সদ্য সংবাদ

বিভাগ: জাতীয়

আজ ৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট ।।

আন্তর্জাতিক নারী দিবস আজ রেববার (৮ মার্চ)। জাতিসংঘ ঘোষিত ২০১৫ সালে এই দিবসটির প্রতিপাদ্য ‘নারীর ক্ষমতায়নেই মানবজাতির ক্ষমতায়ন’।

এ প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে নিয়ে সারা বিশ্বের মতো আজ বাংলাদেশেও সরকারি-বেসরকারি নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে পালিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক নারী দিবস ২০১৫।

বিশ্বের উন্নত দেশগুলোর নারীর ক্ষমতায়নের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাংলাদেশের নারীরা আজ শুধু গার্মেন্ট শিল্পেই নন, রাজনৈতিক নেতৃত্ব, তথ্যপ্রযুক্তি, ব্যবসা, উদ্যোক্তা, সাংবাদিকতা, এভারেস্ট জয়, খেলা, সৃষ্টিশীল এমনকি যুদ্ধ বিমান চালনাতেও একে একে নিজেদের দক্ষতা, যোগ্যতা আর গ্রহণযোগতার প্রমাণ রেখে চলেছেন।

সদ্য বাংলাদেশ সফরে আসা নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন বলেছেন, মানবসূচক উন্নয়নে ভারতের চেয়ে বাংলাদেশের নারীরা অনেক এগিয়ে গেছে। এটি জাতীয় অর্থনীতিতে এক ধরনের ইতিবাচক প্রভাব আনবে। তাছাড়া দেশের শীর্ষ কর্মপদে বাংলাদেশ নারীদের ক্ষমতায়নে অনেক দূর এগিয়েছে। এটিরও একটি শুভ প্রভাব অনিবার্য।

আমর্ত্য সেনের কথার রেশ ধরে বাংলাদেশের নারীদের এমন অগ্রযাত্রার উদাহরণ বিশ্ব সমাজকে চমকে দিচ্ছে প্রতিনিয়ত। এদিকে আন্তর্জাতিক নারী দিবসের পেছনের ইতিহাস অনেক সমৃদ্ধ।

১৮৫৭ সালের এই দিনে আমেরিকার নিউ ইয়র্ক শহরে একটি সূচ কারখানার মহিলা শ্রমিকরা কর্মক্ষেত্রে মানবেতর জীবনযাপন করছিলেন। ওই সময় ১২ ঘণ্টা কর্মদিবসের বিরুদ্ধে নারীরা আন্দোলনে সোচ্চার হয়ে ওঠেন। ফলে তাদের ওপর নেমে আসে পুলিশি নির্যাতন। ১৮৬০ সালের একই দিনে ওই কারাখানার নারী শ্রমিকরা ‘মহিলা শ্রমিক ইউনিয়ন’ গঠন করেন। আর সাংগঠনিকভাবে আন্দোলন পরিচালনা করেন। এ আন্দোলনের ফলে ১৯০৮ সালের ৮ই মার্চ প্রায় ১৫ হাজার নারী শ্রমিক নির্দিষ্ট কর্মঘণ্টা, ভাল বেতন এবং ভোটের অধিকার দাবি নিয়ে নিউ ইয়র্ক সিটিতে মিছিল বের করেন।

অতঃপর ১৯১০ সালের ৮ই মার্চ কোপেনহেগেন শহরে অনুষ্ঠিত এক আন্তর্জাতিক নারী সম্মেলনে জার্মানির নারী নেত্রী কারা জেটকিন এই দিনটিকে ‘আন্তর্জাতিক নারী দিবস’ হিসেবে ঘোষণা করেন। ১৯১১ সালে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে ৮ই মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালন করা হয়। ১৯৮৫ সালে ৮ই মার্চকে জাতিসংঘও আন্তর্জাতিক নারী দিবস হিসেবে স্বীকৃতি দেয়। বাংলাদেশে ১৯৯১ সাল প্রথমবার এ দিবস পালন করা হয়।

আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে প্রেসিডেন্ট মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া পৃথক পৃথক বাণী দিয়েছেন। দিবসটি উপলক্ষে সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে বিভিন্ন কর্মসূচি পালিত হবে।

প্রধান বিচারপতি বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের অভিযোগগুলো গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করবেন

কমলকুঁড়ি নিউজ ডেস্ক:

বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের অভিযোগগুলো গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করবেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা। বৃহস্পতিবার বিকেলে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান ড. মিজানুর রহমান প্রধান বিচারপতির সঙ্গে দেখা করে বের হয়ে যাওয়ার সময় সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

