সদ্য সংবাদ

বিভাগ: জাতীয়

১ কেজি দুধের বদলে ৬০ কেজি আলু!

  কমলকুঁড়ি ডেস্ক ::
00015d-0012

স্টোর খালি করতে অভিনব উদ্যোগ নিয়েছেন ঠাকুরগাঁওয়ের হাওলাদার হিমাগারের মালিক আবদুস সালাম। তিনি ১ কেজি দুধের বদলে ৬০ কেজি আলু বিতরণ করছেন। পরে এলাকার দরিদ্র ও অসহায় মানুষের মাঝে ওই দুধ বিলিয়ে দিচেছন। আর এই ফ্রি দুধ নিতে শত শত নারী, পুরুষ ও শিশুরা হিমাগারে ভিড় জমাচ্ছেন। এ নিয়ে ওই হিমাগার মালিক এলাকায় মাইকিং করেছেন। এ মাইকিং শুনে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বিভিন্ন এলাকার গো-খামারিরা দুধ নিয়ে সদর উপজেলার জগন্নাথপুর গ্রামে অবস্থিত হাওলাদার হিমাগারে জড়ো হয়। এই কৃষকদের ১ কেজি ১ কেজি দুধের বদলে ৬০ কেজি আলু দেয়া হয়।

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার নারগুন গ্রামের কৃষক আনোয়ারুল ইসলাম ৪ কেজি দুধ নিয়ে আলু নিতে আসেন এই কোল্ড স্টোরে। তিনি বলেন, বাজারে গো খাদ্যের দাম চড়া। তাই কম দামে আলু নিতে এসেছেন গরুর খাবারের জন্য। একই কথা জানালেন জেলা শহরের শাহপাড়া গ্রামের রুমি আক্তার। তিনি বলেন, আলুতে প্রচুর পুষ্টি রয়েছে। সিদ্ধ করে পরিমিত আলু খাওয়ালে গরুর স্বাস্থ্য ভালো হয় এবং দুধ বেশি পাওয়া যায়। এই জন্য তিনি দুধের বদলে আলু নিতে এসেছেন। হাওলাদার হিমাগারের মালিক আবদুস সালাম বলেন, বাজারে আলুর বিক্রি না হওয়ায় তার হিমাগারে পর্যাপ্ত আলু মজুদ রয়েছে। এ আলু কৃষক ও ব্যবসায়ীরা তুলছেন না। স্টোর খালি করতে তিনি এই উদ্যোগ নিয়েছেন। তার ডাকে সাড়া দিয়ে প্রায় ১০০ লিটার দুধ নিয়ে হাজির হন এলাকার শতাধিক কৃষক ও গো-খামারিরা। ঠাকুরগাঁও পুলিশ সুপার ফারহাত আহমেদ দুধের বদলে কৃষকের হাতে আলু তুলে দেন এবং সংগ্রহকৃত দুধ অসহায় দরিদ্র নারী ও শিশুদের মাঝে বিতরণ করেন। এ সময় হিমাগারের মালিক আব্দুস সালামসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

ওই জেলার ১৮টি হিমাগারে কয়েক লাখ মেট্রিক টন আলু মজুদ রয়েছে বলে জানা গেছে।

মহিউদ্দিন চৌধুরী আর নেই

কমলকুঁড়ি ডেস্ক ::
চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী আর নেই (ইন্নলিল্লাহি…রাজিউন)। বৃহস্পতিবার (১৪ ডিসেম্বর) দিবাগত রাত ৪টার দিকে চট্টগ্রামের ম্যাক্স হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর। তিনি দীর্ঘদিন ধরে কিডনিজনিত রোগে ভুগছিলেন।

এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর মৃত্যুর খবরটি নিশ্চিত করেছেন তার বড় ছেলে ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

এর আগে গত ১১ নভেম্বর রাতে কিডনিজনিত সমস্যায় মহিউদ্দিন চৌধুরীকে ম্যাক্স হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি ঘটলে পরদিন তাকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে ঢাকায় নেয়া হয়। সেখানে স্কয়ার হাসাপাতলে তিনদিন চিকিৎসা শেষে, গত ১৬ নভেম্বর তাকে সিঙ্গাপুর নিয়ে যাওয়া হয়।

সেখানে ১১ দিন চিকিৎসা শেষে গত ২৬ নভেম্বর মহিউদ্দিন চৌধুরীকে ফের ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। কিছুটা সুস্থবোধ করায় গত ১২ ডিসেম্বর তাকে চট্টগ্রামে নিয়ে যান স্বজনরা। এরপর আবারও অসুস্থবোধ করলে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটার দিকে মহিউদ্দিন চৌধুরীকে চট্টগ্রামের ম্যাক্স হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি ঘটলে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়।

