সদ্য সংবাদ

বিভাগ: জাতীয়

কমলগঞ্জে উদ্ধার হওয়া ৪ কেজি ওজনের গুইসাপ লাউয়াছড়ায় অবমুক্ত

Pic---Guisap01
কমলকুঁড়ি রিপোর্ট ॥
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ পৌরসভার শ্রীনাথপুর গ্রামের আলতা মিয়ার বাড়ি থেকে ৪ কেজি ওজনের উদ্ধার হওয়া গুইসাপ লাউয়াছড়ায় ছেড়ে দেয়া হয়েছে। সোমবার বিকেল সাড়ে ৫টায় লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের বাঘামারা লেকে গুইসাপটি অবমুক্ত করেন উপজেলা নির্বাহী কমকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম মিঞা। বিশাল দেহের এই গুইসাপটি দেখতে শ্রীনাথপুর এলাকায় উৎসুক লোকজন ভিড় করেন।
জানা যায়, কমলগঞ্জ পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের শ্রীনাথপুর গ্রামের আলমাছ উদ্দিন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা পারভীন সুলতানার বাড়ি থেকে একই গ্রামের আলতা মিয়া প্রায় ৪ ফুট দৈর্ঘ্যরে ও ৪ কেজি ওজনের একটি বড় আকারের গুইসাপ ধরে নিজের নিয়ন্ত্রণে রেখে দেন। এ ঘটনার খবর পেয়ে বিকাল চার ঘটিকায় কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম মিঞা ও লাউয়াছড়া বনবিট কর্মকর্তা (বন্যপ্রাণী) মনিরুল ইসলাম আলতা মিয়ার নিয়ন্ত্রণ থেকে ধৃত গুই সাপটি উদ্ধার করেন। পরে মাছের জ্বালে করে এনে বিকাল সাড়ে ৫টায় কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম মিঞা এই গুইসাপটি লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের বাঘমারা লেকে অবমুক্ত করেন। এ সময় উপজেলা মৎস্য অফিসার, লাউয়াছড়া বনবিট কর্মকর্তা (বন্যপ্রাণী) মনিরুল ইসলাম, সাংবাদিক প্রনীত রঞ্জন দেবনাথ, উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সি/এ মৃনাল কান্তি দাস প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম মিঞা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ধৃত গুইসাপটি নিয়ে শ্রীনাথপুর গ্রামে রীতিমত বড় ধরনের লোক জমায়েত হয়েছিল সেটিকে দেখার জন্য। আবার সুযোগ সন্ধানী প্রতারকরাও ধৃত গুই সাপটি পাচার করার পাঁয়তারা করছিল। তাই তিনি সরেজমিন গিয়ে বনবিট কর্মকর্তার কাছে সেটিকে হস্তান্তর করে বিকালে লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের বাঘমারা ষ্টুডেন্ট ডরমেটরী সংলগ্ন লেকে অবমুক্ত করেন।
লাউয়াছড়া বনবিট কর্মকর্তা (বন্যপ্রাণী) মনিরুল ইসলাম জানান, উদ্ধার হওয়া গুইসাপটির দৈর্ঘ্য প্রায় ৪ ফুট ও ওজন ৪ কেজি হবে বলে জানান। এটি জলাশয় থেকে এসেছে।

কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সংরক্ষিত মহিলা সদস্য নির্বাচন ১৫ জুন ।। ৪ জনের মনোনয়ন পত্র দাখিল

