সদ্য সংবাদ

বিভাগ: মুন্সীবাজার

কমলগঞ্জে বু্রো চাষের প্রয়োজনে লাঘাটা ছড়ায় ক্রসবাঁধ স্থাপন জরুরী

1

আব্দুল বাছিত খান
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার ৩নং মুন্সিবাজার ইউনিয়নের রুপষপুর রফিক মিয়ার জমির উপর লাঘাটা ছড়ায় বুরো চাষের জন্য ১২০ফুট দৈর্ঘ.৩০ফুট প্রস্ত.২৫ফুট উচ্চতায় একটি ক্রসবাঁধ নির্মাণ জরুরী হয়ে পড়ছে। একটি ক্রস বাঁধ না থাকার কারনে বুরো চাষ করা ব্যাহাত হচ্ছে। এতে কুরে কৃষকরা নানা সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন। এলাকার কৃষকরা বলেছেন, বিগত দিনে বন্যা, শিলাবৃষ্টি ও অতিবৃষ্টির ফলে কোন ফসল ঘরে তুলা সম্ভব হয়নি। এবার যদি বুরো চাষ করা না হয় তাহলে পথে বসা ছাড়া কোন উপায় নেই।রফিক মিয়ার বাড়ীর সামনের লাঘাটা ছড়ার উপর একটি ক্রস বাধ নির্মাণ করা হলে প্রায় ১৫ হাজার হেক্টর জমিতে বুরো চাষ সম্ভব হবে।কৃষক বান্ধব সরকারের কমলগঞ্জ উপজেলার নির্বাহী অফিসার  মাহমুদুল হকের সুনজর কামনা করছেন এলাকাবাসী ৩ হাজার কৃষকরা। এব্যাপারে ৩নং মুন্সিবাজার ইউপির চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মুতালিব তরফদার জানান, তিনি বর্তমান সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, অত্র ইউনিয়রের রুপষপুর গ্রামে এখনো বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের মাঝে মাসে ৩০ কেজি চাউল ও নগদ ৫০০টাকা করে অদ্যবধি পর্যন্ত সরকার ভর্তুকি দিয়ে যাচ্ছে।লাঘাটা ছড়ার উপর বাঁধ নির্মানে কেওলার হাওর পাড়ের কৃষকদের মুখে হাসি ফুটবে। ১৫ হাজার হেক্টর জমি বুরো চাষ সম্ভব হবে।  এ ব্যপারে কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার কাছে আবেদন করা হবে বলে জানা গেছে।

বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে রহিমপুর ও মুন্সীবাজার ছাত্রদলের উদ্দ্যোগে মিছিল ও পথসভা

হোসেন জুবায়ের :

2017-11-08--10_50_46
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার মুন্সীবাজারের ৭ নভেম্বর ঐতিহাসিক বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে পথসভা ও আনন্দ মিছিল অনুষ্টিত হয়। রহিমপুর ও মুন্সীবাজার ছাত্রদলের উদ্দ্যোগে কমলগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক আহবায়ক মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী (শিপলুর) সভাপতিত্বে ও কমলগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক সাহিত্য ও প্রকাশনা সম্পাদক আব্দুল হাদি জুমনে সঞ্চালনা  পথসভা ও মিছিলে প্রধান অতিথি হিসেব উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার জেলা বি,এন,পির সহ-সভাপতি অধ্যাপক ফজলুর রহমান (জুয়েল), বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কমলগঞ্জ উপজেলা বি,এন,পির সিনিয়র নেতা ও উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান খন্দকার মোহাম্মদ হোসেন (কুটি), মুন্সীবাজার ইউনিয়ন বি,এন,পির সভাপতি লোকমান হোসেন চৌধুরী, কমলগঞ্জ উপজেলা যুবদলের যুগ্ন আহবায়ক ও রহিমপুর যুবদলের সভাপতি ইলিয়াছুর রহমান, সাধারন সম্পাদক জয়নু চৌধুরী।