ড. মিজান বলেন, প্রধান বিচারপতি বলেছেন, বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের সুনির্দিষ্ট অভিযোগ নিয়ে আসলে তিনি গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করবেন। তিনি বলেন, বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের ক্ষেত্রে আইনের প্রতি অশ্রদ্ধা লক্ষ্য করছি। এভাবে কারো মৃত্যু গ্রহণযোগ্য হতে পারে না। এর সঙ্গে জড়িতদের বিচারের আওতায় আনা উচিৎ।
সাদা পোশাকে যেন কাউকে গ্রেফতার করা না হয়। যদি করতেই হয়, সেক্ষেত্রে স্থানীয় কোনো প্রতিনিধি বা দুইজন মানুষকে সাক্ষী রাখতে হবে। তাহলে এমন হত্যাকাণ্ড কমে আসবে বলে মনে করেন প্রধান বিচারপতি।

এসকে সিনহা আরো বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা এক ধরনের ক্ষমতা বহির্ভূত ও ক্ষমতার অপব্যবহার করছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তাদেরকে সতর্কতা অবলম্বন করতে বলেছি। কিন্তু তারপরও মনে হচ্ছে কিছু ঘটনা ঘটছে যেগুলো কোনোভাবেই আইনের চোখে বৈধতা লাভ করতে পারে না।

এ বছর স্বাধীনতা পুরষ্কার পাচ্ছেন ৮ জন

কমলকুঁড়ি ডেস্ক:

বাংলাদেশের স্বাধীনতার পক্ষে এবং জাতীয় পর্যায়ে গৌরবোজ্জ্বল অবদানের জন্য ৮ জন বাংলাদেশ সরকারের সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মানন ‘স্বাধীনতা পুরস্কার’ পাচ্ছেন এ বছর। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ বুধবার  পুরস্কারের জন্য মনোনীতদের নাম চূড়ান্ত করে।

১৯৭১ সালে ওয়াশিংটনে পাকিস্তান দূতাবাসে দায়িত্বে থাকা অবস্থায় বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আনুগত্য প্রকাশ করে প্রবাসে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে জনমত গঠনের জন্য সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এ এম এস কিবরিয়া এ বছর মরনোত্তর স্বাধীনতা পদক পাচ্ছেন।

মুক্তিযুদ্ধকালীন প্রবাসী বাংলাদেশ সরকারের উপদেষ্টা পরিষদের একমাত্র জীবিত সদস্য অধ্যাপক মোজাফফর আহমেদও এবার স্বাধীনতা পদক পাচ্ছেন। ন্যাপ চেয়ারম্যান মোজাফফর সে সময় পাকিস্তান সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে গড়ে তুলেছিলেন বিশেষ গেরিলা বাহিনী।

বৃহত্তর সিলেটে মুক্তিযুদ্ধ পরিচালনায় বিশেষ ভূমিকা রাখায় প্রয়াত কমান্ড্যান্ট মানিক চৌধুরী এবার স্বাধীনতা পদক পাচ্ছেন। সাবেক এই সাংসদ নিজে সম্মুখ সমরে অংশ নেওয়ার পাশাপাশি মুক্তিযোদ্ধাদের সংগঠিত করতে ভূমিকা রাখেন।

১৯৭১ সালে রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজির দায়িত্বে থেকেও পাকিস্তানি বাহিনীর বদলে বাংলাদেশের স্বাধীনতার পক্ষে অবস্থান নিয়েছিলেন মামুন মাহমুদ। মুক্তিযোদ্ধাদের সহায়তা করায় পাকিস্তানি বাহিনীর হাতে শহীদ হন তিনি। তাকেও এবার স্বাধীনতা পদক দিচ্ছে সরকার।

বাংলা সাহিত্যে অবদানের জন্য এ পুরস্কার পাচ্ছেন অধ্যাপক আনিসুজ্জামান। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের এই ইমেরিটাস অধ্যাপক একাত্তরে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধেও অংশ নিয়েছেন।
দেশের সংস্কৃতি ক্ষেত্রে অবদানের জন্য এবার স্বাধীনতা পুরস্কার পাচ্ছেন প্রখ্যাত চলচ্চিত্র অভিনেতা আব্দুর রাজ্জাক, এদেশের মানুষের কাছে যিনি ‘নায়ক রাজ রাজ্জাক’।

গবেষণা ও প্রশিক্ষণ ক্ষেত্রে অবদানের জন্য বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিউটের সাবেক মহাপরিচালক মোহাম্মদ হোসেন মণ্ডলকে এবার স্বাধীনতা পদক দেওয়া হচ্ছে।