Pic--Kamalgonj Election

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট ।।
নির্বাচন কমিশন ঘোষিত মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সংরক্ষিত মহিলা সদস্য নির্বাচনের মনোনয়ন পত্র দাখিলের সময় শেষ দিন বৃহস্পতিবার মহিলা সদস্য পদে মোট ৫ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এরা হলেন ১নং সংরক্ষিত আসনে নুরজাহান ইসলাম (পতনঊষার ইউপি মহিলা সদস্যা), মেরী রাল্ফ (শমশেরনগর ইউপি মহিলা সদস্যা), ২নং সংরক্ষিত আসনে মোছাঃ আরফা আক্তার (কমলগঞ্জ পৌরসভার মহিলা কাউন্সিলর) ও ৩নং সংরক্ষিত আসনে রাবিয়া বেগম (আদমপুর ইউপি মহিলা সদস্যা)। এই নির্বাচনের ভোট গ্রহন হবে আগামী ১৫ জুন।
কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সংরক্ষিত মহিলা আসনে ৩ জন মহিলা সংরক্ষিত সদস্য নির্বাচিত হবেন। ৯টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভার ৩০ জন মহিলা ইউপি সদস্য/ পৌরসভার মহিলা কাউন্সিলরা ভোট দিয়ে নারী সদস্য নির্বাচন করবেন। বৃহস্পতিবার মনোনয়ন জমাদানের শেষ দিনে কমলগঞ্জে সহকারী রিটানিং অফিসারের কাছে নুরজাহান ইসলাম, মোছা: আরফা আক্তার ও রাবিয়া বেগম এবং মৌলভীবাজারে রিটার্নিং অফিসারের কাছে মেরী রাল্ফ মনোনয়নপত্র জমা দেন। আগামী ২৩ মে শনিবার সকাল সাড়ে ১১টায় মৌলভীবাজার জেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটানিং অফিসারের কার্যালয়ে কমলগঞ্জ উপজেলার পরিষদের সংরক্ষিত আসনের মহিলা সদস্যদের দাখিলকৃত মনোনয়নপত্র বাছাই করা হবে।
উল্লেখ্য যে, বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন সারা দেশে ৪৬০টি উপজেলা পরিষদ এর সংরক্ষিত মহিলা সদস্য নির্বাচনে তফসিল ঘোষনা করেছে। জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা রিটানিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তাকে সহকারী রিটারিং কর্মকর্তা নিয়োগ দিয়েছে। তার অংশ হিসাবে কমলগঞ্জ উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভাকে জনসংখ্যা অনুপাতে ভাগ করে ৩টি সংরক্ষিত আসন করা হয়েছে। এতে মোট ৩ জন মহিলা সদস্য নির্বাচিত হবেন।

কমলগঞ্জে প্রচন্ড তাপদাহে জনজীবন বিপর্যস্ত

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট ।।
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে প্রচন্ড তাপদাহে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। স্বাভাবিক কাজকর্ম করতে পারছেন না কেউই। দিনের বেলা রোদ্রের তেজের কারণে জরুরী কাজ ছাড়া বাসাবাড়ি থেকে কেউ বাইরে যাচ্ছেনা। যার ফলে সারা দিন রাস্তাঘাট ও স্কুল এবং অফিসপাড়া প্রায় ফাঁকা ছিল। অফিসগামী মানুষ, শ্রমিক, স্কুলগামী শিক্ষার্থী এবং অল্প বয়সের শিশু ও বৃদ্ধরা গরম ও তীব্র তাপদাহে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। শ্রীমঙ্গল আবহাওয়া অফিসের সহকারী অবজারবেশন অফিসার জাহিদুর ইসলাম মাসুম জানান, বৃহস্পতিবার বিকাল ৫টা পর্যন্ত কমলগঞ্জ ও শ্রীমঙ্গলে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৫.০ ডিগ্রি সেলিসিয়াস। এদিকে, প্রচন্ড তাপদাহে কমলগঞ্জে বিভিন্ন ব্যস্ততম এলাকায় ও ফুটপাতে পানীয় দোকান গুলোতে বিক্রি কয়েকগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। বেড়েছে তরমুজ, ডাব, লেবুর শরবতের কদর। তরমুজ ও ডাবের দোকানগুলোতেও দেখা গেছে ক্রেতাদের ভিড়। দিনভর প্রচন্ডরোদ্রতাপ ও অসহনীয় গরমে  প্রতিটি দোকানে নানা মূল্যের অভিজাত শ্রেণীর বাহারি আইসক্রীম সহ ঠান্ডা পানীয় বিক্রির ধুম পড়ে। একটুখানি স্বস্তি পেতে যে যার সাধ্যমতো মূল্য দিয়ে ঠান্ডপানীয় পান করেছেন।

