সদ্য সংবাদ

বিভাগ: বিনোদন

সালমান শাহ খুন হয়েছেন দাবি রুবির (ভিডিও)

92520

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রয়াত চিত্রনায়ক সালমান শাহ খুন হয়েছেন বলে দাবি করে রাবেয়া সুলতানা রুবি নামের এক নারী ইউটিউবে ভিডিও ছেড়েছেন।  সালমানের সেই সময়কার প্রতিবেশী এবং তাঁর স্ত্রী সামিরার ঘনিষ্ঠ ছিলেন এই বিউটিশিয়ান রাবেয়া। সালমানকে হত্যার অভিযোগ ওঠার পর থেকেই এর সঙ্গে যুক্ত হিসেবে রাবেয়ার নাম আসে। আদালতে সালমানের মায়ের দায়ের করা হত্যার অভিযোগে আসামিদের তালিকায় আট নম্বরে ছিল রাবেয়ার নাম রয়েছে।  ঢাকাই চলচ্চিত্রের অন্যতম অভিনেতা শাহরিয়ার চৌধুরী ইমন বা সালমান শাহর ১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বরে অস্বাভাবিক মৃত্যু হয়। ঘটনার পর সালমানের বাবা একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করেন। সালমানের পরিবার শুরু থেকেই দাবি করে আসছে এটা হত্যা। ২১ বছর হতে চলেছে। কিন্তু এখনো এটা স্পষ্ট হয়নি যে তাঁকে হত্যা করা হয়েছে, না তিনি আত্মহত্যা করেছেন।  সালমানকে হত্যার দায় স্বীকার করে রেজভী আহমেদ ফরহাদ নামের এক তরুণ আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। ওই জবানবন্দির ভিত্তিতে সালমানের মা হত্যার অভিযোগে ১১ জনকে আসামি করে আদালতে নালিশি মামলা করেন। আসামিরা হলেন- সালমানের স্ত্রী সামিরা হক, শাশুড়ি লতিফা হক লুসি, ধনাঢ্য আজিজ মোহাম্মদ ভাই, রেজভী  আহমেদ ফরহাদ, চলচ্চিত্রের খল অভিনেতা আশরাফুল হক ডন, নজরুল শেখ, ডেভিড, রাবেয়া সুলতানা রুবি, মোস্তাক ওয়াইদ এবং সালমানের বাসার গৃহকর্মী আবুল হোসেন খান। সেই নালিশি মামলাটি অপমৃত্যুর মামলার সঙ্গে মিলিয়ে তদন্ত  করছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। সালমানকে হত্যার অভিযোগ স্বীকার করে রেজভী আহমেদ জবানবন্দিতে উল্লেখ করেন, ওই রাতে ডনের নেতৃত্বে সালমানের বাসায় গেলে নিচতলার একটি দরজা খুলে দিয়েছিলেন রুবি। তার ঘর থেকে আজিজ মোহাম্মদ ভাই বের হয়ে হত্যাকারীদের সঙ্গে যোগ দিয়েছিলেন।

রুবি ইস্কাটনে যে ভবনে সালমান থাকতেন তার সামনে মে ফেয়ার বলে একটি বিউটি পারলার চালাতেন। তার চীনা স্বামী রেস্তোরাঁ ব্যবসা করতেন। সম্প্রতি ইউটিউবে ছাড়া ভিডিওতে রুবি বলেছেন, সালমানকে খুন করা হয়েছে। তিনি বলেন, এই খুনের বিষয়ে আমি সব জানি। যেভাবেই হোক আবার যেন মামলা তদন্তের ব্যবস্থা করা হয়। আমি যেমন করেই হোক আদালতে সাক্ষী দেব। ভিডিওতে সালমানের মাকে উদ্দেশ করে তিনি বারবার বলেছেন, ‘ইমন আত্মহত্যা করে নাই, তাকে খুন করা হইছে। নীলা ভাবি প্লিজ কিছু একটা করেন, কিছু একটা করেন।…আমার হাজব্যান্ড এইটা করাইছে আমার ভাইরে দিয়ে।…সামিরার  ফ্যামিলি করাইছে…। আমার ছোট ভাই রুমিরে দিয়া খুন করানো হইছে। রুমিরেও খুন করা হইছে। আমি জানি না রুমির কবর কোথায় আছে। রুমির লাশ যদি কবর থেকে তুলে ঠিকমতো আবার পোস্টমর্টেম করে, তাহলে দেখা যাবে যে ওরা গলা  টিপে মাইরা ফেলছে।…ওরা আমারেও খুন করার চেষ্টা করছে। এই কেস যেন না শেষ হয়।’  এ বিষয়ে সালমান শাহর মা নিলুফার চৌধুরী বলেন, ‘তার এই বক্তব্যের পরে বলার আর কোনো অপেক্ষা রাখে না যে আমার ছেলেকে খুন করা হয়েছিল। আমি জানতাম এই দিনটা আমার আসবে। রুবি এখন যুক্তরাষ্ট্রের ফিলাডেলফিয়ায় আছে। তাকে নিরাপত্তা দিয়ে বাংলাদেশে ফিরিয়ে আনা হোক। আর রুবি যাদের নাম বলেছে তাদের এখনই গ্রেপ্তার করা হোক। তিনি  বলেন, ‘আমি বিচার চাই। এত বছর আমি হতাশায় ভুগছি। দেশে আমারও নিরাপত্তা নেই। যার কারণে আমি লন্ডনে আছি।’ সালমান শাহ হত্যার বিচার ও আসামিদের গ্রেপ্তারের দাবিতে ১৬ আগস্ট (বুধবার) প্রেসক্লাবের সামনে সমাবেশ কর্মসূচি পালন করা হবে বলে জানান নিলুফার চৌধুরী। সেদিনই তিনি পরবর্তী আরও কর্মসূচি ঘোষণা করবেন।