আর সাংবাদিকতায় অবদানের জন্য এ পুরস্কার পাচ্ছেন প্রয়াত সাংবাদিক সন্তোষ গুপ্ত। বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম ছাড়াও এ দেশের সব আন্দোলনেই তিনি অসাম্প্রদায়িকতা ও গণতন্ত্রের পক্ষে সক্রিয় ছিলেন।
২৬ শে মার্চ বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস সামনে রেখে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের জন্য প্রতিবছর এ পুরস্কারের জন্য মনোনীতদের নাম ঘোষণা করে সরকার।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ২৫ মার্চ ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে এ পদক বিতরণ করবেন।
পুরস্কারের জন্য মনোনীতরা একটি করে সোনার পদক এবং একটি সম্মাননাসূচক প্রত্যয়নপত্র পান। এর সঙ্গে নগদ পুরস্কার হিসাবে তাদের প্রত্যেককে এক লাখ টাকা করে দেওয়া হবে।

আজ বিশ্ব ভালোবাসা দিবস

 

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট ।।

আজ 14 ফেব্রুয়ারি বিশ্ব ভালোবাসা দিবস। এভালোবাসা দিবস উদযাপনের ইতিহাস বেশ পুরনো। এ নিয়ে একাধিক কাহিনী প্রচলিত রয়েছে। তবে সবচেয়ে বেশি যে গল্পটি প্রচলিত সেটি হচ্ছে- সেন্ট ভ্যালেন্টাইন নামে একজন রোমান ক্যাথলিক ধর্মযাজকের ২৬৯ খ্রিস্টাব্দের একটি ঘটনা। ওই ধর্মযাজক একই সঙ্গে চিকিৎসক ছিলেন। তখন রোমান সম্রাট ছিলেন দ্বিতীয় ক্লডিয়াস। বিশ্বজয়ী রোমানরা একের পর এক রাষ্ট্র জয় করে চলেছে। যুদ্ধের জন্য বিশাল সৈন্য বাহিনী গড়ে তোলা দরকার। কিন্তু লোকজন বিশেষ করে তরুণরা এতে উৎসাহী নয়। সম্রাটের ধারণা হল- পুরুষরা বিয়ে করতে না পারলে যুদ্ধে যেতে রাজি হবে। তিনি যুবকদের জন্য বিয়ে নিষিদ্ধ করলেন। কিন্তু প্রেমপিয়াসী তারুণ্যকে কী নিয়মের বেড়াজালে আবদ্ধ করা যায়? এগিয়ে এলেন সেন্ট ভ্যালেন্টাইন। ভ্যালেন্টাইন প্রেমাসক্ত যুবক-যুবতীদের বিয়ের ব্যবস্থা করলেন। চার্চে মোমবাতির আলোয় হচ্ছে তাদের স্বপ্নপূরণ। ধরা পড়লেন একদিন ভ্যালেন্টাইন। তাকে জেলে পোরা হলো। দেশজুড়ে এ খবর ছড়িয়ে পড়লে যুবকশ্রেণীর মধ্যে প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। অনেকেই ভ্যালেন্টাইনকে জেলখানায় দেখতে যান। ফুলেল শুভেচ্ছা জানাতে আসেন। কারারক্ষীর এক অন্ধ যুবতী মেয়েও ভ্যালেন্টাইনের সঙ্গে সাক্ষাতে যেত। চিকিৎসক ভ্যালেন্টাইন মেয়েটির অন্ধত্ব দূর করলেন। তাদের মধ্যেও সৃষ্টি হল হৃদয়ের বন্ধন। ধর্মযাজক নিয়ম ভেঙে প্রেম করেন। তারপর আইন ভেঙে তিনিও বিয়ে করেন। যুবক-যুবতীদের সহানুভূতি আর ভ্যালেন্টাইনের নিজেরও প্রেম-বিয়ের এ খবর যায় সম্রাটের কানে। তিনি ভ্যালেন্টাইনকে মৃত্যুদণ্ড দিলেন। সেটি ছিল ২৬৯ খ্রিস্টাব্দের আজকের এই ১৪ ফেব্রুয়ারি। ফাঁসির মঞ্চে যাওয়ার আগে নবোঢ়াকে তিনি চিঠি লিখলেন। যার হৃদয়ের কথা শেষ হয়েছিল এভাবে- ‘লাভ ফ্রম ইওর ভ্যালেন্টাইন’।

অতঃপর এ ভালোবাসার স্বীকৃতি আদায়ে পরবর্তী দুই শতাব্দী নীরবে-নিভৃতে পালন করতে হয়েছে ১৪ ফেব্র“য়ারিকে। ৪৯৬ খ্রিস্টাব্দে রোমের রাজা পপ জেলুসিয়াস এ দিনটিকে ‘ভ্যালেন্টাইনস দিবস’ হিসেবে ঘোষণা করেন।