মহিউদ্দিন চৌধুরীর মৃত্যুর খবর শুনে রাতেই হাসপাতালের সামনে ভিড় করেন বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষ। এ সময় তাদের অনেকেই কান্নায় ভেঙে পড়েন।

এদিকে মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন পরিবার ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করে জানাজার সময় নির্ধারণ করা হবে।

ঢাকায় এলো রোবট সোফিয়া

  ডেস্ক রিপোর্ট

1

সারা বিশ্বে আলোচিত কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার নারী রোবট সোফিয়া ঢাকায় পা রেখেছে। থাই এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে ৪ ডিসেম্বর (সোমবার) রাত ১২টায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আসে সোফিয়া। তার সঙ্গে বাংলাদেশে এসেছেন নির্মাতা ডেভিড হ্যানসন। সোফিয়ার দেহের বিভিন্ন অংশ খুলে খণ্ড-খণ্ডভাবে বাক্সবন্দি করে ঢাকায় আনা হয়। তার আগমন উপলক্ষে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কর্মকর্তাদের মধ্যে ছিল ব্যাপক কৌতুহল। তাকে স্বাগত জানাতে বিমানবন্দরের প্রস্তুতিও ছিল চোখে পড়ার মতো। ৬ ডিসেম্বর (বুধবার) থেকে শুরু হতে যাওয়া দেশের সবচেয়ে বড় তথ্যপ্রযুক্তি উৎসব ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডে র উদ্বোধনী দিনেই সোফিয়া উপস্থিত থাকবে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে। সঙ্গে থাকবেন তার নির্মাতা ড. ডেভিড হ্যানসন ৬ ডিসেম্বর ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডে সোফিয়াকে নিয়ে দু’টি সেশন করা হবে। প্রথম সেশনে দেশের পলিসি মেকার এবং সাংবাদিকদের সঙ্গে তার বৈঠক হবে। দ্বিতীয় সেশনে থাকবে তরুণ গেম ডেভেলপার, সফটওয়্যার ডেভেলপার, অ্যাপ ডেভেলপার ও উদ্ভাবকদের সঙ্গে আলোচনা। এছাড়া আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স নিয়ে ড. ডেভিড হ্যানসন মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন। প্রসঙ্গত, গত অক্টোবর মাসে রিয়াদে এক অনুষ্ঠানে রোবটটি প্রদর্শন করা হয়েছিল। প্রদর্শনীতে উপস্থিত শত শত প্রতিনিধি রোবটটি দেখে এতোটাই মুগ্ধ হন যে সেদিনই এটিকে সৌদি নাগরিকত্ব দেওয়া হয়। এরপর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপকভাবে সোফিয়ার ছবি শেয়ার হতে থাকে। সোফিয়া নানা বিষয়ে অসংখ্য প্রশ্নের উত্তর দিতে পারে। ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্কের মাধ্যমে বিশাল তথ্যভাণ্ডারে যুক্ত থাকে সে। এছাড়া মানুষের সঙ্গী ও সহযোগী হিসেবেও কাজ করতে পারে সোফিয়া।

কম্বোডিয়া সফর শেষে দেশে ফিরলেন প্রধানমন্ত্রী

1

  ডেস্ক রিপোর্ট

 কম্বোডিয়ায় তিন দিনের সফর শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী বাংলাদেশ বিমানের একটি ভিভিআইপি ফ্লাইট আজ মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) বিকাল ৪টা ৩২ মিনিটে হযরত শাহজালাল (রঃ) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে।কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রী হুন সেনের আমন্ত্রণে গত রবিবার তিন দিনের সরকারি সফরে গিয়েছিলেন শেখ হাসিনা।