2017-11-08--07_04_15
উপস্থিত ছিলেন রহিমপুর সেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম-আহবায়ক বুলবুল আহমেদ, থানা ছাত্রদলের সাবেক সহ-সভাপতি মিজানুর রহমান মকুল, রহিমপুর ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম-আহবায়ক শাহরিয়ার চৌধুরী (লিটন), রহিমপুর ছাত্রদলের সিনিয়র ছাত্রনেতা সৈয়দ মোকাদ্দিস আহমেদ তুহেল, মনি চৌধুরী, মখলিছুর রহমান, সিনিয়র ছাত্রনেতা আব্দুলাহ মামুন, মুন্সীবাজার ইউনিয়ন ছাত্রদলের  সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক দিনার চৌধুরী, মুন্সীবাজার ইউনিয়ন ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক খালেদ জামান সায়েদ, রহিমপুর ছাত্রদলের সভাপতি কিবরিয়া রহমান (শাওন), সহ-সভাপতি আল-হাদী রিমন, নাইম আহমেদ মুয়িন, মুন্সীবাজার ছাত্রদলের সভাপতি আব্দুল খালিক, সাধারন সম্পাদক আব্দুল হামিদ, রহিমপুর ছাত্রদলের সাধারন সম্পাদক সুয়েদ আহমদ তরফদার, সহ-সাধারন সম্পাদক মাহবুব চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক রাসেল আহমদ প্রমুখ।

পোষা হাতির আক্রমনে কুলাউড়ায় বৃদ্ধের মৃত্যু

কুলাউড়া সংবাদদাতা

40

কুলাউড়া উপজেলার টিলাগাঁও ইউনিয়নের বাংলারবাজার নামক স্থানে ০৫ নভেম্বর রোববার বিকেল ৫টায় একটি পোষা হাতির আক্রমনে ইউছুফ আলী ওরফে খাজা (৭০) নামক এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। টিলাগাঁও ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের মেম্বার মখলিছুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয় লোকজন জানান, মাহুত ও একটি ছোট বাচ্চাসহ একটি পোষা হাতি বিকেলে আনুমানিক ৫টার সময় টিলাগাঁও ইউনিয়নের বাংলাবাজার এলাকা অতিক্রম করার সময় হঠাৎ ক্ষিপ্ত হয়ে ইউছুফ আলী ওরফে খাজা ওপর আক্রমন চালায়। হাতিটি লাথি মারতে মারতে ইউছুফ আলী ওরফে খাজার মৃত্যু নিশ্চিত করে চলে যায়। উন্মাত্ত হাতিটি পৃথিমপাশা হয়ে ও কর্মধা ইউনিয়নের দিকে যেতে দেখেছেন স্থানীয় লোকজন। ইউছুফ আলী ওরফে খাজার বাড়ি টিলাগাঁও ইউনিয়নের বিজলী গ্রামে বলে মেম্বার মখলিছুর রহমান নিশ্চিত করেন। হাতিটির মালিকের নাম পরিচয় জানা যায়নি| কুলাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত (তদন্ত) বিনয় ভুষণ রায় ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, লাশ উদ্ধারের জন্য পুলিশ ঘটনাস্থলে গেছে। লাশ নিয়ে ফিরে আসার পর পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