এনআইডি সেবা ৪দিন বন্ধ থাকবে

timthumb.php

কমলকুঁড়ি ডেস্ক ।।

আগামীকাল ২২ মে শুক্রবার থেকে ২৫ মে সোমবার পর্যন্ত মোট ৪ দিন বন্ধ থাকবে জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) সংক্রান্ত সকল সেবা। এ সময় এনআইডি আপগ্রেডেশনের কাজ চলবে বলে জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগ থেকে আজ জানানো হয়েছে। জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এনআইডি সিস্টেম আপগ্রেডেশন তথা কমিশনের ডাটা সেন্টারের সমুদয় ডাটা ডিআরএস ডাটা বেইজে অবিকল কপি করার লক্ষ্যে আগামী ২২ থেকে ২৫ মে পর্যন্ত জাতীয় পরিচয়পত্র সংক্রান্ত সকল প্রকার আবেদন গ্রহণ ও সেবা প্রদান কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। আগামী ২৬ মে থেকে উক্ত কার্যক্রম নিয়মিতভাবে চলবে। বিজ্ঞপ্তিতে সাময়িক অসুবিধার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করেছেন।
সারাদেশে সার্ভার স্টেশনগুলো চালু ও স্মার্ট কার্ড বিতরণের আগে জাতীয় পরিচয়পত্রের সব ধরণের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এ আপগ্রেডেশন করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। সেই সঙ্গে একাধিক সার্ভারে জাতীয় পরিচয়পত্রের তথ্য সংরক্ষণ করা হচ্ছে। অন্যদিকে নির্বাচন কমিশন নাগরিকদের হাতে স্মার্ট কার্ড দিতে ভোটারদের অনলাইনে তথ্য সংশোধনের দেয়া সুযোগ চলমান রয়েছে। এ চারদিন তা বন্ধ থাকবে।
ইসি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, জাতীয় পরিচয়পত্রের সকল ভুল-ভ্রান্তি সংশোধন শেষে শিগগির স্মার্ট কার্ড দেয়া হবে। স্মার্ট কার্ড দেয়া হলে পরবর্তীতে সংশোধন করতে চাইলে নির্দিষ্ট পরিমান অর্থের মাধ্যমে সংশোধন ও স্থানান্তরের সুযোগ পাবেন ভোটাররা। ইসির তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে দেশে ৯ কোটি ৬০ লাখের বেশি ভোটার রয়েছে।

অনার্স প্রথমবর্ষের পরীক্ষা বৃহস্পতিবার শুরু

 

12কমলকুঁড়ি ডেস্ক :

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৪ সালের অনার্স প্রথমবর্ষ পরীক্ষা শুরু হচ্ছে বৃহস্পতিবার (২১ মে)।

এদিন সকাল ৯টা থেকে সারাদেশে ৫৫৭টি কলেজের ১৯৭টি কেন্দ্রের মাধ্যমে ৩০টি অনার্স বিষয়ে সর্বমোট এক লাখ ৮০ হাজার ৫০৮ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে।

পরীক্ষা অনুষ্ঠানের লক্ষে যাবতীয় প্রস্তুতি ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে বলে বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা অনুষ্ঠানে প্রশাসন, সংশ্লিষ্ট কলেজ, শিক্ষক, শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকগণের সহযোগিতা কামনা করেছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

দ্বিতীয় দফায় সৌদি গমনেচ্ছুক নারী শ্রমিকদের নিবন্ধন শুরু ২৪ মে

 কমলকুঁড়ি ডেস্ক :