কাজল-অজয়ের সংসারে ফাটল

বিনোদন ডেস্ক
10

দীর্ঘ ১৮ বছরের  দাম্পত্য জীবন কাজল-অঝয়ের, রয়েছে দুই সন্তানও। দাম্পত্য জীবনে ছোট ছোট সমস্যা যে আসেনি তেমন নয়। তবে মোটের ওপর ভালোই চলছিল বলিউডের তারকা দম্পতির সংসার। এর প্রেক্ষিতে বলিউডের প্রথম সারির দম্পতিদের তালিকাতেও তাদের নাম ভাবা হতো। কিন্তু ইদানিং কাজল-অজয়ের মধ্যে বেশ কিছু বিষয় নিয়ে চরম অশান্তি হচ্ছে।

সম্প্রতি ডেকান ক্রনিকেলকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে কাজল বলেন, আমার সততার জন্য আমাকে অনেক দাম দিতে হয়। আর এ নিয়ে প্রায় রোজই অজয়ের সঙ্গে অশান্তি হয় আমার।  কাজল জানান, তিনি একেবারেই ডিপ্লোম্যাটিকভাবে কারও সঙ্গে মিশতে পারেন না। এমনকি কেউ তার সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করলেও পরে পার্টিতে দেখা হলে কাজল হেসে কথা বলেন। আর এতেই নাকি রেগে যান অজয়। বাড়িতে তার সঙ্গে অশান্তি চরমে পৌঁছায়!  কাজলের কথায়, আমি কোনো কিছু মনে রাখি না। কেউ মিথ্যা বললেনও তা ভুলে গিয়ে ভাল ব্যবহারের চেষ্টা করি। আর এতেই রেগে যায় অজয়।  সাংবাদিক মহলের প্রশ্ন, কাজল-অজয়ের মধ্যে এই সমস্যাগুলোই কি ভবিষ্যতে বড় আকার ধারণ করতে পারে? যদিও কাজল সে বিষয়ে ওই সাক্ষাত্কারে মুখ খোলোননি। তবে প্রশ্নটা বলিউড পাড়ায় ঘুরছে।

ইংল্যান্ডে সড়ক দুর্ঘটনায় তরুণী মডেলের মৃত্যু

moulvibazar-18-3

ডেস্ক রিপোর্ট

ইংল্যান্ডে এক সড়ক দুর্ঘটনায় স্কাই অলিভিয়া মিশেল নামে ১৮ বছর বয়সী এক উদীয়মান তরুণী মডেলের মৃত্যু হয়েছে। সম্প্রতি ইংল্যান্ডের বটলি গ্রামের কাছে গাড়ি দুর্ঘটনার কবলে পড়ে মডেল অলিভিয়ার মৃত্যু হয়।   টাইমস অব ইন্ডিয়া খবরে বলা হয়, মডেল অলিভিয়া ও তার বন্ধু ক্যাটলিন লডিয়া এবং স্থানীয় এক নারীকে নিয়ে প্রাইভেটকার চালিয়ে যাচ্ছিলেন ৫১ বছর বয়সী একচালক। আকস্মিকভাবে তাদের গাড়িটি একটি ভ্যানের সঙ্গে ধাক্কা লেগে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। এতে ঘটনাস্থলেই অলিভিয়া ও ক্যাটলিনার মৃত্যু হয়। গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন তাদের সফর সঙ্গী ওই নারী।
স্কাই অলিভিয়া মিশেল জুনিয়র মিস গ্রেট ব্রিটেন প্যাজেন্ট প্রতিযোগিতায় তৃতীয় অবস্থা দখল করেন। পরে ২০১৪ সালে জুনিয়র মিস নর্থ ওয়েস টাইটেল জয়ী হন। অলিভিয়া মিস সিম্বিয়া-২০১৭ প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন।