কুলাউড়ার জয়চন্ডীতে ভাইয়ের ছুরিকাঘাতে আরেক ভাইয়ের মৃত্যু

কুলাউড়া সংবাদদাতা

40

কুলাউড়া উপজেলার জয়চন্ডী ইউনিয়নে ছোট ভাইয়ের ছুরিকাঘাতে বড় ভাই (চাচাতো ভাই) কয়ছর মিয়া (২৫) এর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। ৪ নভেম্বর শনিবার রাত ১০টায় ইউনিয়নের পূশাইনগর বাজারে এ ঘটনা ঘটেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, পূশাইনগর গ্রামের চিনু মিয়া ছেলে কয়ছর মিয়ার সাথে  তার চাচা আলতা মিয়ার পারিবারিক বিষয় নিয়ে কলহ হয়। বিষয়টি স্থানীয় লোকজন মিমাংসা করে দেন। এই কলহের জের ধরে আলতা মিয়ার ছেলে তাহের মিয়া (১৯) স্থানীয় বাজারে একটি হোটেলের সামনে দাড়িয়ে টিভি দেখার সময় চাচাতো ভাই কয়ছর মিয়াকে ধারালো ছুরি দিয়ে পেছন দিকে কোপ দেয়। এতে কয়ছর মিয়া গুরুতর আহত হন। স্থানীয় লোকজন গুরুতর আহত অবস্থায় কয়ছর মিয়াকে উদ্ধার করে কুলাউড়া হাসপাতালে নিয়ে আসেন। ফয়ছল মিয়ার অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে প্রেরণ করেন। সিলেট নেয়ার পথে কয়ছর মিয়ার মৃত্যু হয়। জয়চন্ডী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কমর উদ্দিন আহমদ কমরু জানান, যাদের মধ্যে ঘটনা তারা সম্পর্কে একে অন্যের চাচাতো ভাই। পারিবারিক কলহের জের ধরে এ ঘটনা ঘটেছে। কুলাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) বিনয় কুমায় রায় জানান, সুরতহাল রিপোর্টে শরীরের পেছনের দিকে কোমরের উপরে ছুরির কোপের চিহ্ন রয়েছে। নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মৌলভীবাজার মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এঘটনায় নিহত কয়ছর মিয়ার বাবা চিনু মিয়া বাদি হয়ে ৪ জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

কমলগঞ্জের মাধবপুরে ও আদমপুরে মণিপুরী মহারাসলীলা সমাপ্ত হাজার হাজার মানুষের উপচে পড়া ভিড়

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

Pic--Madobpur Monipuri Rass
তুমুল হৈ চৈ আনন্দ উল্লাস, বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনা, ঢাকঢোল, খোল-করতাল আর শঙ্খধ্বনির মধ্য দিয়ে রোববার ঊষালগ্নে সাঙ্গ হলো মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে মণিপুরী সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শ্রীকৃষ্ণের মহারাসলীলা।  কার্তিকের পূর্ণিমা তিথিতে এ কমলগঞ্জ উপজেলার মাধবপুর ও আদমপুরে মণিপুরী সম্প্রদায়ের এ রাসোৎসব অনুষ্ঠিত হয়। রোববার ঊষা লগ্নে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে অনুষ্ঠানের পরিসমাপ্তি ঘটে। অতঃপর যার যার নিজ নিজ গন্থব্যস্থলে চলে যান। বর্ণাঢ্য আয়োজনে রাস উৎসবে প্রতিবারের মত এবারও প্রশাসনের পক্ষ থেকে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছিল। মণিপুরী সম্প্রদায়ের এ বৃহত্তম উৎসব উপলক্ষে উভয় স্থানে বসেছিল রকমারি আয়োজনে বিশাল মেলা। রাসোৎসবে জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে হাজার হাজার ভক্তবৃন্দসহ দেশী-বিদেশী পর্যটকের ভিড়ে মুখরিত হয়েছিল কমলগঞ্জের মণিপুরী অঞ্চলগুলো। ভিড় সামলাতে পুলিশ সদস্যদের হিমশিম খেতে হয়।
দামোদর মাস খ্যাত কার্তিক পূর্ণিমা তিথিতে গৌড়িয় বৈষ্ণব ধর্মাবলম্বী মণিপুরীদের প্রধান ধর্মীয় মহোৎসব শ্রীশ্রী কৃষ্ণের মহারাসলীলা অনুসরণ। কমলগঞ্জ উপজেলার মাধবপুর জোড়া মন্ডপ প্রাঙ্গনে মণিপুরী মহারাসলীলা সেবা সংঘের উদ্যোগে বিষ্ণুপ্রিয়া মণিপুরী সম্প্রদায়ের ১৭৫ তম মহারাসলীলানুসরন উৎসব উপলক্ষে গত শুক্রবার রাত ৮টায় অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। মণিপুরী মহারাসলীলা সেবা সংঘের সভাপতি প্রকৌশলী যোগেশ্বর সিংহের ও সাধারণ সম্পাদক শ্যাম সিংহের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় সংসদের সাবেক চিফ হুইপ উপাধ্যক্ষ মো: আব্দুস শহীদ এমপি। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসক মো: তোফায়েল ইসলাম, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শাহজালাল, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহমুদুল হক, উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি এম, মোসাদ্দেক আহমেদ মানিক, রহিমপুর ইউপি চেয়ারম্যান ইফতেখার আহমেদ বদরুল, বাংলাদেশ মণিপুরী সমাজকল্যাণ সমিতির সভাপতি প্রতাপ চন্দ্র সিংহ প্রমুখ। রাত ১২টা থেকে রোববার ভোর পর্যন্ত চলে শ্রীশ্রী কৃষ্ণের মহারাসলীলানুসরণ।