স্থানীয় সময় দুপুর পৌনে ২টায় প্রধানমন্ত্রী সফর সঙ্গীদের নিয়ে দেশের উদ্দেশে রওয়ানা দেন। এ সময় তাকে বিমানবন্দরে বিদায় জানান, কম্বোডিয়ার নারী বিষয়ক মন্ত্রী ইং কন্তা পভি, পররাষ্ট্র ও আন্তর্জাতিক বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সহকারী মন্ত্রী ইতা সফিয়া এবং থাইল্যান্ডে নিযুক্ত বাংলাদেশ রাষ্ট্রদূত এবং কম্বোডিয়ায় এ্যাক্রিডিটেড সাইদা মুনা তাসনিম। প্রধানমন্ত্রীর এই সফরে বাংলাদেশ ও কম্বোডিয়ার মধ্যে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্প্রসারণের পাশাপাশি পর্যটন, কৃষি, বেসামরিক বিমান চলাচল, আইসিটি ও কারিগরি শিক্ষাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে সহযোগিতা বৃদ্ধি সংক্রান্ত একটি চুক্তি এবং নয়টি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে। শেখ হাসিনা বাংলাদেশ ও কম্বোডিয়ার মধ্যে আলোচনার নেতৃত্ব দেন। তিনি কম্বোডিয়ার রয়েল প্যালেসে রাজা নরদম সিহামনের দেওয়া রাজকীয় অভ্যর্থনা গ্রহণ করেন। তিনি কম্বোডিয়ান চেম্বারের সঙ্গে ব্যবসায়িক সংলাপে অংশগ্রহণ করেন এবং সেদেশের প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া নৈশভোজে যোগ দেন।

প্রধানমন্ত্রী নমপেনে কম্বোডিয়ার স্বাধীনতা স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন। তিনি এ সময় কম্বোডিয়ার সাবেক রাজা নরডম সিহানুক এর স্ট্যাচুতে শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন। কম্বোডিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও রাজকীয় দল ফনসিনপেকের সভাপতি নরদম রনারিধির সঙ্গে সৌজন্য স্বাক্ষাৎ করেন।

পেঁয়াজের বাজারে চরম অস্থিতিশীলতা

 কমলকুঁড়ি ডেস্ক :
মাস খানেক আগে শতকের পথে হাঁটতে থাকা পেঁয়াজের দাম কয়েকদিন কমার পর ফের একই পথেই এগোচ্ছে। গত কয়েকদিন ধরেই পেঁয়াজের বাজার চড়া। এর মধ্যে ভারত আবার রপ্তানিমূল্য বাড়িয়েছে। তাই দাম আরও বাড়বে ক্রেতাদের বলে দিচ্ছেন বিক্রেতারা।
গত এক সপ্তাহের তুলনায় বাজারে পাইকারি দোকানে সব ধরনের পেঁয়াজের দাম কেজিপ্রতি ১০ থেকে ১৫ টাকা বেড়েছে। গত সপ্তাহে ৭০ থেকে ৭৫ টাকায় বিক্রি হওয়া দেশি পেঁয়াজ এখন খুচরা বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৮৫ থেকে ৯০ টাকায়। আর আমদানি করা পেঁয়াজ সপ্তাহের ব্যবধানে ৬০ টাকা থেকে বেড়ে এখন ৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
পাইকারি বাজারে এক পাল্লা (পাঁচ কেজি) দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৪০০ টাকায়। আর আমদানি করা পেঁয়াজ ২৮০ থেকে ৩০০ টাকা।
