সদ্য সংবাদ

বিভাগ: মুন্সীবাজার

উপজেলা পরিষদ নির্বাচন-২০১৯ যাচাই বাছাইকালে কমলগঞ্জে ২ চেয়ারম্যান ও ২ ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

d7fcfd222801ecf80d258c195f0b515f-5c4728aa0ae3e
আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষ্যে দ্বিতীয় ধাপ ১৮ মার্চে অনুষ্ঠিত নির্বাচনের মনোনয়ন পত্র যাচাই বাছাই অনুষ্ঠিত হয় বুধবার মৌলভীবাজার জেলা রিটানির্ং অফিসার জেলা নির্বাচন অফিসারের কার্যালয়ে। যাছাই বাচাইকালে কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী ১জন, ওয়ার্কাস পার্টির মনোনিত ১জন, এবং ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়। মৌলভীবাজার জেলা রিটার্নিং অফিসার ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা এই চার প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিলের ঘোষণা দেন।
বুধবার সকাল ১১টায় মৌলভীবাজার জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দি প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র যাছাই বাচাই করা হয়। যাচাই বাছাই শেষে জেলা রিটার্নিং অফিসার ও নির্বাচন অফিসার মোহাম্মদ মঞ্জুরুল আলম চেয়ারম্যান পদে ব্যাংক ঋণ খেলাপী দেখিয়ে আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী অধ্যাপক মো. রফিকুর রহমান এবং ওয়ার্কাস পার্টির মনোনিত প্রার্থী আব্দুল আহাদ মিনারকে আয়কর রিটার্ন জমা না দেওয়ায় তার মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করেন। একই সাথে ব্যাংক ঋণ খেলাপীর কারণে বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক মো. সিদ্দেক আলী ও ভোটারের জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বরসহ স্বাক্ষরিত পত্রটিতে জালিয়াতির কারণে মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীনের মনোনয়ন পত্র বাতিল ঘোষণা করেন।
মৌলভীবাজার জেলা রিটার্নিং অফিসার ও জেলা নির্বাচন অফিসার মোহাম্মদ মঞ্জুরুল আলম চেয়ারম্যান পদে ২ প্রাথী ও ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিলের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এখন প্রার্থীরা আপিলের সুযোগ পাবেন।
কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদে মনোনয়ন বাতিল হওয়া আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী অধ্যাপক মো. রফিকুর রহমান বলেন, তিনি ঋণ খেলাপী নন। তিনি ঋণ পরিশোধ করেছেন আগেই। তবে ব্যাংক থেকে সঠিক কাগজ জেলা রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে পৌছেনি। ব্যাংকের কাগজপত্র তিনি নিজেও জমা করেছেন। এখন বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছ থেকে একটি প্রতিবেদন আসার কথা। তিনি এ ব্যাপারে আপিল করবেন বলে জানান। একই কথা জানান মনোনয়ন বাতিল হওয়া ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. সিদ্দেক আলী।
উল্লেখ্য, গত সোমবার ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে কমলগঞ্জে আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী অধ্যাপক মো. রফিকুর রহমান ও আওয়ামীলীগ ঘরোনার স্বন্ত্র প্রার্থী মৌলভীবাজার-৪ আসনের সাংসদ উপাধ্যক্ষ ড. মো: আব্দুস শহীদের ছোট ভাই ইতমিয়াজ আহমদ বুলবুল স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে মনোনয়নপত্র জমা করেছিলেন। একই দিনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগ বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল গফুর ও ওয়ার্কার্স পার্টির মনোনিত প্রার্থী আব্দুল আহাদ মিনার জেলা রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে মনোনয়পত্র জমা করেছিলেন।
একই দিনে কমলগঞ্জে ভাইস চেয়ারম্যান পদে বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান উপজেলা আওয়ামীলীগ যুগ্ম সম্পাদক মো. সিদ্দেক আলী, সাংবাদিক ও সংস্কৃতিকর্মী শাব্বির এলাহী, বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক রাম ভজন কৈরী, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে বিএনপির আব্দুল মুঈন ফারুক, মৃুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন মনোনয়নপত্র জমা করেছিলেন। অন্যদিকে এদিন কমলগঞ্জে বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান পারভীন আক্তার (লিলি) ও মহিলা আওয়ামীলীগ নেত্রী শিক্ষিকা বিলকিছ বেগম মনোনয়নপত্র জমা করেছিলেন।

