রফিকুর রহমান।
কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও মণিপুরী ললিতকলা একাডেমীর ভারপ্রাপ্ত পরিচালক মোহাম্মদ মাহমুদুল হকের সভাপতিত্বে ও গবেষণা কর্মকর্তা প্রভাস চন্দ্র সিংহের পরিচালনায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কমলগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো: মুকতাদির হোসেন পিপিএম, বাংলাদেশ মণিপুরী সমাজ কল্যাণ পরিষদের সভাপতি প্রতাপ কুমার সিংহ, লেখক ড. রনজিত সিংহ, লেখক-গবেষক আহমদ সিরাজ ও বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আনন্দ মোহন সিনহা, বীরেশ্বর সিংহ, মন্ত্রী কুমার সিংহ, বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনাহ স্কুল এন্ড কলেজের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক রাজকান্ত সিংহ, নির্মল কুমার সিংহ, সমরজিত সিংহ, নিখিল কুমার সিংহ, শ্যাম সিংহ প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে মণিপুরী ৭ বীর মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রী কুমার সিংহ, বীরেশ্বর সিংহ, আনন্দ মোহন সিংহ, নিমাই সিংহ, বাবু সেনা সিংহ, তৈয়বা সিংহ ও বিশ্বম্বর সিংহ-কে এই সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। সংবর্ধনা অনুষ্ঠান শেষে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানে মণিপুরী ললিতকলা একাডেমীর শিল্পীরা দেশাত্মবোধক গান ও শিশু শিল্পীরা নৃত্য পরিবেশন করেন।