বাজারের পাইকারি ব্যবসায়ী মোস্তফা বলেন, ‘সরবরাহ কম থাকায় ভারতের বাজারেই পেঁয়াজের দাম বাড়তির দিকে রয়েছে। ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি কমে যাওয়ায় চাহিদার তুলনায় সরবরাহ কমেছে এবং বন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানির পরিমাণ আগের তুলনায় কমে গেছে। তাই আমদানি পেঁয়াজের সাথে দেশি পেঁয়াজেরও দাম বেড়েছে।’
বাংলাদেশে পেঁয়াজের যে চাহিদা রয়েছে তার একটা অংশ আসে ভারত থেকে। সেই ভারতের বাজারে পেঁয়াজের দাম এখন বাড়তির দিকে।
ব্যবসায়ীরা জানান, পেঁয়াজ রপ্তানিতে দাম প্রায় দ্বিগুণ করেছে ভারত। এতদিন প্রতি মেট্রিক টন পেঁয়াজ ৪০০ থেকে ৫০০ ডলারে আমদানি করা গেলেও নতুন দামে তা কিনতে হবে ৮৫০ ডলারে। শনিবার থেকে কার্যকর হবে এই নতুন দাম। প্রতি ডলার ৮২ টাকা ধরলে প্রতি কেজি পেঁয়াজের আমদানি মূল্যই পড়বে ৭০ টাকার মতো। এর সঙ্গে যোগ হবে পরিবহন খরচ, হাত বদলের লাভ। আবার কিছু পেঁয়াজ পরিবহনের সময় নষ্ট হবে এবং এই ক্ষতি ব্যবসায়ীরা পুষিয়ে নেবে বাড়তি দাম দিয়েই।
ভারত নতুন সিদ্ধান্ত নেয়ার পর পরই এই দাম বেড়ে গেছে বাজারে। পাইকারি বিক্রেতা মোস্তফার দোকান মাড়িয়ে আড়ত থেকে কিছুটা দূরে খুচরা বিক্রেতা কাজলের দোকানে গিয়ে দেখা যায়, কেজিপ্রতি দেশি পেঁয়াজ ৮৫ টাকা এবং ভারতীয় বড় পেঁয়াজ ৬৫-৭০ টাকা দামে বিক্রি হচ্ছে।
মোস্তফা বলেন, ‘গত ৪-৫ দিনের মধ্যে এ দাম বেড়েছে। নতুন মাল নামছে না। বস্তা কাটায় এই মালটা ৮২ টাকায় আমারই কেনা! আমি কত বেচমু কন? এ বছর বৃষ্টিতে নতুন পেঁয়াজ ক্ষেত নষ্ট হয়েছে দুইবার। কৃষকের হাতে কোনো পেঁয়াজ নেই। আর ভারত থেকে আদমানি কমে গেছে।’
তার সাথে আলাপচারিতার মাঝেই তার দোকানে পেঁয়াজ কিনতে আসেন মনির। তিনি প্রস্তুতি নিয়ে এসেছিলেন পাঁচ কেজি কিনবেন। কিন্তু দাম শোনার পর দোকানিকে এক কেজি দিতে বলেন।
মনির বলেন, ’৮৫ থেকে ৯০ টাকায় যদি পেঁয়াজ কিনতে লাগে বাকি সদাই কিনব কী দিয়ে? আমি পাঁচ কেজির নিচে নেই না, এই কয়দিন আগে দেখলাম কিছুটা কম ছিল আবার বেড়ে গেছে । তাই এক কেজি নিলাম। পরে দাম কমলে নেব। এতে যে কয়দিন যায়।’
বাজার ঘুরে পাইকার ও খুচরা বিক্রেতাদের ভাষ্য অনুযায়ী, পেঁয়াজের অস্থিতিশীলতা ডিসেম্বরের আগে থামার কোনো সুখবর পাওয়া যায়নি। ভারতীয় পেঁয়াজের আমদানি বাড়ার জন্য এবং নতুন দেশি পেঁয়াজ ওঠার জন্য অপেক্ষা করতে হবে বলে তথ্য দেন তারা।
দেশে বছরে প্রায় ২৪ লাখ টন পেঁয়াজের চাহিদা রয়েছে। এর মধ্যে ১৮ লাখ টন দেশে উৎপাদিত হয়। বাকিটা আমদানি করা হয়, যার অধিকাংশই আসে ভারত থেকে। তবে নয় লাখ টনের দামেই নির্ধারিত হয় বাকি ১৮ লাখ টনের দাম। পচনশীল বলে তুরস্ক, চীন বা পাকিস্তান থেকে পেঁয়াজ আমদানি করা কঠিন বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