কমলগঞ্জে এবার মাধবপুর লেকে পরিচ্ছন্নতায় নামলেন ঢাকার ফটোগ্রাফার শেখ রাজিব

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

Kamalgonj Pic11 (6)
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার সবুজে ঘেরা চা কন্যা নয়নাভিরাম মাধবপুর লেকে বন্ধু বান্ধবসহ স্বপরিবারের বেড়াতে এসে অপরিছন্নতা দেখে নিজেই পরিচ্ছন্নতার কাজে নেমে পড়েন জংগলবাড়ী প্রকৃতি সংরক্ষণ ক্লাব এর সদস্য শেখ রাজিব। শনিবার দুপুরে  ঢাকা থেকে বন্ধু বান্ধবসহ স্বপরিবারের লোকজন নিয়ে রাজিব ঘুরতে আসেন মাধবপুর চা বাগানের পাহাড় সবুজে ঘেষা নয়নাভিরাম লেকে। লেক এলাকায় এসেই রাজিবের চোখে পড়ে ময়লা,আর্বজনা । তা দেখে রাজিব বিস্মিত হয়ে পড়েন। তাই নিজের পরিবারের সদস্য ও বন্ধুদেরকে লেক ঘুরতে দেখার সুযোগ দিয়ে মাধবপুর এলাকার কিশোর শংকর দাসকে সাথে নিয়ে তিনি লেগে পড়েন আবর্জনা পরিস্কারে। চিপসের পেকেট, পলিথিন,কোল্ডড্রিংক এর খালি বোতল সব একত্রিত করে  প্লাস্টিক বস্তায় জমিয়ে নির্দিষ্ট ময়লা ফেলার স্থান ডাসবিনে নিয়ে ফেলেন ।লেক না ঘুরেই  দুপুর থেকে বিকাল পর্যন্ত এ কাজ করে যান তিনি।
আলাপকালে রাজিব বলেন, আমরা আমাদের প্রকৃতিকে রক্ষা করতে হবে। আমরা সবাই যদি সম্মিলিত ভাবে এ কাজ করি তাহলে প্রকৃতি অভিশাপ নয় বরং আর্শিবাদ হয়ে আমাদের সামনে উপস্থাপিত হবে। আসুন আমরা সবাই নির্দিষ্ট স্থানে ময়লা আবর্জনা গুলো ফেলে সুন্দর একটি প্রকৃতি গড়ি। তিনি এ সময়  আক্ষেপ করে বলেন, লেকে বেড়াতে আসা একটি বিদ্যালয়ের শত শত শিক্ষার্থীদের দেখে আমি তাদের কাছে গিয়ে  এ কাজ করার অনুপ্রেরণা জোগাতে গেলে সে বিদ্যালয়েরই এক রসায়নের শিক্ষক আপত্তি করে বলেন এ কাজ আমার শিক্ষার্থীরা কেন করবে, আপনার ভালো লাগলে আপনী করুন ।

কমলগঞ্জের কুমড়াকাপন প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মহিলা সমাবেশ

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

Kamalgonj -2
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার কুমড়াকাপন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে জেলা তথ্য অফিসের আয়োজনে গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর উন্নয়নে প্রচার কার্যক্রম শক্তিশালীকরণ প্রকল্পের আওতায় “মহিলা সমাবেশ” অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত বুধবার দুপুরে এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ বায়েজিদ খান। জেলা তথ্য অফিসার মোঃ সালাহ উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও শিক্ষক মনজুর আজাদ মান্নার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা জসিম উদ্দিন মাসুদ, সহকারি উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা জয় কুমার হাজরা, কুমড়াকাপন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এসএমসি সভাপতি পৌর কাউন্সিলর মো: আনোয়ার হোসেন, সিলেট বিভাগের সাবেক শ্রেষ্ঠ এসএমসি সভাপতি এডভোকেট মো: সানোয়ার হোসেন, পিটিএ সভাপতি হাজী কামাল উদ্দিন, প্রধান শিক্ষিকা ছালেহা মাহমুদ, কমলগঞ্জ মডেল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি প্রধান শিক্ষক তাজউদ্দিন আহমদ, মঙ্গলপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোশাহীদ আলী প্রমুখ।