চিত্রনায়িকা চম্পা চিকুনগুনিয়ায় আক্রান্ত

pic-mbbb

বিনোদন ডেস্ক

চিত্রনায়িকা চম্পা ভাইরাসজনিত জ্বর চিকুনগুনিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন। চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী তিনি এখন চিকিৎসা নিচ্ছেন।  চম্পা বলেন, আমার শরীরের হাড়ে হাড়ে প্রথমে ব্যাথা করতে শুরু করে। এরপর মাথাব্যথা, চোখ জ্বালাপোড়া, বমিভাব, শারীরিক দুর্বলতাসহ বিভিন্ন উপসর্গ দেখা দিতে শুরু করে। এরপরই আমি চিকিৎসকের কাছে যাই।  সুস্থ হওয়ার পর ‘একটি সিনেমার গল্প’ ছবির শুটিং শুরু করবেন চম্পা। ছবিটি পরিচালনায় পাশাপাশি চম্পার বিপরীতে অভিনয় করবেন আলমগীর। চিত্রনায়িকা চম্পা ভাইরাসজনিত জ্বর চিকুনগুনিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন। চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী তিনি চিকিৎসা নিচ্ছেন। তাকে বিশ্রামে থাকতে বলা হয়েছে। চম্পা বলেন, আমার শরীরের হাড়ে হাড়ে প্রথমে ব্যাথা করতে শুরু করে। এরপর মাথাব্যথা, চোখ জ্বালাপোড়া, বমিভাব, শারীরিক দুর্বলতাসহ বিভিন্ন উপসর্গ দেখা দিতে শুরু করে। এরপরই আমি চিকিৎসকের কাছে যাই।   সুস্থ হওয়ার পর ‘একটি সিনেমার গল্প’ ছবির শুটিং শুরু করবেন চম্পা। ছবিটি পরিচালনায় পাশাপাশি চম্পার বিপরীতে অভিনয় করবেন আলমগীর।

ছবি মুক্তি নিয়ে সেন্সর বোর্ড প্রধানের সঙ্গে পরিচালকের ঝগড়া!

 

 pic-mbbb

বিনোদন ডেস্ক::

চলচ্চিত্রের জন্য সেন্সর বোর্ড খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি বিভাগ। কী প্রকাশ করা যাবে, কী যাবে না- এসব নির্ধারণ করে দেয় সেন্সর। কেবলমাত্র সেন্সরের ছাড়পত্র পেলে তবেই কোনো চলচ্চিত্র প্রযোজক বা পরিচালক ছবি মুক্তির অনুমতি পান।

কিন্তু প্রায় সময় দেখা যায় দক্ষিণ এশিয়ার চলচ্চিত্রে সেন্সর বোর্ড একটা অন্তরায় হিসেবে হাজির হয়। চলচ্চিত্রের কলাকুশলীদের সঙ্গে মতের পার্থক্য দেখা যায় সেন্সর বোর্ডের সঙ্গে। এ নিয়ে চলে তর্ক-বিতর্ক, সমালোচনাও। সপ্তাহ খানেক আগে বলিউড বাদশাহ শাহরুখ খানের একটি ছবিরন ট্রেলারে ‘ইন্টারকোর্স’ শব্দটি নিয়ে আপত্তি তোলে বোর্ড। কিন্তু শেষাবধি দর্শকের ভোটের সমর্থন পেয়ে শব্দটি বৈধতা পায়।

তবে এবার বলিউডের একটি ছবির মুক্তিকে কেন্দ্র করে সরাসরি ঝগড়ায় অবর্তীর্ন হলেন ছবির পরিচালক ও সেন্সর বোর্ডের প্রধান। ভারতীয় গণমাধ্যমে ফলাও করে খবরটি প্রকাশ হয়েছে।

বলিউডের দর্শকদের জন্য নির্মিত হয়েছে নারীকেন্দ্রিক একটি ছবি ‘লিপস্টিক আন্ডার মাই বোরকা’। পরিচালক অলঙ্কৃতা শ্রীবাস্তব। প্রচারণা চালাচ্ছেন অনেকদিন ধরেই। প্রকাশ করেছেন ছবির ট্রেলারও। আর মাত্র দিন পনেরোর অপেক্ষা। সবকিছু ঠিক থাকলে চলতি মাসের ২১ জুলাই এটি প্রেক্ষাগৃহে আসবে।