৭ মার্চের ভাষণে যতই বাধা এসেছে মানুষ ততই জাগ্রত হয়েছে -শেখ হাসিনা

 কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

100

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ৭ মার্চের ভাষণে যতই বাধা এসেছে  মানুষ ততই জাগ্রত হয়েছে। ইতিহাস মুছে ফেলা যায় না বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।  ইতিহাস যতই মুছতে চেষ্টা করুন, তা সম্ভব নয়। ইতিহাস সত্যকেই তুলে ধরে। ৭ মার্চের ভাষণকে ঐতিহাসিক দলিলের স্বীকৃতি দেয়ায় ইউনেস্কোর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, পৃথিবীর কোনো ভাষণ এত দিন, এত ঘণ্টা প্রচার হয়নি। নাগরিক কমিটির ব্যানারে আয়োজিত রবিবার (১৮ নভেম্বর) সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের সমাবেশে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন।সমাবেশে স্বাগত বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।
ইমেরিটাস অধ্যাপক  ড. আনিসুজ্জামানের সভাপতিত্বে সমাবেশ সঞ্চালনা করেন নাট্য ব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার ও শহীদ বুদ্ধিজীবী ডা. আবদুল আলীম চৌধুরীর কন্যা ডা. নুজহাত চৌধুরী।
বিএনপির প্রতি ইঙ্গিত করে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেন, যারা এ ভাষণ বাজাতে বাধা দিয়েছে, আজ যখন ইউনেস্কো এই ভাষণকে ঐতিহাসিক হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে তখন তাদের কি লজ্জা হয় না? জানি না এদের লজ্জা-শরম আছে কিনা? কারণ এরা তো পাকিস্তানি বাহিনীর প্রেতাত্মা।
 শেখ হাসিনা বলেন, তখন ৫৬ শতাংশ মানুষ ছিল পূর্ব পাকিস্তানে। কিন্তু বাঙালির কোনো অধিকার ছিল না। পশ্চিম পাকিস্তানিরা সম্পূর্ণ শোষণ করেছে। তারা আমাদের মাতৃভাষার অধিকার কেড়ে নিতে চেয়েছিল। তখন বঙ্গবন্ধু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ছিলেন। তিনি সবাইকে উদ্বুদ্ধ করে এর বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে তোলেন।
 প্রধানমন্ত্রী  বলেন, বাঙালিরা শাসনভার হাতে নিক তা পাকিস্তানিরা কখনও চায়নি। ডিসেম্বরের ৭ তারিখ ইলেকশন হয়। জানুয়ারি, ফেব্রুয়ারি গেল কিন্তু তারা ক্ষমতা হস্তান্তর করেনি। বঙ্গবন্ধুর কথায় এ দেশের মানুষ ঐক্যবদ্ধ হয়েছিল।
৭ মার্চের ভাষণের কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, জাতির পিতা সেদিন ভাষণ দিয়েছিলেন লাখো মানুষ এসেছিল এ রেসকোর্স ময়দানে। বাঁশের লাঠি হাতে নিয়ে এখানে এসেছিল তারা।‘জাতিকে স্বাধীনতার চেতনায় উদ্বুদ্ধ করেছিলেন বঙ্গবন্ধু। জাগ্রত করেছিলেন বাঙালি জাতিকে। ৭ মার্চ সেদিন তার নির্দেশনা নিতে লাখ লাখ মানুষ দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে এখানে এসেছিলেন।’
  প্রধানমন্ত্রী বক্তব্যের শেষ দিকে বলেন, ‘এতক্ষণ মেঘে ছেয়েছিল, আজকে আমাদের সূর্য নতুনভাবে দেখা দিয়েছে। এই সূর্যই আমাদেরকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। বাংলাদেশকে আবারও আমরা উন্নত-সমৃদ্ধ দেশ হিসেবে গড়ে তুলব।’

রংপুরে ধর্ম অবমাননার অভিযোগে মিছিল করে হিন্দুদের বাড়িঘরে হামলা, আহত ২৫

50

রংপুর : ফেইসবুকে ধর্ম অবমাননার অভিযোগ তুলে রংপুরে মিছিল নিয়ে হিন্দুদের বাড়িঘরে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এ কারণে পাগলাপীর মমিনপুর হাড়িয়াল কুঠিসহ আশেপাশের এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় পুলিশের সঙ্গে মুসল্লিদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষ হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে শত শত রাউন্ড টিয়ারসেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে পুলিশ। এতে ২৫ জন আহত হয়েছেন। কোতোয়ালি থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আজিজুল ইসলাম জানান, সদর উপজেলায় খলেয়া ইউনিয়নের ঠাকুরপাড়া গ্রামে শুক্রবার বেলা ৩ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। তিনি বলেন, “একটি বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে কিছু লোক স্থানীয় টিটু রায়ের বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করে। এ সময় পাশের ধীরেন রায়ের আরও দুটি বাড়ি পুড়ে যায়।”

খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে বলে জানান তিনি। এ সময় পুলিশের রাবার বুলেটে মাহাবুবুল, জামিল ও আলিম নামে তিন ব্যক্তি আহত হন। তাদের রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে পরিদর্শক আজিজুল জানান।  ঠাকুরপাড়া গ্রামের পাগলাপীর জামে মসজিদ পরিচালনা কমিটির সদস্য রফিকুল ইসলাম মাস্টার বলেন, আট/নয়দিন আগে স্থানীয় এক যুবক তার ফেইসবুকে ‘ধর্মীয় অবমাননাকর’ ছবি পোস্ট করেন। মঙ্গলবার ওই যুবককে গ্রেপ্তারের দাবিতে মিছিল করে এলাকাবাসী। তিনি বলেন, পরে তারা পুলিশ সুপারের কাছে গিয়ে তাকে গ্রেপ্তারের জন্য ২৪ ঘণ্টা সময় বেঁধে দেন। কিন্তু তাকে গ্রেপ্তার না হওয়ায় দুপুরে তারা আবার বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। এসময় পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে। এর মধ্যেই টিটুর বাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে বলে রফিকুল ইসলামের ভাষ্য। এদিকে বিক্ষুব্ধ মুসল্লিরা ঠাকুরবাড়ি গ্রামের অন্তত ৩০টি বাড়িতে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাঙচুর করে ও আগুন জ্বালিয়ে দেয়। বেশ কয়েকটি বাড়ির মালামাল লুট হয়েছে বলে অভিযোগ গ্রামের হিন্দু পাড়ার মানুষদের।