উপজেলা পরিষদ নির্বাচন-২০১৯ কমলগঞ্জে চেয়ারম্যান পদে ৩, ভাইস চেয়ারম্যান ৬ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২টি মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

10
আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচন-২০১৯ উপলক্ষে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে চেয়ারম্যান পদে ৩ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৬ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২ জন মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) বিকাল ৫টা পর্যন্ত চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মোট ১১ জন প্রার্থী মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন। আগামী ১৮ মার্চ দ্বিতীয় ধাপে কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এই নির্বাচনে বৃহস্পতিবার বিকাল পর্যন্ত চেয়ারম্যান পদে বর্তমান চেয়ারম্যান বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ সদস্য অধ্যাপক মো: রফিকুর রহমান, উপজেলা বিআরডিবি চেয়ারম্যান ইমতিয়াজ আহমেদ বুলবুল, উপজেলা আওয়ামীলীগ সদস্য শমশেরনগর ইউনিয়নের প্রাক্তন চেয়ারম্যান মো: আব্দুল গফুর, ভাইস চেয়ারম্যান পদে বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো: ছিদ্দেক আলী, ব্যবসায়ী নারায়ণ পাল, বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক রামভজন কৈরী, আওয়ামীলীগ নেতা মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন, সাংবাদিক ও সংস্কৃতিকর্মী শাব্বির এলাহী ও উপজেলা বিএনপির সাবেক ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আং মুয়ীন (ফারুক), মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পারভীন আক্তার (লিলি) ও মহিলা আওয়ামীলীগ নেত্রী শিক্ষিকা বিলকিছ বেগম মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন।
কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার মো. জাহাঙ্গীর আলম জানান, বৃহস্পতিবার বিকাল ৫টা পর্যন্ত চেয়ারম্যান পদে ৩ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৬ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২ জনসহ মোট ১১ জন প্রার্থী মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন। আগামী ১৮ ফেব্রুয়ারি মনোনয়ন ফরম সংগ্রহের শেষ দিন।

শোক সংবাদ ॥ ছাতির আহমদ তরফদার ॥

Chatir Ahmed Toropdher
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার মুন্সীবাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি জুনেল আহমদ তরফদারের পিতা রহিমপুর গ্রামের বিশিষ্ট মুরব্বী ছাতির আহমদ তরফদার (৮১) গত শুক্রবার রাত সাড়ে ১০ঘটিকার সময় সিলেট উইমেন্স হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। তিনি দীর্ঘদিন যাবত বার্ধক্যজনিক রোগে ভোগছিলেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ২ ছেলে ও ২ মেয়েসহ অসংখ্য আত্মীয় স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। আগামী সোমবার (১১ ফেব্রুয়ারি) বেলা ২টায় মরহুমের নামাজের জানাযা শেষে স্থানীয় কবরস্থানে তাঁর দাফন করা হবে। তাঁর মৃত্যুতে সাবেক চিফ হুইপ উপাধ্যক্ষ ড. মো: আব্দুস শহীদ এমপি, কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ সদস্য কমলগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক রফিকুর রহমান, মুন্সীবাজার ব্যবসায়ী সমিতি, কালীপ্রসাদ উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদসহ রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ গভীর শোক প্রকাশ করেন। মুন্সীবাজার ব্যবসায়ী সমিতি, কালীপ্রসাদ উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালিনা পর্ষদ ও রহিমপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি জুনেল আহমদ তরফদার পিতার রুহের মাগফিরাত কামনায় সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন।

কমলগঞ্জের মুন্সীবাজার হরিস্মরণে শ্রীশ্রীদুর্গা মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন

50312665_2435392083156516_795388541189226496_n

 