শপথ নিলেন ১০ বিচারপতি

high-court_23103

কমলকুঁড়ি ডেস্ক রিপোর্ট ।।

শপথ নিয়েছেন হাইকোর্টে নিয়োগ পাওয়া ১০ অতিরিক্ত বিচারপতি।  বৃহস্পতিবার (১২ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে দশটায় সুপ্রিম কোর্ট অডিটোরিয়ামে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা তাঁদের শপথবাক্য পাঠ করান।

শপথ অনুষ্ঠানে আপিল বিভাগের বিচারপতি, হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি, অ্যাটর্নি জেনারেল ও নতুন বিচারপতিদের স্ত্রীরা উপস্থিত ছিলেন।

শপথ অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সুপ্রিমকোর্টের অতিরিক্ত রেজিস্ট্রার-১ শওকত আলী চৌধুরী।

তাঁরা হলেন- অবসরপ্রাপ্ত মহানগর দায়রা জজ (চট্টগ্রাম) এস এম মজিবর রহমান, সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার ফরিদ আহমদ শিবলী, গাজীপুর জেলা ও দায়রা জজ আমির হোসেন, সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী খিজির আহমেদ চৌধুরী, ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল রাজিক আল জলিল, সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী জ্যোতির্ময় নারায়ণ দেব চৌধুরী, ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ভীষ্মদেব চক্রবর্তী, সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী এম ইকবাল কবির, ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. সেলিম ও মো. সোহরাওয়ার্দী।

প্রসঙ্গত গত সোমবার (৯ ফেব্রুয়ারি) প্রধান বিচারপতির সঙ্গে পরামর্শ করে রাষ্ট্রপতি দুই বছরের জন্য এ দশজনকে হাইকোর্টের অতিরিক্ত বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ দেন।

ফ্রান্স সরকার নেপোলিয়নের বাড়ি বিক্রি করে দিচ্ছে

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট ॥

ফরাসি সেনানায়ক নেপোলিয়ন বোনাপার্ট। নির্বাসিত থাকার সময়ই তার মৃত্যু হয়। যদিও জানা যায় নেপোলিয়নকে আর্সেনিক খাইয়ে মারা হয়েছিল। তারপর দীর্ঘ যুদ্ধ এবং অর্থনৈতিকভাবে খারাপ পরিস্থিতির মোকাবেলা করে ফ্রান্সকে তার হারিয়ে ফেলা ঐতিহ্য উদ্ধার করতে হয়। এর পর থেকে নেপোলিয়নকে জাতীয় বীর হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে আসছে ফ্রান্স।

ওয়াটারলু যুদ্ধের সময় নেপোলিয়ন ইতালির ভিলা লা ভোগলিনা নামের একটি বাড়িতে অবস্থান করেছিলেন। সেই বাড়িটি মোট ৬০ একর ভূমির উপর তৈরি করা। বাড়িটিতে মোট ৭৪টি কক্ষ আছে। এরমধ্যে ১৩টি শয়নকক্ষ, ৯টি গোসলখানা এবং একটি ব্যক্তিগত চ্যাপেল ঘর আছে যেখানে ৩০ জন মানুষ একসঙ্গে বসতে পারে। তৎকালীন বিখ্যাত স্থাপত্যবিদ ফিলিপ্পো জুভেরা এই ঐতিহাসিক বাড়িটির নকশা করেছিলেন নেপোলিয়নের জন্য।

সম্প্রতি ফ্রান্স সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে নেপোলিয়ন বোনাপার্টের (জাতীয় বীর) ব্যবহৃত বাড়িটি বিক্রি করে দেবার। তবে এই বাড়িটি যে দামে বিক্রি করার কথা ভাবছে ফ্রান্সের সরকার তা নিয়ে কিছুটা বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে। গোটা বাড়ির দাম ধরা হয়েছে মাত্র তিন দশমিট আট মিলিয়ন পাউন্ড। এই বাড়িটি কেন এতো কম দামে কেন বিক্রি করে দেয়া হচ্ছে সে বিষয়ে ফ্রান্স সরকারের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত কোনো বিবৃতি দেয়া হয়নি। তবে ফ্রান্সের বিশেষজ্ঞদের মধ্যে অনেকে ধারণা, ফ্রান্স তার যুদ্ধের হারের স্মৃতি নষ্ট করে ফেলার জন্যই বাড়িটিকে বিক্রি করে দিতে চাচ্ছে।

নেপোলিয়ন এই বাড়ি থেকেই ২১৫ বছর আগে ঐতিহাসিক মারেঙ্গো যুদ্ধের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। সে সময় ফ্রান্স অস্ট্রিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছিল। সেই যুদ্ধে অস্ট্রেলিয়ানরা হেরে যাওয়ার পর সকল যুদ্ধ বন্দীদের ফ্রান্সের বড় বড় দালান তৈরির কাছে ব্যাবহার করা হয়।