কিন্তু তার আগে সেন্সর বোর্ডের সঙ্গে ঝামেলায় জড়িয়ে গেল ছবিটি। সম্প্রতি ‘লিপস্টিক আন্ডার মাই বোরকা’র পরিচালক অলঙ্কৃতা শ্রীবাস্তবকে ‘মিথ্যেবাদী’ এবং ‘মনোযোগ আকর্ষণকারী’ বললেন বোর্ড প্রধান পহেলাজ নিহালনি।

কয়েকদিন আগেই ভারতীয় গণমাধ্যম ‘মিড-ডে’-কে অলঙ্কৃতা জানিয়েছিলেন, ‌‘সেন্সর বোর্ডের রিভাইসিং কমিটির সদস্যরা তার সঙ্গে বিরূপ আচরণ করেছেন। বোর্ডের আচরণে তার মনে হয়, তিনি এক জন ‘ক্রিমিনাল’!’

সেন্সর বোর্ডের বিরুদ্ধে এই অভিযোগের পরই মুখ খোলেন পহেলাজ নিহালনি। সম্প্রতি ‘হিন্দুস্তান টাইমস’-কে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে অলঙ্কৃতার সব অভিযোগ উড়িয়ে তিনি বলেছেন, ‘এসব ছবির প্রতি দর্শকদের আকর্ষণ তৈরির ছক মাত্র। ফ্রি পাবলিসিটি। সেন্সর বোর্ডের আপত্তির ঘটনা ছাড়া ছবির প্রচার করার আর কিছু নেই পরিচালকের হাতে? কেন তিনি বাজেভাবে ছবির প্রচারণায় নেমেছেন? অলঙ্কৃতা মিথ্যেবাদী। তার সঙ্গে কোনো দুর্ব্যবহার করা হয়নি। আমার স্পষ্ট মনে আছে, আমি তাকে বসতে বলেছিলাম। উল্টে তিনিই কোনও উত্তর দেননি।’

পহেলাজ নিহালনির দাবি, ‘অলঙ্কৃতা শ্রীবাস্তবের সঙ্গে সেদিন তার কথাও হয়েছিল। এ বিষয়ে নিহালনি ‘হিন্দুস্তান টাইমস’-কে বলেছেন, ‘অলঙ্কৃতার সঙ্গে টু-দ্য-পয়েন্ট কথা হয়েছিল। এতে ক্রিমিনাল মনে হওয়ার কী আছে? আমি বুঝতে পারছি না।’

এ বছরের জানুয়ারি মাসেই মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল ছবিটির। কিন্তু, নিহালনির আপত্তিতে তা হয়ে ওঠেনি। তার যুক্তি ছিল, ‘ছবিটি খুব বেশি রকমের নারীকেন্দ্রিক। শুধু তাই নয়, দেশের নির্দিষ্ট একটি সম্প্রদায়ভুক্ত মানুষের অনুভূতিতেও তা আঘাত করতে পারে। বাস্তবতাকে ছাপিয়ে পুরো সিনেমাটি কল্পনা নির্ভর। ছবিটিতে অসংখ্য যৌন দৃশ্য, অশালীন সংলাপ, অডিও পর্নোগ্রাফিসহ সমাজের একটি নির্দিষ্ট অংশের প্রতি স্পর্শকাতর দৃষ্টিভঙ্গি আছে-যা নীতিমালা বহির্ভূত। এ কারণে ছবিটি প্রদর্শনে ছাড়পত্র দেওয়া হয়নি।’

তাই তিনি পরিচালককে ছবিটিতে কিছু পরিবর্তন আনতে অনুরোধ করেন। এ নিয়েই সেন্সর বোর্ড ও বোর্ড প্রধানের সঙ্গে ক্ষেপে যান পরিচালক। তার দাবি, সেন্সর বোর্ডের এভাবে ছবিতে কাঁচি চালানো উচিত নয়। নির্মাতাকে নির্মাণের স্বাধীনতা দেয়া উচিত। কোনটা দেখা যাবে আর কোনটা দেখা যাবে না সেই বিবেচনা দর্শকের উপর থাকা উচিত।