Pic--M A Shahid MP
অপরদিকে রাসোৎসব ২০১৭ উদযাপন পরিষদের উদ্যোগে আদমপুর বাজারে সানা ঠাকুর মন্ডপ প্রাঙ্গনে মৈতৈ মণিপুরী সম্প্রদায়ের ৩২ তম রাস উৎসবে উপলক্ষ্যে সন্ধ্যা ৭ টায় অয়োজিত আলোচনা অনুষ্টানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কার্য্যনির্বাহী সংসদের সদস্য ও কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো: রফিকুর রহমান। রাসোৎসব উদযাপন কমিটির সভাপতি ও ইউপি সদস্য মনিন্দ্র সিংহ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন কর্মধা ইউপি চেয়ারম্যান, আদমপুর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দাল হোসেন, কবি ও গবেষক কে এম শেরাম। পরে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করা হয়।
রাত সাড়ে রাত ১১টা থেকে রোববার ভোর পর্যন্ত চলে শ্রীশ্র্রী কৃষ্ণের মহারাসলীলা উৎসব। ভোরের সূর্যোদয়ের পর অনুষ্টানের পরিসমাপ্তি ঘটে এই মহামিলন অনুষ্টানের।

Pic--Rofiqur Rahman--Adompur
ইতিহাস পর্যালোচনায় জানা যায়, ১৭৭৯ সালে মনিপুরের মহারাজা ভাগ্যচন্দ্র স্বপ্ন দৃষ্ট হয়ে যে নৃত্যগীতের প্রর্বতন করেছিলেন তাহাই রাসোৎসব। ভাগ্যচন্দ্রের পরবর্তী রাজাগনের বেশরিভাগই ছিলেন নৃত্যগীতে পারদর্শী এবং তারা নিজেরাও রাসনৃত্যে অংশগ্রহন করতেন। এর ফলে মণিপুরী সম্প্রদায়ের মধ্যে এ কৃষ্টির ধারাবাহিকতায় কোন ছেদ পড়েনি। অতীতের সেই ধারাবাহিকতার সূত্র ধরেই কোন রুপ বিকৃতি ছাড়াই কমলগঞ্জে উদযাপিত হয়ে আসছে মণিপুরী সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শ্রী কৃষ্ণের মহা রাসলীলা। তুমুল হৈ-চৈ, আনন্দ-উৎসাহ, ঢাক, ঢোল, মৃদঙ্গ, করতাল এবং শঙ্খ ধ্বনির মধ্যদিয়ে রাধা-কৃষ্ণের লীলাকে ঘিরেই আজকের দিনটি বছরের অন্য সব দিন থেকে ভিন্ন আমেজ নিয়ে আসে কমলগঞ্জ উপজেলাবাসীর জীবনে। রাসলীলায় মনিপুরী নৃত্য শুধু কমলগঞ্জের নয় গোটা ভারতীয় উপমহাদেশের তথা সমগ্র বিশ্বের নৃত্য কলার মধ্যে একটি বিশেষ স্থান দখল করে নিয়েছে।
১৯২৬ সালের সিলেটের মাছিমপুরে মনিপুরী মেয়েদের পরিবেষ্টিত রাস নৃত্য উপভোগ করে মুগ্ধ হয়েছিলেন বিশ্ব কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। পরে কবিগুরু কমলগঞ্জের নৃত্য শিক্ষক নীলেশ্বর মুখার্জীকে শান্তি নিকেতনে নিয়ে প্রবর্তন করেছিলেন মণিপুরী নৃত্য শিক্ষা। কমলগঞ্জে প্রায় এক মাস আগ থেকেই চলছিল রাসোৎসবের প্রস্তুতি।