চট্টগ্রামের লোহাগাড়ায় হিন্দু সেজে মন্দিরে অবস্থান, ৯ মহিলাকে ভ্রাম্যমান আদালতের ৪ মাসের সাজা

 

 কমলকুঁড়ি ডেস্ক রিপোর্ট

Capture-1

চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার আমিরাবাদ ইউনিয়নের সুখছড়ি কালীবাড়ি মন্দিরে রাস মহোৎসব চলাকালীন সময়ে হিন্দু সেজে মন্দিরে অবস্থান করে প্রতারণার দায়ে ৯মহিলাকে আটক করেছে থানা পুলিশ। আটক মহিলারা হল যথাক্রমে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার ডরমন্ডল এলাকার মোবারক মিয়ার স্ত্রী নাছমা আক্তার (৩০), কালু মিয়ার স্ত্রী তানিয়া (২৮), আব্দুল হাইয়ের স্ত্রী জুলেকা বেগম (৩০), মৃত নুরুল ইসলামের কন্যা মর্জিনা বেগম (১৫), মাসুম খানের কন্যা তাহমিনা (১৫), মোহাম্মদ মিদুল মিয়ার কন্যা লুনা (১৮), মো: শফি মিয়ার কন্যা রুজিনা আক্তার (১৫), ফজল মিয়া স্ত্রী নুরুন্নাহার (৪০) ও আলী আহমদের স্ত্রী ললিতা বেগম (৪৫)।

সূত্র জানায়, গত ৪ নভেম্বর রাত্রে সুখছড়ী কালীবাড়ি মন্দিরে রাস মহোৎসব চলছিল। মহোৎসব চলাকালীন সময়ে শাঁখা ও হাতের বালা দিয়ে ৯ মহিলা মন্দিরের ভেতর প্রবেশ করে অবস্থান নেয়। পরবর্তীতে উক্ত মহিলারা মন্দিরে অবস্থান নেওয়ার পর স্থানীয়দের সন্দেহ হলে তাৎক্ষণিক লোহাগাড়া থানা পুলিশকে খবর দেয়। লোহাগাড়া থানার এসআই প্রভাত কর্মকারের নেতৃত্বে একটি পুলিশি টিম ঘটনাস্থল হতে ৯ মুসলিম মহিলাকে আটক করে থানার হেফাজতে নিয়ে আসে। থানার এসআই প্রভাত কর্মকার বলেছেন, মহিলাদেরকে গ্রেফতার করার পর তারা নিজেদেরকে হিন্দু বলে দাবি করলে গীতাপাঠের ১ম অধ্যায় জিজ্ঞাসা করলে তারা কিছুই বলতে পারেনি। তিনি আরো জানান, তারা মূলত মুসলিম তারা হিন্দু সেজে এলাকার মহিলাদের কাছ থেকে টাকা ও স্বর্ণ আত্মসাৎ করতে এসেছিল। ৫ নভেম্বর সকালে আটককৃত মহিলাদেরকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার কার্যালয়ে নিয়ে আসলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার তথা নিবার্হী ম্যজিষ্ট্রেট মো: মাহাবুব আলম হিন্দু সেজে প্রতারণা করায় ৯মহিলাকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ৪মাসের সাজা প্রদান করা হয়েছে বলে জানা গেছে। একই দিন আটককৃতদেরকে চট্টগ্রাম আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে বলে থানার এসআই মো: সোহরাওয়ার্দী (সরওয়ার) উক্ত প্রতিবেদককে জানিয়েছেন।

রোহিঙ্গা শরনার্থী ক্যাম্প থেকে ফেরার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় সিলেটের ৬ জন নিহত