প্রথম ট্রেলারে ছিল, একটি মেয়ের মহিলা হয়ে উঠতে চাওয়ার কাহিনি। কিন্তু মাঝ বয়সে স্বামীর মৃত্যুর পর মনের সায় থাকলেও আরও একবার প্রেম করার অনুমতি সমাজ তাকে দেয়নি। সেই অতৃপ্ত হৃদয়ে বোরখার ভিতর দিয়ে তিনি বারবার দেখতেন ‘লিপিস্টিকওয়ালি ড্রিম’। হাঁটুর বয়সী বয়ফ্রেন্ডের সঙ্গে নিজেকে ভাসিয়ে দিতেন সুইমিং পুলে। ‘উড়তা পঞ্জাব’-এ কাঁচি চালানোর পর এই ছবির গল্প পুরো অবাস্তব বলে নাক সিঁটকেছিলেন সেন্সর বোর্ড চেয়ারম্যান।

তবে হাল ছাড়েননি ছবির পরিচালক অলংঙ্কৃতা শ্রীবাস্তব এবং ছবির প্রযোজক প্রকাশ ঝা। পাল্টা আবেদন জানিয়েছিলেন ফিল্ম সার্টিফিকেশন অ্যাপিলেট ট্রাইবুনালে (এফসিএটি)। অবশেষে সেখান থেকেই জুনের শেষ সপ্তাহে মিলেছে ছাড়পত্র। আগামী ২১ জুলাই মুক্তি পাচ্ছে ছবিটি। এতে অভিনয় করেছেন বলিউড অভিনেত্রী কঙ্কনা সেন শর্মা, রত্না পাঠক শাহসহ আরও অনেকেই।

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রাপ্ত শ্রেষ্ঠ গীতিকার আমিরুলের স্বপ্ন ছোঁয়ার গল্প

20170621_162923

নজরুল ইসলাম তোফাঃ

সংস্কৃতির শিকড়ের খোঁজে শিল্পখাত মানুষের প্রান কাঁদে। তাঁরা বলে থাকেন, ভালো অর্জনের পিছনে রয়েছে শিকড়ের সন্ধান। প্রানের মাঝে আদি সংস্কৃতির মিলন ঘটিয়ে অমশ্রিণ দূর্গম পথ পাড়ি দিয়ে গৌরবোজ্জ্বল দিনের সাফল্য কামনা করেন। জ্ঞানি গুনি মনিষীদের মতে, শিকড় সংস্কৃতি শিল্প চৈতন্য বোধের মানুষদের অনেক কাজে দেয়। তাই শিকড়ের সংস্কৃতিকে অশিকার করলে চরম ভুল করবে মানুষ। এমনি একজন সুদক্ষ শিকড় সংস্কৃতি মানুষ, যাঁর কৃতিত্ব পূর্ত অর্জন সত্যিই আমাদেরকে ভাবায়। তিনি স্বদেশের মাটির গানের পাশাপাশি অনেক বাউল গানের স্বাদ সত্যিই অতুলনীয়। তিনি সবার প্রিয় সংগীত শিল্পী ও অভিনেতা আমিরুল ইসলাম।

শিশু অভিনয় শিল্পী হিসেবে চৌরহাস মুকুল সংঘ স্কুল থিয়েটারে গান গাওয়া সহ অভিনয় জগতে তাঁর যাত্রা শুরু। তার পরপরই রাসেল স্মৃতি সংসদ, নুপুর, বোধন,পরিমল থিয়েটার সহ কুষ্টিয়ার সবগুলো থিয়েটারেই কমবেশি সংগীত শিল্পী ও নাট্যশিল্পী হিসেবে বহুত গুনে গুনান্নিত্ব ব্যক্তি তিনি।তাঁর জীবনের সেই সমান গতির সাথে লালনের গান, যা একেবারে লালন মাজার কেন্দ্রিক। আসলে এমন গুনি অভিনেতার বাউল গানের চর্চা কেনই বা সাফল্য আনবে না। এমন অভিনেতা, গীতিকার এবং বিভিন্ন গানের সুরকার ও গায়ক কেনই বা জীবনের অর্জিত স্বাদ আস্বাদন করবেন না। নানা গুণের এমন পরিপূর্ণ ব্যক্তি অবশেষে পেলেন জাতীয় স্বীকৃতি। ‘বাপজানের বায়োস্কোপ’ নামক চলচ্চিত্রে গীতিকার, গায়ক ও অভিনেতা হিসেবে অবদান রাখার পাশাপাশি শিল্প নির্দেশনা সহ প্রয়োজনীয় কসটিউমের কাজও করেছেন তিনি। ‘উথাল পাথাল জোয়ার ভাটা’ নামক গানটির জন্য তিনি পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার-২০১৫। এমন গৌরবোজ্জ্বল অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ এ বছর শ্রেষ্ঠ গীতিকার হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পাবেন।