মুন্সীবাজারে কালী প্রসাদ উচ্চ বিদ্যালয়ের উর্ধ্বমুখী ভবনের ২য় তলা কাজের শুভ উদ্বোধন

Pic-1
কমলকুঁড়ি রিপোর্ট
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলা ঐতিহ্যবাহী মুন্সীবাজার কালী প্রসাদ উচ্চ বিদ্যালয়ে উধ্বমুখী ভবনের দ্বিতীয় তলা কাজের শুভ উদ্বোধন করা হয়। সোমবার (৯ অক্টোবর) দুপুরে আনুষ্ঠানিক শুভ উদ্বোধন করেন বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি জুনেল আহমেদ তরফদার। এসময় প্রধান শিক্ষক, শিক্ষকমন্ডলী, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, অভিভাবকবৃন্দ ও সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি জুনেল আহমেদ তরফদার বলেন,  বিদ্যালয়ের নিজস্ব তহবিল থেকে ভবন নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। তিনি দেশ-বিদেশের দানশীল ব্যক্তিদের সহযোগিতা কামনা করছেন।

কমলগঞ্জের আদমপুরে স্বেচ্ছাশ্রমে গ্রামীণ রাস্তা সংস্কার

Kamalgonj Pic

 শাব্বির এলাহী
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে স্বেচ্ছাশ্রমে গ্রামীণ রাস্তা সংস্কারের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। রবিবার  সকাল থেকে উপজেলার আদমপুর ইউনিয়নের  কান্দিগাঁও গ্রামে স্থানীয় ইউপি সদস্য রেজাউল করিমের উদ্যোগে শতাধিক গস্খামবাসী মিলে  স্বেচ্ছাশ্রমে প্রায় দুই কিঃমিঃ দীর্ঘ আদমপুর-মাধবপুর সংযোগ সড়কের সংস্কার কাজ শুরু করেন। এ সময় আদমপুর ইউপি চেয়ারম্যান  তাদের সাথে সংস্কার কাজে যোগ দেন। কান্দিগাঁও গ্রামের মামুনুর রশিদ,ছুটিতে আসা বিজিবি সদস্য আব্দুল কাইয়ুম, পুলিশ সদস্য জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ জানান,  প্রতিদিন এ রাস্তা দিয়ে আদমপুর ও মাধবপুর ইউনিয়নের ১০/১২ টি গ্রামের সহস্রাধিক মানুষ যাতায়াত করে থাকেন। কিন্তু দীর্ঘদিন  ধরে রাস্তাটি খানা খন্দে ভরা থাকায় জনদূর্ভোগ পোহাতে হয়। এ অবস্থায় তারা স্থানীয় ইউপি সদস্যের উদ্যোগে নিজেরাই  স্বেচ্ছাশ্রমে সংস্কার কাজ শুরু করেন। আদমপুর ইউপি চেয়ারম্যান আবদাল হোসেন জানান, তিনি এ রাস্তার আধ কিঃমিঃ অংশ চলিত অর্থ বছরেই ইট সলিং করার ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে এলাকাবাসীকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

মুন্সীবাজারে তরুণ সনাতনী সংঘের দ্বি-বার্ষিকী সম্মেলন ও গুরুকুল সনাতনী জ্ঞানগৃহের উদ্বোধন