সাহস ২৪. কম

রোববার সারাদেশে শিবিরের সকাল-সন্ধ্যা হরতাল

কমলকুঁড়ি ডেস্ক::

রোববার সারাদেশে সকাল সন্ধ্যা হরতালের ডাক দিয়েছে ইসলামী ছাত্রশিবির। শুক্রবার দুপুরে ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক মনির আহমদ স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এই হরতালে কথা জানানো হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, “আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দিয়ে নির্বিচারে নেতাকর্মীদের হত্যা, গুম, গুলি, নির্যাতন, বাড়িঘর ভাঙচুর ও গণগ্রেফতারের প্রতিবাদে আগামী ৮ ফেব্রুয়ারী রোববার দেশব্যাপী সকাল-সন্ধ্যা হরতালের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির।”

গণমাধ্যমে পাঠানো ওই প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে শিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি আবদুল জব্বার ও সেক্রেটারি জেনারেল আতিকুর রহমান বলেন, “ছাত্রজনতার মুক্তির আন্দোলনকে রাজনৈতিকভাবে মোকাবেলা করতে না পেরে নৃশংসতা ও অমানবিকতার পথ বেছে নিয়েছে অবৈধ সরকার। আন্দোলন শুরু হওয়ার পর থেকেই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে লেলিয়ে দিয়ে নেতাকর্মীদের বাসা থেকে ধরে নিয়ে নির্মমভাবে গুলি করে হত্যা করা হচ্ছে। অনেককে গ্রেফতারে পর অস্বীকার ও মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনের পর রাতের আঁধারে ‘বন্দুকযুদ্ধে’র নাটক সাজিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে। কোনো কোনো নেতাকর্মীকে গুলি করে হত্যা করার পর গাড়ির নিচে ফেলে হত্যার নাটক সাজাতেও দ্বিধা করেনি।

বিবৃতিতে বলা হয়, চলমান আন্দোলনে এক মাসে চট্রগ্রামে ২, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ২, ঢাকায় ১, রাজশাহীতে ১, ও কুমিল্লায় ১ সহ ছাত্রশিবিরের ৭ নেতাকর্মীকে গুলি করে হত্যা ও শতাধিক নেতাকর্মীকে ধরে নিয়ে পায়ে পিস্তল ঠেকিয়ে গুলি করেছে রাষ্ট্রীয় বাহিনী। গত ২৪ ঘন্টায় দেশের বিভিন্ন স্থানে শিবিরের ২ নেতাকর্মীকে হত্যা ও ১৪ জনকে পায়ে পিস্তল ঠেকিয়ে গুলি করা হয়েছে। যারা বিভিন্ন কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র । ছাত্রশিবিরের ২ নেতা মেধাবী ছাত্র, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য সম্পাদক শাহাবুদ্দিন এং কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলা সভাপতি সাহাব উদ্দিন পাটোয়ারীকে গুলি করে নির্মমভাবে হত্যা করেছে যৌথবাহিনী। এর পাশাপাশি সারাদেশে ডাকাতের মতো নেতাকর্মীদের বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও লুটপাট করছে যৌথবাহিনী ও সরকার দলীয় ক্যাডাররা। চলছে নির্বিচারে গণগ্রেফতার। একটি স্বাধীন গণতান্ত্রিক দেশে এ ধরনের অসভ্য আচরণ কল্পনা করা না গেলেও এদেশে তা প্রতিদিনই ঘটছে। কিন্তু এভাবে চলতে দেয়া যায় না।”

শিবির নেতারা বলেন, “আমরা দেশের ছাত্রসমাজসহ সর্বস্তরের জনগণকে শান্তিপুর্ণভাবে হরতালকে শতভাগ সফল করার মাধ্যমে অপশাসন ও রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের দাঁতভাঙা জবাব দেয়ার আহবান জানাচ্ছি। আমাদের হরতাল হবে সম্পুর্ণ শান্তিপুর্ণ। কিন্তু সরকার যদি বাধা দেয়, তাহলে উদ্ভূত যেকোনো পরিস্থিতির দায় তাদের ওপরই বর্তাবে।”

এর আগে সংগঠনের নেতা শাহাবুদ্দিন হত্যার প্রতিবাদে রোববার থেকে রাজশাহী বিভাগের আট জেলায় ৪৮ ঘণ্টা হরতাল ডেকেছে ইসলামী ছাত্রশিবির । বলা হয়েছে, শনিবার বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করবে শিবির। ইসলামী ছাত্রশিবির রাজশাহী মহানগরী শাখার প্রচার সম্পাদক মোঃ আসাদুজ্জামানের পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়।