তিনি নজরুল ইসলাম তোফাকে বলেন, এদেশের সংস্কৃতির গভীরে শিকড়ের সংস্কৃতি ছড়িয়ে রয়েছে লোকগানে। শুধু বাংলার মানুষের জীবনধারাই নয়, বরং তাতে বিভিন্ন ধর্মের প্রার্থনাও রয়েছে। তিনি মানুষের বৈচিত্র্যময় জীবন যাপনে লোকসঙ্গীতে জড়িয়ে আছে নিবিড়ভাবে। তাই মাটি, মানুষ আর তাদের অন্তরের কথা নিয়ে গান ও অভিনয় করে থাকেন, সেই গান ও অভিনয়ের টানে ছুটে বেড়ান। তিনি বলেন, নিজেকে চেনা এবং সংস্কৃতিকে বাংলার জনগণকে চিনিয়ে দেবার জন্যই সর্বদা ব্যকুল।

লোকসঙ্গীতের অবারিত রত্নভাণ্ডার সেই শিশু কালেই যোগ দিয়েছিলেন নিজ শহর কুষ্টিয়ার একটি থিয়েটারে। এরপর দীর্ঘ পথপরিক্রমায় কুষ্টিয়া ও ঢাকা মিলিয়ে কাজ করেছেন প্রায় ২০/৩০টি থিয়েটারে। একাধারে অবদান রেখেছেন টেলিভিশনেও। তাঁর অভিনীত চলচ্চিত্রগুলোর মধ্যে উন্নতম হলো- হেলেনের চোখে বাংলাদেশ, প্রিন্স অব বেঙ্গল, লালন, কান্না, বাপজানের বায়োস্কোপ ও সোনাদ্বীপ ।

মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের ছেলে আমিরুল ছোট বেলাতেই হারিয়েছেন বাবাকে। কিন্তু সেই অভাব বুঝতে দেননি বাবার মতো বড় ভাই কুষ্টিয়া জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সহ-সভাপতি সাইদুর রহমান। উনাকে বড় অনুপ্রেরণা হিসেবে দেখেন আমিরুল ইসলাম। তবে আরো কিছু মানুষকেও বেশ গুরুত্বের সঙ্গে অবদান দিয়েছেন। মায়ের অনুপ্রেরণার পাশাপাশি মায়ের মতো বড় ভাবীকেও স্মরণ করেন তিনি। জানালেন, ভাবী পারুল আক্তারই ছিল তাঁর সকল আবদার রক্ষার বড় আশ্রয়স্থল। শত আবদার মুখ বুঝে মিটিয়েছেন পারুল আক্তার। ছোট ছোট অপরাধ গুলোকে লুকিয়েছেন নিজের আঁচলে। আর জীবন সঙ্গী সেলিনা আক্তারকে কৃতজ্ঞতা জানানোর ভাষা হারানো আমিরুল ইসলাম বললেন, তার সহযোগিতা ছাড়া এসব হয়তবা কিছুই সম্ভব ছিলনা। এছাড়াও এই পুরস্কার প্রাপ্তির ক্ষেত্রে তিনি বিশেষ কৃতজ্ঞতা জানান প্রয়াত প্রখ্যাত নাট্যকার মরহুম জিন্না হক, একমাত্র সন্তান আর্য্য দিগন্তকে।

দীর্ঘ সাধনার ফসল ঘরে তুলতে পেরে আনন্দে উদ্বেলিত আমিরুল ইসলাম বললেন, এই পুরস্কার আমাকে আজীবন কাজ করে যাওয়ার অনুপ্রেরণা জোগাবে, পথ দেখাবে। আজ আমাকে যে সম্মানে ভূষিত করা হয়েছে, তার ঋণ কতটুকু শোধ করতে পারবো জানিনা। তবে বাঙালির শিল্প-সংস্কৃতির ঝাণ্ডা সমুন্নত রাখতে চেষ্টা করবো। তিনি বলেন, আমি আমার এই প্রাপ্তি উৎসর্গ করছি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ সকল শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের।

২০০১ সালে সেন্টার ফর এশিয়ান থিয়েটারে কাজের সুযোগ পেয়ে পাড়ি জমান রাজধানী ঢাকায়। কাজ করার সুযোগ পান শহীদুল আলম সাচ্চুর ‘থিয়েটার সেন্টারে’। এর কিছুদিন পরেই প্রশিক্ষক হিসেবে যোগ দেন রিসোর্স বাংলাদেশ থিয়েটারে। ২০০৭ সালে প্রখ্যাত নাট্যকার মাসুম রেজা ও শামসুল আলম বকুল প্রতিষ্ঠিত দেশ নাটকে অভিনেতা হিসেবে কাজ শুরু করেন।