কমলকুঁড়ি নিউজ ডেস্ক 

2017-10-30--22_14_24

নরসিংদীতে ঢাকা- সিলেট মহাসড়কে সড়ক দুর্ঘটনায় সিলেটের ৬জন নিহত হয়েছেন। নিহতরা বিয়ানীবাজারের ৫ কাপড় ব্যবসায়ী ও গাড়ি চালক। চট্টগ্রাম থেকে সিলেট ফেরার পথে আজ সোমবার (৩০ অক্টোবর) সকালে নরসিংদীর মাধবদি এলাকায় দুর্ঘটনায় পড়ে।এতে ঘটনাস্থলে জামানপ্লাজার রূপশী বস্ত্রবিতানের মালিক রেজাউল, শ্রীধরা গ্ৰামের জসিম উদ্দিন, মতিন ক্লথ স্টোরের জুবেরসহ ৬ জন মারা যান বলে খবর পাওয়া গেছে। গাড়িতে থাকা অপর যাত্রী আহত হয়েছেন। তাদের অবস্থা আশংকাজনক।পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, ঢাকা থেকে সিলেটগামী একটি মাইক্রোবাস কান্দাইলের রশিদের বাড়ি এলাকায় পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা নারায়ণগঞ্জগামী একটি যাত্রীবাহী বাসের সঙ্গে মুখোমুখী সংঘর্ষ হয়। এতে মাইক্রোবাসটি দুমড়ে মুচড়ে গিয়ে ঘটনাস্থলেই চারজন মারা যান। এ ঘটনায় আহত হন আরও পাঁচ জন। পরে আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার পথে আরও দুই ব্যক্তি মারা যান।
মাধবদী থানার ওসি মো. ইলিয়াস জানান- সোমবার সকাল ৭টার দিকে উপজেলার কান্দাইল বাসস্ট্যান্ডের কাছে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে একটি মাইক্রোবাসের সঙ্গে যাত্রীবাহী বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে মাইক্রোবাসটি দুমড়ে- মুচড়ে যায়।এ সময় চারজন ঘটনাস্থলেই নিহত হন। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ উদ্ধার অভিযান শুরু করেছে। নিহত চারজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে আহতদের উদ্ধার করে বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।তারা কক্সবাজারের রোহিঙ্গা শরনার্থী শিবিরে ত্রাণ সহায়তা দিয়ে রক্সি পরিবহনের গাড়িতে ফেরার পথে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ইটাখোলা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাফিজুর রহমান সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানিয়েছেন।

মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত : বিএনপি হচ্ছে কান্নাকাটি ও প্রেসব্রিফিংয়ের দল – ওবায়দুল কাদের

22789154_1519527231474625_5480942969312933790_nকমলকুঁড়ি রিপোর্ট

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপি হচ্ছে কান্নাকাটি ও প্রেসব্রিফিংয়ের দল, কখনো বেগম জিয়া কাঁদে, কখনো ফখরুল কাঁদে।  বাংলাদেশ নালিশ পার্টি বিএনপি ঐ প্রেসব্রিফিং করে করে নালিশ করাই হল এই দলের রাজনীতি। খালেদা জিয়া  কোর্টে গিয়ে আতœপক্ষ সমর্থন করতে যেয়ে তিনি অসভ্য ভাষায়, অশ্রাব্য ভাষায় আক্রমন করেছেন বাংলাদেশের জননন্দিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে। তা তিনি রাস্তার ভাষায় কথা বলছেন। হাড়ানো ক্ষমতা ফিরে পেতে ঐযে বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা বিএনপি আবারো চক্রান্তের জাল ছড়িয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে পানি ঘুলা করে আন্দোলনের নামে ক্ষমতায় আসতে চেষ্টা করছে। আজকে বেগম খালেদা জিয়া আড়াই মাস কোন খবর নেই, আজকে হটাৎ কওে এসে তিনি রোহিঙ্গাদেও ত্রাণ সাহায্য দেয়ার নাম করে দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির পায়তাড়া করছেন। তিনি তিনদিন সফরে যাচ্ছেন,  ঢাকা থেকে চিটাগাং চিটাগাং থেকে কক্সবাজার। সড়ক পথে, এ চার লেন এ রাস্তায় কোনদিন তারা একটু মাটিও ফেলতে পারেননি। চার লেন শেখ হাসিনা সরকার করেছে উল্লেখ করে ওবায়েদুল কাদের বলেন, ইনশাআল্লাহ ঢাকা-সিলেট মহাসড়কেও চারলেন রাস্তার কাজ অচিরেই শুরু হবে। শেখ হাসিনা যা বলে তা করেন। বেগম জিয়া ত্রান দিতে যাবেন, আজকে ইন্টারন্যাশনাল ফ্লাইট আছে, তিনি বিমানে করে গিয়ে সেখানে ত্রান দিতে পারেন, কিন্তু আজকে তিনি কি প্লান করেছেন দেখুন, আজকে তিনি যাবেন সড়ক পথে চট্রগ্রাম, এর উদ্দেশ্য কি ত্রান? উদ্দেশ্য কি মানবিক? উদ্দেশ্য রাজনৈতিক আর উপলক্ষ হচ্ছে মানবিক। দেড়শো গাড়ি নিয়ে তিনদিন রাস্তায় তিনি থাকবেন, তিনদিনই এই গুরুত্বপূর্ণ মহাসড়ক অচল হয়ে যাবে। রোহিঙ্গাদের ঢাল করে রাস্তায় বিশৃঙ্খলা করবেন তিনি। তিনি বলেন, আড়াইমাস খালেদা জিয়ার কোনো খবর নেই। হঠাৎ করে এসে তিনি রোহিঙ্গাদের ত্রাণ-সাহায্য দেওয়ার নাম করে দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির পাঁয়তারা করছেন। তার যদি রোহিঙ্গাদের প্রতি দরদ থাকতো তবে এতো গাড়ির যে তেল খরচ হবে সেই টাকাটা তিনি রোহিঙ্গাদের জন্য সাহায্য দিতে পারতেন। কিন্তু তিনি সেটা করেননি।