রোববার সৌদি প্রতিনিধি দল ঢাকা আসছেন

images

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট ।।

বাংলাদেশ থেকে জনশক্তি আমদানির বিষয়ে রোববার (০৮ ফেব্রুয়ারি) ৩ দিনের সফরে ঢাকায় আসছেন ১৭ সদস্যের একটি সৌদি প্রতিনিধিদল।

এ ব্যাপারে দ‍ূতাবাসের কাউন্সিলর (শ্রম)  সারওয়ার আলম শুক্রবার সকালে বলেন,  ১৭ সদস্যের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেবেন সৌদি শ্রম মন্ত্রণালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের উপমন্ত্রী ড. আহমেদ আল ফাহাইদ।

প্রতিনিধি দলটি বাংলাদেশের প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন সহ সরকারের শ্রম সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে বৈঠক করবেন বলেও জানান সারওয়ার আলম।

বৈঠকে বাংলাদেশ থেকে জনশক্তি আমদানির বিষয়ে দ্বিপাক্ষিক চুক্তি সম্পাদন এবং দ্রুততম সময়ের মধ্যে কিভাবে জনশক্তি নেওয়া যায় এব্যাপারে করণীয় নির্ধারণ করবেন বলেও জানা গেছে।

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হচ্ছে সোমবার ।। এসএসসিতে পরীক্ষার্থী ১৪ লাখ ৭৯ হাজার

2011

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট ।।

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হচ্ছে সোমবার। এবার পরীক্ষায় ১৪ লাখ ৭৯ হাজার ২৬৬ জন শিক্ষার্থী অংশ নিচ্ছে। এরমধ্যে ৭ লাখ ৬৩ হাজার ৩৩৯ জন ছাত্র এবং ৭ লাখ ১৫ হাজার ৯২৭ জন ছাত্রী। এবার পরীক্ষার্থী বেড়েছে ৪৬ হাজার ৫৩৯ জন। গত বছর এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় ১৪ লাখ ৩২ হাজার ৭২৭ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিয়েছিল। বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এক সংবাদ সম্মেলনে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরেন।

তিনি জানান, এবার ৩ হাজার ১১৬টি কেন্দ্রে ২৭ হাজার ৮০৮টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা দেবে। গত বছরের থেকে এবার ৩১৯টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও ১৭৪টি কেন্দ্র বেড়েছে। বিদেশে আটটি কেন্দ্রের মাধ্যমে পরীক্ষা নেওয়া হবে বলে জানান শিক্ষামন্ত্রী। এবার আটটি বোর্ডের অধীনে এসএসসিতে ১১ লাখ ১২ হাজার ৫৯১ জন, মাদ্রাসা বোর্ডের অধীনে দাখিলে ২ লাখ ৫৬ হাজার ৩৮০ জন ও এসএসসি ভোকেশনালে (কারিগরি) এক লাখ ১০ হাজার ২৯৫ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষা দেবে বলে জানান নুরুল ইসলাম নাহিদ। মন্ত্রী বলেন, ‘এবার বাংলা দ্বিতীয়পত্র, ইংরেজি প্রথমপত্র, ইংরেজি দ্বিতীয়পত্র ছাড়া সকল বিষয়ে সৃজনশীল প্রশ্নে পরীক্ষা নেওয়া হবে।’ গণিত ও উচ্চতর গণিত বিষয়ে সৃজনশীল প্রশ্নে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে বলেও জানান তিনি।

২ ফেব্রুয়ারি (সোমবার) থেকে ১০ মার্চ পর্যন্ত আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এসএসসির তত্ত্বীয় পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম দিন বাংলা প্রথমপত্রের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। সময়সূচিতে আগামী ১১ মার্চ সঙ্গীতের ব্যবহারিক পরীক্ষা এবং ১২ থেকে ১৬ মার্চের মধ্যে বেসিক ট্রেডসহ এসএসসির সব বিষয়ের ব্যবহারিক পরীক্ষা নেওয়ার কথা বলা হয়েছে। চূড়ান্ত সময়সূচি অনুযায়ী মাদ্রাসা বোর্ডের অধীনে দাখিলে তত্ত্বীয় পরীক্ষা ২ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়ে শেষ হবে ১১ মার্চ। ১৫ মার্চ থেকে ১৯ মার্চের মধ্যে সকল ব্যবহারিক পরীক্ষা শেষ করার কথা বলা হয়েছে।

অন্যান্য বছরের মতো এবারো সকালের পরীক্ষা সকাল ১০ থেকে ১টা এবং বিকালের পরীক্ষা বিকাল ২টা থেকে ৫টা পর্যন্ত নেওয়া হবে।

বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলগুলো নাশকতার বিরুদ্ধে ভূমিকা রাখবে- তথ্যমন্ত্রীর সাথে চ্যানেল মালিকদের বৈঠক

10

কমলকুঁড়ি ডেস্ক নিউজ ।।
সহিংসতা ও নাশকতা উস্কে দেওয়া খবর পরিবেশন না করা ও দেশের ‘স্বাভাবিক অবস্থা’ তুলে ধরতে সরকারের সঙ্গে একমত হয়েছে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল মালিকরা। একই সঙ্গে সঠিক তথ্য তুলে ধরে নাশকতা বন্ধে চ্যানেলগুলো সরকারের পাশে থাকবে।

সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ে এক বৈঠক শেষে গতকাল বৃহস্পতিবার বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলের মালিক ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এবং শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রী সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। সারাদেশে বিএনপির অবরোধ কর্মসূচির মধ্যে বুধবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বিশেষ সভার একদিন পরই টেলিভিশন মালিকদের সঙ্গে এ বৈঠকে বসলো সরকার। তবে তথ্যমন্ত্রী জানান, টেলিভিশন মালিকদের সঙ্গে নিয়মিত মতবিনিময়ের অংশ হিসেবে এ বৈঠক হচ্ছে।
সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টায় অনুষ্ঠিত বৈঠকে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু ছাড়াও শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, পানিসম্পদ মন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, সংসদ সদস্য ও জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) কার্যকরী সভাপতি মাঈনুদ্দিন খান বাদল উপস্থিত ছিলেন। বৈঠক শেষে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু সাংবাদিকদের বলেন, দেশে এখন আন্দোলনের নামে নাশকতা ও সন্ত্রাস চলছে। নাশকতা ও সন্ত্রাস জাতি বা রাজনীতিকে গাইড (পথ নির্দেশ) করতে পারে না। আদর্শ স্থাপন করতে পারে না। দেশেকে একটি অন্য খাতে প্রবাহিত করতে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে এ কাজগুলো করা হচ্ছে। যুদ্ধাপরাধীদের বিচার ঠেকানো, খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের বিচার যাতে না হয়, সরকার পরিবর্তন করা যায় কিনা।
তিনি বলেন, অনেক কিছু মানুষের অগোচরে ছিল। দেশের অবস্থা প্রকৃত অর্থে স্বাভাবিক, এ বিষয়ে মানুষ অবহিত নয়। প্রতিদিন ৫০ থেকে ৬০ হাজার গাড়ি ঢাকায় আসা-যাওয়া করছে, এ জিনিসগুলোর বিষয়ে মানুষ অবহিত নয়। দু’একটি বাস, ট্রাক পোড়ানোর বিষয় এমনভাবে তাদের দৃষ্টিগোচর করা হয়েছে যে তারা মনে করে সারাদেশেই একটা অস্বাভাবিক পরিস্থিতি বিরাজ করছে। সঠিক তথ্যটি যাতে উপস্থাপিত হয়।
‘মিডিয়াকে দেশের অবস্থাটা জানাতে চাই, অনেকেই ওয়াকিবহাল ছিলেন না। আমাদের কাছ থেকে শুনেছেন। আমরা প্রমাণ সহকারে তাদের কাছে উপস্থাপন করেছি। তাদের বোঝাতে সক্ষম হয়েছি (কনভিন্সড)। সঠিক তথ্য তুলে ধরার বিষয়ে আমরা সবাই একমত হয়েছি’ বলেন বর্ষীয়ান এ রাজনীতিবিদ।
সংবাদ প্রচারে কোন বিধিনিষেধের কথা বলা হয়েছি কিনা জানতে চাইলে আমু বলেন, না, সুনির্দিষ্টভাবে কোন নির্দেশনা নয়, কোনরকম কিছু নেই। আলোচনার ভিত্তিতে যেটুকু সেটুকুই। এ সময় বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘সত্যটা তুলে ধরা হবে। দেশে যে স্বাভাবিক অবস্থা বিরাজ করছে সেটাই মিডিয়ার মাধ্যমে তুলে ধরা হবে।’