Pic--Kamalgonj TSS-2
কমলকুঁড়ি রিপোর্ট
“মানব সেবাই মূল মন্ত্র” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার মুন্সীবাজার সার্বজনীন দুর্গাবাড়ি প্রাঙ্গণে তরুণ সনাতনী সংঘ (টিএসএস) এর মুন্সীবাজার ইউপি শাখার দ্বি-বার্ষিকী সম্মেলন গত শুক্রবার ৩০ জুন বেলা ১১টায় অনুষ্ঠিত হয়। মুন্সীবাজার ইউনিয়ন সনাতনী তরুণ সংঘের আহবায়ক দুর্গাবাড়িতে সংঘের আহবায়ক ঝলক রঞ্জন দাশের সভাপতিত্বে এবং বিভু দেব এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কমলগঞ্জ উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক সাংবাদিক প্রনীত রঞ্জন দেবনাথ, পতনঊষার ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান-১ নারায়ণ মল্লিক সাগর, চা শ্রমিক নেত্রী গীতা রানী কানু, তরুণ সনাতনী সংঘ মৌলভীবাজার সদর উপজেলা শাখার উপদেষ্টা এড: সঞ্জয় কান্তি বিশ্বাস, রহিমপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সম্পাদক দীপক কান্তি রায়, রাধাকৃষ্ণ যুব ফোরামের সভাপতি স্বপন দেবনাথ, জেলা তরুণ সনাতনী সংঘের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এড: প্রীতম দত্ত সজীব, জেলা তরুণ সনাতনী সংঘের দিপু কর্মকার, সহ সভাপতি গৌরাপদ রায় গৌরা, সাধারণ সম্পাদক জগদীশ দাশ, সাংগঠনিক সম্পাদক গোপাল পাল, অর্থ সম্পাদক তপন পাল, প্রকাশনা সম্পাদক এবং টিএসএস শ্রীমংগল উপজেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক সৌরভ আদিত্য, সহ- প্রচার প্রকাশনা সম্পাদক স্বরূপানন্দ রায়, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক দিগন্ত দেব, সদস্য উপানন্দ বর্মন । সম্মেলন উদ্বোধন করেন তরুণ সনাতনী সংঘ (টিএসএস) কমলগঞ্জ উপজেলা শাখার সভাপতি অপু  রায় পার্থ। প্রধান বক্তা ছিলেন তরুণ সনাতনী সংঘ (টিএসএস) কমলগঞ্জ উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক রিপন চক্রবর্তী। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন তরুণ সনাতনী সংঘ কমলগঞ্জ উপজেলা শাখার সহ সাধারণ সম্পাদক দোয়েল মল্লিক সঞ্জয়, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক সাগর দেবনাথ প্রমুখ।

Pic--Kamalgonj TSS
সম্মেলনে বক্তারা শারদীয় দুর্গোৎসবে ৩ দিনের রাষ্ট্রীয় ছুটি ঘোষনাসহ ধর্মীয় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের বিভিন্ন দাবী দাওয়া বাস্তবায়নে সরকারের প্রতি জোর দাবী জানান।
সম্মেলন শেষে অনুষ্ঠিত কাউন্সিল সভায় সর্বসম্মতিক্রমে ঝলক রঞ্জন দাশকে সভাপতি ও বিদ্যুৎ মল্লিককে সাধারণ সম্পাদক করে মুন্সীবাজার ইউনিয়ন শাখা তরুণ সনাতনী সংঘের কমিটি গঠন করা হয়।
এদিকে শুক্রবার বিকাল ৩টায় তরুণ সনাতনী সংঘের (টিএসএস) কমলগঞ্জ উপজেলা শাখার উদ্যোগে‘গুরুকুল’ সনাতনী জ্ঞান গৃহের শুভ উদ্বোধন করেন কমলগঞ্জ উপজেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ নিহারেন্দু ভট্টাচার্য্য। তরুণ সনাতনী সংঘ (টিএসএস) কমলগঞ্জ উপজেলা শাখার সভাপতি অপু  রায় পার্থের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক রিপন চক্রবর্তীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে টিএসএস মৌলভীবাজার জেলা শাখার নেতৃবৃন্দসহ স্থানীয় ধর্মপ্রাণ লোকজন উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানের প্রারম্ভে শ্রীমদ্ভগবতগীতা পাঠ করেন সুনীল কুমার বৈদ্য ও শিক্ষক দুলাল চন্দ্র শর্ম্মা। সবশেষে মহাপ্রসাদ বিতরণ করা হয়।