দ্বিতীয় দফায় সৌদি গমনেচ্ছুকদের নিবন্ধন আগামী ২৪ মে থেকে শুরু হবে। সোমবার জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর (বিএমইটি) এ তথ্য জানিয়েছে।
জানা গেছে, সৌদি আরবে যেতে ইচ্ছুক নারী গৃহকর্মীদের নাম নিবন্ধনের জন্য ফের আহ্বান জানিয়েছে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়। এ নিবন্ধন প্রক্রিয়া ২৪ মে থেকে শুরু হয়ে চলবে ৩০ মে পর্যন্ত। দেশের ৪২টি জেলায় কর্মসংস্থান ও জনশক্তি কার্যালয় এবং কারিগরী প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে এ নিবন্ধন করা যাবে। নিবন্ধনের সঙ্গে সঙ্গে সরকার অনুমোদিত রিক্রুটিং এজেন্সির সমন্বয়ে গৃহকর্মীদের বাছাই করা হবে।
এর আগে বিনা খরচে সৌদি আরবে গৃহকর্মী পাঠাতে নিবন্ধন প্রক্রিয়া শুরু করা হলেও তেমন সাড়া পাওয়া যায়নি। তাই দ্বিতীয়বারের মতো আবারো নিবন্ধন শুরু করতে যাচ্ছে এ বিএমইটি।

নিবন্ধনের জন্য ১২ কপি পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ছবি, মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট অথবা জাতীয় পরিচয়পত্র বা জন্মনিবন্ধন সনদ এবং নিজ এলাকার চেয়ারম্যান সনদপত্র সঙ্গে আনতে হবে।

যারা নিবন্ধন করবেন তাদের বয়স ২৫ থেকে ৪৫ বছরের মধ্যে হতে হবে।

ফোর-জি প্রযুক্তি শিগগিরই দেশে চালু করা হবে

6. 4Gকমলকুঁড়ি ডেস্ক::
দেশে শিগগিরই চতুর্থ প্রজন্মেরটেলি-কমিউনিকেশন প্রযুক্তি (ফোর-জি) সেবা চালু করা হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আগামী ২০১৭ সালের মধ্যে কক্ষপথে বাংলাদেশের নিজস্ব স্যাটেলাইট স্থাপন করা হবে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেন, তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে মানুষের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার কাজ করে যাচ্ছে। আওয়ামী লীগ সরকারের উদ্যোগেই আজ সবার হাতে হাতে মোবাইল সেবা পৌঁছে দেয়া সম্ভব হয়েছে। বিশ্ব টেলিযোগাযোগ ও তথ্য সংঘ দিবস উপলক্ষে আজ সোমবার বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বক্তব্য প্রদানকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন। দেশের সকল ডাকঘর ডিজিটাল করা হবে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, দেশে দারিদ্র্যের হার কমিয়ে আনা হবে আরও ১০ শতাংশ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বিএনপি যখন ক্ষমতায় আসে তখন দেশের কোনো উন্নতি হয় না। বরং তারা দেশের মানুষকে পুড়িয়ে দেশকে অশান্তিতে পরিণত করে। তারা হরতাল-অবরোধের নামে দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে। বিএনপি জামায়াত এসএসসি পরীক্ষার শুরু থেকে হরতাল-অবরোধ করে ফলে আমরা নিদিষ্ট সময়ে পরীক্ষা শেষ করতে পারিনি। তিনি প্রত্যয় ব্যক্ত করে বলেন, বিএনপি জামায়াত যতই তান্ডবমূলক কর্মকান্ড করুক না কেন, আমরা সব বাধা পেরিয়ে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাব বিশ্ব দরবারে।

মৌলভীবাজারে কৃষক সংগ্রাম সমিতির জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান

16. M bazarবাংলাদেশ কৃষক সংগ্রাম সমিতির কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে সরকারি মূল্যে ধান ক্রয়ের দাবিতে বাংলাদেশ কৃষক সংগ্রাম সমিতি মৌলভীবাজার জেলা কমিটি সোমবার মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক বরাবর এক স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। কৃষক সংগ্রাম সমিতি মৌলভীবাজার জেলা কমিটির আহবায়ক ডা. অবনী শর্ম্মা নেতৃত্বে উপস্থিত প্রতিনিধি দলের কাছ থেকে স্মারকলিপি গ্রহণ করেন জেলা প্রশাসকের পক্ষে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(সার্বিক) জহিরুল ইসলাম। তিনি এ প্রেক্ষিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার আশ্বাস প্রদান করেন। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন ধ্রুবতারা সাংস্কৃতিক সংসদ মৌলভীবাজার জেলা কমিটির সভাপতি কবি শহীদ সাগ্নিক ও সম্পাদক অমলেশ শর্ম্মা, এনডিএফ জেলা সাধারণ সম্পাদক রজত বিশ্বাস, কৃষকনেতা তাহির মিয়া ও হোটেল শ্রমিক ইউনিয়নের সহ-সাধারণ সম্পাদক শাহিন মিয়া। স্মারকলিপির অনুলিপি জেলার সকল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর প্রেরণ করা হয়।

স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয় বাংলাদেশ একটি কৃষি প্রধান দেশ, জাতীয় আয়ের বৃহত্তর অংশ এই কৃষি থেকেই আসে। প্রতিবছর কৃষক ফসল ফলায় অথচ সেই ফসলের ন্যায্য মূল্য পায় না। মধ্যস্বত্ব ভোগীরা নিজেদের ইচ্ছামত কৃষকের ফসলের মূল্য নির্ধারণ করে। এতে কৃষক প্রতিনিয়ত কৃষিতে লোকসান গুনে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক ক্ষতিপূরণে করে ঋণ। এই ঋণ আর পরিশোধ হয় না দিনে দিনে দেনা বাড়ে। দেনার দায়ে কৃষক জমি হারায়। এমনিভাবে জমিয়ে ধনী কৃষক মাঝারী কৃষকে, মাঝারী কৃষক প্রান্তিক দরিদ্র কৃষকে পরিণত হয়ে এক সময় ভূমিহীন কৃষকে পরবতীতে ভিটে মাটি হারিয়ে বাস্তুহারায় পরিণত হয়। এই হলো বাংলাদেশের কৃষকের বাস্তব চিত্র। এ অবস্থা থেকে কৃষকের পরিত্রাণ মিলছে না। তার ওপর বিগত সময়ে কৃষক জনগণের উপর বিদ্যমান শোষণ-লুণ্ঠন, সমস্যা-সংকটের মধ্যে ‘মরার উপর খাঁড়ার ঘা’র মত চেপে বসেছে চলমান সন্ত্রাস ও নৈরাজ্যে সৃষ্ট উৎপাদিত কৃষিপণ্য বাজারজাত করতে না পারার পরিস্থিতি। আজ তাই আন্তঃসা¤্রাজ্যবাদী দ্বন্দ্বে ক্ষমতা ও গদি নিয়ে শাসক-শোষক গোষ্ঠী’র সৃষ্ট সংঘাত, সন্ত্রাস ও নৈরাজ্য থেকে ‘কৃষক ও দেশকে বাঁচানো’র বিষয়টি জরুরী হয়ে দাঁড়িয়েছে।

বাংলাদেশে ইরি, বোরো ফসল সব চেয়ে বড় ধরনের উৎপাদিত ফসল, এ ফসল ফলাতে খরচও অনেক বেশী। মৌসুমে সব সময় ফসলের মূল্য কম থাকে। প্রয়োজনের তাগিদে কৃষক কম মূল্যেই তার ফসল বিক্রি করতে বাধ্য হয়। বর্তমান বাজারে প্রতি মন ধানের মূল্য ৬০০/- টাকা নিম্নে বিক্রয় হচ্ছে অথচ সরকারের নির্ধারিত মূল্য ৮৮০/- টাকা। অত্যন্ত পরিতাপের বিষয় এই যে, সরকারের নির্ধারিত মূল্যে কৃষক তার ফসল বিক্রি করতে পারে না।