বৈঠকে শেষে এ্যাসোসিয়েশন অব টেলিভিশন চ্যানেল ওনার্সের (এটকো) সহ-সভাপতি ও মাছরাঙ্গা টেলিভিশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক অঞ্জন চৌধুরী বলেন, বর্তমান প্রেক্ষাপটে ইলেকট্রনিক মিডিয়ার ভূমিকা নিয়ে আলোচনা করেছি আমরা। সত্য তুলে ধরার জন্য আমরা যে প্রচেষ্টা নিয়েছি, মন্ত্রীরা আমাদের সে বিষয়ে উৎসাহিত করেছেন। আমাদের সামনে প্রশ্ন এসেছিল- এটা আন্দোলন না নাশকতা। আমরা একমত হয়েছি আন্দোলন একরকম, আর নাশকতা আরেক রকম।
‘যেভাবে নাশকতা দেখতে পাচ্ছি, তাতে আমরা একমত এটা যাতে আমরা সেনসেশনালাইজ (অতিরঞ্জিত) না করি। এ বিষয়ে তাদের কিছু মন্তব্য ছিল, আমরাও একমত হয়েছি। আমরা নিজেরাও সেন্সর করি, যেটা আমাদের দেশের জন্য ক্ষতিকর অবশ্যই সেটা আমরা করব না। আমরা যদি এ বিষয়গুলো (নাশকতা ও সহিংসতা) উৎসাহিত করি তবে ভবিষ্যতের জন্য ভয়াবহ পরিস্থিতির সৃষ্টি করবে’ বলেন অঞ্জন। তিনি আরও বলেন, ‘কেবল অপারেটররা ভারতীয় চ্যানেলগুলোকে প্রাধান্য দিচ্ছে। এ বিষয়ে সরকারের করণীয় জানতে চেয়েছি আমরা। বৈঠকে উপস্থিত মন্ত্রীরা একমত হয়েছেন এ বিষয় ব্যবস্থা নেবেন তারা। শিগগিরই একটি আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা করে এ বিষয়ে আামাদের একটি ফলাফল জানাবেন।’
চ্যানেল একাত্তর এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোজাম্মেল বাবু বলেন, ‘আমরা একমত হয়েছি ইলেট্রনিক মিডিয়ার অপার শক্তি ব্যবহার করে নাশকতা দমনে সরকার ও রাষ্ট্রের পাশে থেকে আমরা আমাদের সর্বোচ্চ ভূমিকা পালন করবো। সন্ত্রাসীদের কোন দল নেই। এটা আন্দোলন নয়, এটা নাশকতা। নাশকতার বিরুদ্ধে দেশ-জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করতে আমরা কাজ করবো।’
বৈশাখী টিভির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল বলেন, ‘বৈঠকে সবাই একমত হয়েছি যে, আমরা সহিংসতা ও রাজনীতিকে যেন না মিলিয়ে ফেলি। সহিংসতা সহিংসতাই, রাজনীতি রাজনীতিই। সহিংসতা যদি রাজনীতি দখল করে ফেলে তবে রাজনীতি বিপজ্জনক জায়গায় পড়বে। আমরা বলেছি আমরা সুস্থ রাজনৈতিক ধারার পক্ষে, আমরা সহিংসতার বিরুদ্ধে। সন্ত্রাস ও রাজনীতি এক ধারায় চলতে পারে না।’
বৈঠকে কোন ডিকটেশন, কোন নির্দেশনা এমনকি কোন অনুরোধও করা হয়নি বলেও জানান মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল। পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে আমরা একমত হয়েছি, বর্তমান যে অবস্থা চলছে, বার্ন ইউনিটে যে চিৎকার, তা জাতির আর্তনাদ। এ আর্তনাদের পক্ষে আমরা, যারা এ আর্তনাদ সৃষ্টি করে তাদের বিরুদ্ধে। বৈঠকের সূচনা বক্তব্যে তথ্য সচিব মরতুজা আহমেদ বলেন, টেলিভিশনসহ বিভিন্ন গণমাধ্যম জনজীবন, সামাজিক জীবন এমনকি রাষ্ট্রীয় জীবনকে প্রভাবিত করে। গণমাধ্যমের ভূমিকা ও আমাদের কিছু পর্যবেক্ষণ নিয়ে আজ আমরা আলোচনা করব।
তিনি বলেন, টেলিভিশন সংবাদে মানুষ উজ্জীবিত হয়, টেলিভিশন গণতান্ত্রিক উন্নয়নেও ভূমিকা পালন করে আসছে। টেলিভিশনের ভুল সংবাদ মানুষের উপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। ‘গতকালের সংবাদ ২৪ ঘণ্টা পর আপডেট করে তাজা খবর হিসেবে প্রচার করা হচ্ছে। বাসি খবরকে এভাবে তাজা বানালে মানুষের উপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলে’ বলেন মুরতুজা আহমেদ।
বৈঠকে সময় টিভির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আহমেদ জুবায়ের, চ্যানেল আই’র বার্তা প্রধান প্রণব সাহা, এশিয়ান টিভির চেয়ারম্যান হারুন অর রশীদসহ বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেলের মালিক ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।