কমলগঞ্জে ঘোষনা ছাড়াই সিএনজি অটোরিক্সার ভাড়া বৃদ্ধি ॥ দুর্ভোগে যাত্রীরা

images-202x300
কমলকুঁড়ি রিপোর্ট
প্রথমে ঈদ বোনাস ও পরবর্তীতে গ্যাসের বৃদ্ধির অজুহাতে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার সবকটি সড়কে সিএনজি অটোরিক্সার ভাড়া বৃদ্ধি করা হয়েছে। কোন প্রকার পূর্ব ঘোষনা ছাড়াই এ ভাড়া বৃদ্ধিতে যাত্রীরা চরম দুর্ভোগে পড়ছেন। বর্ধিত ভাড়া নিয়ে প্রতিদিনই যাত্রীদের সাথে চালকদের ঝগড়া-বাকবিতন্ডা হচ্ছে। ছাত্র থেকে শুরু করে পেশাজীবী পর্যন্ত সবাই ভাড়া নিয়ে দূর্ভোগে পড়লেও প্রশাসন নিরব রয়েছে। ফলে ভাড়া বৃদ্ধির প্রতিবাদে কমলগঞ্জের সচেতন যুবসমাজ আন্দোলনে যাবার প্রস্তুতি নিচ্ছে। ভূক্তভোগী যাত্রীরা এ ব্যাপারে প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করছেন।
জানা যায়, পবিত্র ঈদুল ফিতরের দিন থেকে কমলগঞ্জের বিন্নি সড়কে সিএনজির চালকরা ঈদ বোনাস দাবী করে প্রথম ২/৩দিন যাত্রীদের কাছ থেকে জনপ্রতি ৫ থেকে ১০ টাকা ভাড়া আদায় করেছে। ঈদের এক সপ্তাহ পরও ভাড়া না কমায় যাত্রীরা প্রতিবাদ জানালে সিএনজি অটোরিক্সার চালকরা গ্যাস বৃদ্ধির অজুহাত দেখিয়ে ভাড়া বাড়ানো হয়েছে বলে দাবী করে। যাত্রীরা জানান, বৃদ্ধি করা ভাড়ায় এখন কমলগঞ্জ থেকে মৌলভীবাজার শহরের ভাড়া ৪৫ টাকা, শমশেরনগর থেকে শ্রীমঙ্গল শহরের ভাড়া ৫০ টাকা, মুন্সীবাজার থেকে শমশেরনগর ২০ টাকা, কমলগঞ্জ থেকে মুন্সীবাজার ২০, কমলগঞ্জ থেকে ইসলামপুর ৫০ টাকা, শমশেরনগর থেকে কমলগঞ্জ ২০ টাকা, মশেরনগর থেকে পতনঊষার ২০ টাকা। এককথায় প্রতিটি সড়কে ৫ থেকে ১০ টাকা জনপ্রতি ভাড়া বৃদ্ধি করা হয়েছে। আলাপকালে ভূক্তভোগী যাত্রী বিকাশ রায়, কলেজ ছাত্র অঞ্জন দেবনাথ, শিক্ষিকা লাভলী বেগম, শমশেরনগর-মৌলভীবাজার, কমলগঞ্জ-মৌলভীবাজার সড়কে দীর্ঘদিন ধরে যাত্রীবাহী বাস না থাকায় সুযোগ বুঝে চালকরা দফায় দফায় ইচ্ছেমত ভাড়া বৃদ্ধি করছেন। যাত্রীরা প্রতিবাদ জানালে প্রায় সময় চালকদের হাতে নাজেহাল হতে হয়। ফলে যথারীতি পকেট কাটা যাচ্ছে যাত্রীদের। তাদের অভিযোগ- ঠিকমতো মনিটরিং না থাকায় এই নৈরাজ্য। অন্যদিকে চালক ও মালিকরা বলছেন, বার-বার একই পরিস্থিতির তৈরীর মূলে রয়েছে, সিএনজি অটোরিক্সার অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধি ও লাইসেন্স নিয়ে দুর্নীতি। সিএনজি চালকের সাথে দরদাম, এমন ঘটনা নিত্যদিনের।
ব্যাংকার প্রমোদ সিন্হা জানান, সিএনজি চালকরা নানা অজুহাতে কয়েকদিন পরপর দাম বাড়ানোর পায়তারা করে।। কখনও গ্যাসের দাম, অবরোধ, হরতাল, ঈদ, পূজা ইত্যাদি।। এভাবে আর কতদিন চলবে?
লেখক-গবেষক ও উন্নয়ন চিন্তক আহমদ সিরাজ বলেন, যৌক্তিক কোনো কারণ ছাড়াই কমলগঞ্জ এর প্রায় সর্বত্র যাত্রী পরিবহনের ভাড়া বৃদ্ধি করা হয়েছে। কোনো পূর্বালোচনা ছাড়াই হঠাৎ এরকম ভাড়া বৃদ্ধিতে সাধারণ যাত্রীরা বিরাট অসুবিধায় পড়েছেন। এ ব্যাপারে তড়িৎ যথাযথ উদ্যোগ গ্রহণ করার জন্য প্রশাসনকে এগিয়ে আসতে হবে।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে কমলগঞ্জ উপজেলা সিএনজি অটোরিক্সা শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আলমাছ মিয়া বলেন, আমাদের সমিতির কোন সিদ্ধান্ত ছাড়াই বিভিন্ন রুটে ৫-১০ টাকা ভাড়া বৃদ্ধি করা হয়েছে বলে আমরা খবর পেয়েছি। বিষয়টি আমরা দেখতেছি।
কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ মাহমুদুল হক বলেন,  বিষয়টি অবশ্যই গুরুত্বসহকারে খতিয়ে দেখা হবে। প্রয়োজনে জেলা প্রশাসকের সাথে আলোচনা করে একটি সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে।