2017-10-28--16_09_58-1
শনিবার (২৮ অক্টোবর) সকাল ১১টায় ঢাকা থেকে হেলিকাপ্টারে করে জেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে যোগ দিতে মৌলভীবাজারে আসেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।     এরপর আধাঘণ্টা সার্কিট হাউজে অবস্থান করে সকাল সাড়ে ১১টার দিকে সম্মেলনস্থলে পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে সম্মেলনের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা করেন তিনি।
জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাবেক চিফ হুইপ উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদ এমপি’র সভাপতিত্বে ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নেছার আহমেদের পরিচালনায় সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক মিছবাহ উদ্দিন সিরাজ, সদস্য বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, সদস্য অধ্যাপক মো: রফিকুর রহমান, জাতীয় সংসদের হুইপ শাহাব উদ্দিন, মৌলভীবাজার ৩ আসনের সাংসদ সৈয়দা সায়রা মহসীন, মৌলভীবাজার ২ আসনের সাংসদ আব্দুল মতিন, মৌলভীবাজার জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান।
সম্মেলনে উপস্থিত হাজারো নেতাকর্মীদের উজ্জিবিত করতে দীর্ঘ আধা ঘন্টার উদ্বোধনী বক্তব্যে ওবায়দুর রহমান আরো বলেন, আজ এই মৌলভীবাজারের উপজেলা উপজেলায় ইউনিয়নে ওয়ার্ডে আওয়ামীলীগের প্রতাকা, আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীরা পুর্বসুরীদেও স্মৃতি স্বরণ করে এগিয়ে যাচ্ছে উন্নয়নের মহাসড়কে, দূর্বার গতিতে। বাংলাদেশকে বাঁচাতে হলে আওয়ামীলীগকে বাঁচাতে হবে, বাংলাদেশেরে মুক্তিযোদ্ধকে বাঁচাতে হলে আওয়ামীলীগকে বাঁচাতে হবে, বাংলাদেশের গণতন্ত্রকে বাঁচাতে হলে আওয়ামীলীগকে বাঁচাতে হবে, বাংলাদেশের উন্নয়ন আজ বিশ্বের বিশ্বয়। এ উন্নয়নকে, অর্জনকে বাঁচাতে হলে আওয়ামীলীগকে বাঁচাতে হবে। শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় আবারো বিজয়ী করতে হবে। আমরা মরণের মিছিলে দাঁড়িয়ে জীবনের  জয়গান গাই, আমরা আওয়ামীলীগ। আমরা আগুনে পুরা ফিনিক্স পাখির মত ভষ¦ থেকে নতুন পাখি জন্ম নেই , নতুন এক মুজিবের রক্ত থেকে নতুন লক্ষ লক্ষ মুজিব জন্ম নেই, আমরা  আওয়ামীলীগ , আমরা উত্তাল সাগড়ে অমানিশার অন্ধকারে বিপন্ন মানবতার বাতিঘর শেখ হাসিনার আওয়ামীলীগ। আমরা আলো হাতে আঁধারের যাত্রী। প্রিয় ভাই এবং বোনেরা আজ আমাদের এখনো দঃসময় এখনো সংকট আছে। আজকে উন্নয়নের মহাসড়কের শেখ হাসিনার নেতৃত্তে¦ সাড়া দুনিয়ায় বাংলাদেশ আজকে বিশ্বের বিশ্বয়। এ উন্নয়ন অর্জনের বিরুদ্ধে আবারো চক্রান্ত চলছে,  সরযন্ত্র চলছে। চক্রান্তের গলিপথ দিয়ে অনেকেই ক্ষতায় আসতে চাইছে। #