তার রচিত টেলিভিশন নাটক গুলোর মধ্যে অন্যতম (ধারাবাহিক) লালন কয় যেতে পারি, নীলচন্দ্র, স্বচ্ছ স্বরবর, অবোধ, আলাল দুলাল, বিষাক্ত বিষাদ, ময়ূর চিত্ত, অবগুণ্ঠিত চাঁদ। একক ও টেলিফিল্ম: ভাটির কলমী, বায়ুবীয় ভালবাসা, কালোপদ্ম, বিষচোখ, কালোপদ্ম, নিন্দার কাটা, রংমাখামুখ ও ভুজঙ্গনা। মঞ্চ নাটক রচনা: বেড়া, ত্রিবেণী, কমলা পুরের ককিলারা, পদ্ম গোখরা ও পরমানুষ।

গুনি অভিনেতা আমিরুল ইসলাম টিভি নাটকে অনেক সাফল্য দেখিয়ে আসছেন। সে সব নাটক গুলো যেমন, কোন সীমানায় মুক্তি, আরশি নগর, তেভাগা, তের কাহন, ইট কাঠের খাঁচা, নীল নির্জনে, চৌদ্দ ফ্রেম, বারোটা বেজে পাঁচ, একটি সাধারণ প্রেমের গল্প, ঘরে ফেরা ও নূরজাহান অন্যতম।

তিনি নাট্য নির্দেশনা দিয়ে অনেক সফল হয়েছিলেন। তাঁর পারদর্শিতার অজস্র ভান্ডারে ছিল বেশ কিছু নাটক যেমন: ত্রিবেনী, ডোমরু, তোতা কাহিনী, কমলাপুরের ককিলারা, পদ্ম গোখরা পরমানুষ, পাল্লায় ফের এর মতো অসংখ্য নাটকের নির্দেশনা দিয়েছেন বেশ শক্ত হাতে। আবার মঞ্চ নাটকে চমৎকার অভিনয় দেখিয়ে দর্শক নন্দিত হয়েছেন বারবার। অন্যতম নাটক গুলোর মধ্যে যেমন, ভক্ত, বাঘাল, দর্পণে শরৎ শশী, বিরসা কাব্য,জনমে জন্মান্তর, সোনাবিবির শাড়ি,একটি পয়সা, প্রাকৃত পুরাঙ্গণা, এবার ধরা দাও,উনিশ শ একাত্তর ও বেড়া অন্যতম।

নজরুল ইসলাম তোফাকে দেয়া তাঁর জীবনে একান্ত সাক্ষাৎকারে বলেন, শিল্পী জীবনের নানা চড়াই উৎরাইয়ের গল্প আছে, স্বল্প পরিসরে শেষ হবার নয়। তিনি জানালেন, যত দিন বাঁচবেন মাটি ও মানুষ নিয়ে কাজ করবেন। এমনই আশা নিয়ে দেশ বিদেশে পৌঁছিয়ে দিতে চান শিকড়ের সংস্কৃতি। গানের সুরে বললেন,…”আসিও আসিও বন্ধু
বন্ধু আসিও স্বদেশে
এগো মন বাঁধিব পণ করিব
রাখিব মনদেশে
বন্ধু আসিও স্বদেশে….