আড়তদার-মহাজোন-ফড়িয়াদের নির্ধারিত মূল্যেই তারা তাদের ফসল বিক্রি করতে বাধ্য হয়। বর্তমান বাজার মূল্যে কৃষক তার ফসল বিক্রি করলে কৃষকের আরো ক্ষতি হবে। এ মৌসুমে এক মণ ধান উৎপাদনে খরচ কমপক্ষে ১,০০০/- (এক হাজার) টাকা খরচ হলেও সরকার মূল্য নির্ধারণ করেছে ৮৮০/- টাকা। তার ওপর এ সময়ে বিদেশ থেকে চাল আমদানী করায় ধান-চালের মূল্য পরিকল্পিতভাবে নামানো হচ্ছে। বিষয়টি অনুধাবনে আপনার সমীপে বাংলাদেশ কৃষক সংগ্রাম সমিতির পক্ষ থেকে আহ্বান কৃষকদের নিকট থেকে সরাসরি সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ধান ক্রয় করে সেই ব্যবস্থা গ্রহনে দাবী জানাচ্ছি।-বিজ্ঞপ্তি

মুধ মাসের মৌ মৌ ঘ্রান এলে রে —-

 

11261714_843017642400268_2801237131816194142_n

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট ।।

ঘাসফড়িঙের পথ মাড়াতে, আর নীরব দুপুর ভাঙতে সোনাঝরা গ্রামের মেঠোপথ ধরে আবার এল মধু মাস। বাংলা অভিধানে মধুমাস শব্দের অর্থ হলো, চৈত্রমাস। কিন্তু দেশের পত্রপত্রিকায় জ্যৈষ্ঠ মাস নিয়ে কোন কিছু লিখতে গিয়ে লেখা হয় মিষ্টি ফলের রসে ভরা মধুমাস। এভাবেই জ্যৈষ্ঠ মাসের সাথে মধু মাস বিশেষণটি জড়িয়ে গেছে। অভিধানের মধুমাস অভিধানেই আছে।  কিন্তু লোকমুখে এখন জ্যৈষ্ঠই যেন আসল মধু মাস। যদিও এ কথা কারো অজানা নয়, মধু থাকে ফুলে, ফলে নয়। ফাল্গুন-চৈত্র বসন্ত কাল।এ সময় ফুলে ফুলে ছেয়ে যায় বাংলার প্রকৃতি। বৈশাখ-জ্যৈষ্ঠ গ্রীষ্মকাল। বসন্তের ফুল ফলে পরিণত হয় গ্রীষ্মে এসে। ছয় ঋতুর বাংলাদেশের প্রকৃতির এ রূপের বদল সত্যি বড় বৈচিত্র্যময়। গ্রীষ্মের শেষ মাস জ্যৈষ্ঠ, এ মাসে ফল পেকে রসের ভারে টইটম্বুর হয়। বাজারে এখন দেদার বিক্রি হচ্ছে কাঁচা আম। হালকা ঝড়ে বা প্রখর রোদে যেসব গুটি আম ঝরে পড়ছে, তা দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে চলে আসছে রাজধানীর বাজারে। সাধারণত কুষ্টিয়া, মেহেরপুর, সাতক্ষীরা, যশোর ও চুয়াডাঙ্গা থেকে এখন কাঁচা আম আসছে বেশি। তা ছাড়া রাজশাহী, দিনাজপুর ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকেও আসছে কাঁচা আম। এসব কাঁচা আম বিক্রি হচ্ছে নানা দামে। খুচরা বাজারে প্রতি কেজি কাঁচা আম বিক্রি হচ্ছে সর্বনিম্ন ৩০ থেকে সর্বোচ্চ ৭০ টাকায়। তবে পাইকারি ও খুচরা বাজারের দামের মধ্যে বিস্তর তফাত। কারওয়ান বাজারের পাইকারি দোকানগুলোতে এক পাল্লা (পাঁচ কেজি) কাঁচা আম বিক্রি হচ্ছে ৮০ থেকে ১০০ টাকায়। অর্থাৎ ২০ থেকে ২৫ টাকা কেজি। অথচ একই বাজারের খুচরা দোকানে গেলেই তার দাম হয়ে যাচ্ছে দ্বিগুণেরও বেশি। কাঁচা আমের আধিক্য থাকলেও বাজারে পাকা আমও পাওয়া যাচ্ছে। তবে দাম বেশ চড়া। বাজারে এখন সাতক্ষীরা থেকে কিছু পাকা আম আসছে বলে জানান বিক্রেতারা। হিমসাগর ও বোম্বাই আম প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ২০০ থেকে ২৫০ টাকায়। যা ভরা মৌসুমে বিক্রি হয় ৮০ থেকে ১০০ টাকায়। এ ছাড়া বাজারে চলে এসেছে সবচেয়ে রসাল ফল লিচু।