কমলগঞ্জে খেলার ছলে পাওয়ার টিলারের চাপায় ৩ বছরের শিশুর মৃত্যু

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

খেলার ছলে বসতঘরের বারান্দায় রাখা বন্ধ পাওয়ার টিলারের চাপায় মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে তিন বছরের একটি শিশু মারা গেছে। এ মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটে গত বুধবার (২৮ জুন) মুন্সীবাজার ইউনিয়নের বাদে সোনাপুর গ্রামে।

গ্রামবাসী সূত্রে জানা যায়, বাদে সোনাপুর গ্রামের মামুন মিয়া ধানি জমিতে হালচাষাবাদে পাওয়ার টিলার ব্যবহার করেন। বুধবার দুপুরে তিনি পাওয়ার টিলারটি বসত ঘরের বারান্দায় তুলে বন্ধ করে রাখেন। বেলা সাড়ে ১২টার দিকে সবার অজান্তে খেলার ছলে মামুন মিয়ার তিন বছর বয়সী একমাত্র ছেলে অলি মিয়া পাওয়ার টিলারের উপরে উঠে খেলা করছিল। একসময় পাওয়ার টিলারটি উল্টে গেলে শিশু অলি মিয়ার বুকের উপর পড়ে। গুরুতর আহতাবস্থায় শিশু অলিকে কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাবার সময় তার মৃত্যু হয়। বুধবার সন্ধ্যায় তার দাফন সম্পন্ন হয়।