‘দ্য মহাভারত’ ছবিটি দেখার অপেক্ষায় রয়েছেন নরেন্দ্র মোদী

বিনোদন ডেস্ক

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী অধীর আগ্রহে অপেক্ষায় রয়েছেন এই ছবিটির জন্য। কবে মুক্তি পাবে ছবিটি তা জানার জন্য ইতিমধ্যেই ছবির প্রযোজকের সঙ্গে মোদী যোগাযোগও করেছেন বলে জানা যায়।কী সেই ছবি যার জন্য অপেক্ষা করছেন খোদ প্রধানমন্ত্রী? সেটি হল মালয়ালি সুপারস্টার মোহনলালের ড্রিম প্রজেক্ট ‘দ্য মহাভারত’। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এই ছবির প্রযোজক বি আর শেট্টিকে একটি চিঠি লিখেছেন বলেও জানা গিয়েছে। যেখানে এই ছবি তৈরিতে শেট্টিকে পূর্ণ সাহায্যের আশ্বাসও দিয়েছেন তিনি।
9
জানা গিয়েছে, এই ছবির প্রযোজনা সংস্থা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করার অনুমতি চেয়েছিলেন। প্রধানমন্ত্রীর দফতর সেই চিঠির উত্তরে দেখা করার সম্মতি দিয়ে সাহায্যের আশ্বাস দেয়। বিশ্বের বিভিন্ন ভাষায় নির্মিত হবে ‘দ্য মহাভারত’।
ভারতীয় সিনেমার ইতিহাসে এটিই সবচেয়ে বড় বাজেটের ছবি হতে যাচ্ছে। আরব আমিরশাহির ভারতীয় ব্যবসায়ী বি আর শেট্টি ‘দ্য মহাভারত’ তৈরির জন্য প্রায় হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করতে চলেছেন। পরিচালক ভি এ শ্রীকুমার মেননের নির্দেশনায় এই ছবি তৈরি হবে দু’টি পর্বে। ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হবে শুটিং। ছবির প্রথম ভাগটি ২০২০ সালে মুক্তির পরিকল্পনা রয়েছে। দ্বিতীয় ভাগটি তার ৯০ দিন পর। প্রযোজক জানিয়েছেন, এই ছবিতে বহু নামজাদা ভারতীয় এবং বিদেশি অভিনেতা-অভিনেত্রীকেও দেখা যাবে।
যে ছবিটি দেখার অপেক্ষায় রয়েছেন নরেন্দ্র মোদী
শোনা যাচ্ছে, এই ছবিতে মালয়ালি সুপারস্টার মোহনলালকে ভীমের চরিত্রে দেখা যাবে। তিনিই এই ছবি তৈরি করা নিয়ে প্রথম পর্যায়ে এগিয়ে এসেছিলেন। ইতিমধ্যেই কমল হাসন এবং অমিতাভ বচ্চনের সঙ্গেও কথা হয়েছে বলে খবর। তবে তাঁরা এই ছবিতে অভিনয় করতে রাজি হয়েছেন কিনা তা এখনও জানা যায়নি।

আবার এক পর্দায় প্রভাস ও অনুষ্কা

পূর্ণিমার নতুন নাটক “মিসেস কুক”

বিনোদন রিপোর্ট
40
“মিসেস কুক” শিরোনামের নতুন একটি খণ্ড নাটকে কাজ করছেন পূর্ণিমা। শ্রাবণী ফেরদৌসের রচনা ও শুভ্র খানের পরিচালনায় এর শুটিং শুরু হয়েছে উত্তরার একটি শুটিং হাউসে।
পূূর্ণিমা বলেন, নাটকটিতে আমার বিপরীতে কাজ করছেন নাসিম ও ইমন। গল্পটি বেশ সুন্দর। আশা করি নাটকটি ঈদে দর্শক উপভোগ করবেন।
“মিসেস কুক” এর আগে রায়হান খানের রচনা ও নির্দেশনায় “যখন সময় থমকে দাঁড়ায়” নাটকে অভিনয় করেন পূর্ণিমা। এ নাটকটিও ঈদে প্রচারিত হবে।
ঈদ উপলক্ষে চয়নিকা চৌধুরীর “তালপাতার পাখা” নাটকেও অভিনয় করবেন পূর্ণিমা ।

বাহুবলীর জন্য ৬০০০ বিয়ের প্রস্তাব!

বিনোদন ডেস্ক::

70 নির্মাতা এস এস রাজমৌলির ‘বাহুবলী’ ছবির কল্যাণে দক্ষিণ ভারতের নায়ক প্রভাস এই মুহূর্তে ভারতের সবচেয়ে বড় তারকা। এই অবিবাহিত তারকার খ্যাতি এখন এতটাই যে তার জন্য লাইন ধরে বিয়ের প্রস্তাব আসছে।

আর হবেই বা না কেন, প্রভাসই তো এখন ভারতের ‘মোস্ট এলিজিবল ব্যাচেলর’। ইতিমধ্যে ৬০০০টি বিয়ের প্রস্তাব পেয়েছেন প্রভাস। বিশেষকরে বাহুবলী সিনেমার শ্যুটিংয়ের দিনগুলো থেকেই এই প্রস্তাব আসতে শুরু করে। গত পাঁচ বছরের মধ্যে। ‘বাহুবলী : দ্য বিগিনিং’ ও ‘বাহুবলী ২ : দ্য কনক্লুশন’ ছবিগুলোর শুটিংয়ের মধ্যে এসব প্রস্তাব পেয়েছেন প্রভাস।

কিন্তু প্রভাস সব প্রস্তাবই ফিরিয়ে দিয়েছেন। তাঁর মুখে এক কথা—‘বাহুবলী’ শেষ না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে নয়। ৩৭ বছর বয়সী প্রভাস কার প্রস্তাবে রাজি হন সেটাই দেখার বিষয়! টাইমস অব ইন্ডিয়া।