lichu-02_65990-300x188

এদিকে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে  ভোরেই জমে যায় কাচাঁ ফলের বাজার। নতুন বাজার লেবুর আড়ৎ সকালেই চলে আসে বিভিন্ন বাগান থেকে। কিছু সকালের পাড়া লেবু চলে যাচ্ছে দেশের রাজধানী সহ অন্যান্য অঞ্চলে।পোষ্ট অফিস রোডে আনারস এসেছে প্রচুর এবছর দাম একটু বেশি বলে জানান পাইকারি ক্রেতা।

11258272_843017779066921_4557189642339798099_n

আর পুরান বাজারে পাঁকা কাচাঁ কাঠাল চলে যাচ্ছে দিরাই, সুনামগঞ্জ, সিলেট, গোয়ালা বাজার সহ দেশের অন্যত্র।দাম গতবছর এর তুলনায় বেশি বলে জানান বাগান থেকে নিয়ে আসা শ্রমিক।বাজারে গিয়ে ভোরে দেখা যায় টেলাগাড়ী, বাইসাইকেল,জিপগাড়ি, ও টুকরিতে করে বিভিন্ন ফসল নিয়ে আসছেন শ্রমিকরা বিভিন্ন আড়ৎ এর মালিকরা তাহা বিক্রি করে দিচ্ছেন।

মাথাপিছু আয় ১৩১৪ ডলার

75276_leadকমলকুঁড়ি ডেস্ক।।

বাংলাদেশের মানুষের মাথাপিছু আয় বেড়ে ১ হাজার ১৯০ ডলার থেকে ১ হাজার ৩১৪ ডলার হয়েছে।

২০১৪-১৫ অর্থবছরের জুলাই-মার্চ সময়ের তথ্য বিশ্লেষণ করে মাথাপিছু আয়ের এই তথ্য প্রকাশ করেছে পরিসংখ্যান ব্যুরো। এই হিসাবে চলতি অর্থবছরে মোট দেশজ উৎপাদনে (জিডিপি) ৬ দশমিক ৫১ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে বাংলাদেশ।

বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) সভায় পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এ বিষয়ে একটি প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন। পরে সংবাদ সম্মেলনে প্রতিবেদনের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন তিনি। সভায় নতুন অর্থবছরে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) জন্য ৯৭ হাজার কোটি টাকা অনুমোদন করা হয়েছে বলেও সাংবাদিকদের জানান তিনি।

মুস্তফা কামাল বলেন, এখন আমাদের মাথাপিছু আয় বেড়ে বছরে ১ হাজার ৩১৪ মার্কিন ডলারে দাঁড়িয়েছে। গত বছর এর পরিমাণ ছিল ১ হাজার ১৯০ ডলার।

তিনি জানান, মাথাপিছু আয়ের এই হিসাবে (নমিনাল) বাংলাদেশের অর্থনীতি পৃথিবীতে ৫৮তম। আর ক্রয় ক্ষমতার ভিত্তিতে (পারচেজিং পাওয়ার প্যারাইটি) আমাদের মাথাপিছু আয় ৩ হাজার ১৯০ ডলার। ক্রয় ক্ষমতার ভিত্তিতে আমাদের অর্থনীতি পৃথিবীর ৩৬তম।