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার মুন্সীবাজার উত্তরবাজারস্থ হরিস্মরণ গ্রামে শ্রীশ্রী দুর্গা মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্থর করা হয়েছে। সোমবার (২১ জানুয়ারি) সকাল ১১টায় এ উপলক্ষে এক আলোচনা সভা স্থানীয় ভৈরবতলী প্রাঙ্গনে দুর্গা মন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি বাবুল শব্দকর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ভুবন শব্দকরের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ০৩নং মুন্সীবাজার ইউপি চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মোতালিব তরফদার। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন প্যানেল চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্য মো: শফিকুর রহমান, কমলকুঁড়ি পত্রিকার সম্পাদক পিন্টু দেবনাথ, পল্লী চিকিৎসক রিপন দেবনাথ, মতিলাল পাল, সমাজসেবক মোশাহীদ আলী। অনুষ্ঠানে শব্দকর সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এর আগে ধর্মীয়ভাবে দুর্গা মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়।

মৌলভীবাজার ৪ টি আসনের মধ্যে ৩টি আওয়ামীলীগ ও ১টি ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থীর বিজয়

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

MP

মৌলভীবাজার জেলার ৪টি আসনের মধ্যে ৩টি আওয়ামীলীগ ও ১টি ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী বিজয় লাভ করে।

মৌলভীবাজার-১ (বড়লেখা-জুড়ী) আসনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী মো. শাহাব উদ্দিন ৭৭ হাজার ৮শ ৬৩ ভোটের ব্যবধানে হ্যাটট্রিক জয় লাভ করেছেন। গতকাল রবিবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত বিচ্ছিন্ন ঘটনার মধ্য দিয়ে সারা দেশে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়।
স্থানীয় সূত্রে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী আওয়ামী লীগ প্রাথী মো. শাহাব উদ্দিন নৌকা প্রতীকে ১ লাখ ৪৩ হাজার ৬৭৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি প্রাথী নাসির উদ্দিন মিঠু ধানের শীষ প্রতীকে পেয়েছেন ৬৫ হাজার ৮১৪ ভোট। এর আগে তিনি ২০০৮ ও ২০১৪ সালে আওয়ামী লীগের সাংসদ নির্বাচিত হন।
মৌলভীবাজার-২: সিলেট বিভাগ তথা সারাদেশজুড়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর জয়জয়কারের মধ্যেও জয়লাভ করেছেন মৌলভীবাজার-২ আসনের ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী সুলতান মুহাম্মদ মনসুর আহমদ। ২ হাজার ৫৭২ ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করেছেন তিনি।
এই আসনের মোট ৯৩ কেন্দ্রের মধ্যে সুলতান মনসুর ধানের শীষ প্রতীকে পেয়েছেন ৭৯ হাজার ৭৪২ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নৌকা প্রতীকে বিকল্পধারার প্রার্থী এমএম শাহীন পেয়েছেন ৭৭ হাজার ১৭০ ভোট।

মৌলভীবাজার-৩ : মৌলভীবাজার-৩ (সদর-রাজনগর) আসনে ৭৯ হাজার ৯শ ৮৭ ভোটের ব্যবধানে প্রথমবারের মতো জয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী নেসার আহমদ।
রবিবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত বিচ্ছিন্ন ঘটনার মধ্য দিয়ে সারা দেশে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়। স্থানীয় সূত্রে ১৬৮টি কেন্দ্র থেকে প্রাপ্ত ফলাফলে জানা যায়, আওয়ামী লীগের প্রার্থী নেসার আহমদ পেয়েছেন ১ লক্ষ ৮৪ হাজার ৫শ ৭৯ ভোট। অপরদিকে তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির ধানের শীষের প্রার্থী নাসের রহমান পেয়েছেন ১ লাখ ৪ হাজার ৫শ ৯২ ভোট।

মৌলভীবাজার-৪: টানা ৬ষ্ঠ বারের মতো আবারো নির্বাচিত হয়েছেন মৌলভীবাজার-৪ (শ্রীমঙ্গল কমলগঞ্জ) সংসদীয় আসনের আওয়ামী লীগের প্রার্থী ড. আব্দুস শহীদ। তার মোট প্রাপ্ত ভোট ২ লক্ষ ১১হাজার ৬১৩টি। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির প্রার্থী মুজিবুর রহমান ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৯৩ হাজার ২৯৫টি। আওয়ামী লীগের প্রার্থী আব্দুস শহীদ মোট ১ লক্ষ ১৮ হাজার ৩১৮ ভোটের ব্যবধানে বেসরকারী ভাবে বিজয়ী হয়েছেন।
শ্রীমঙ্গল উপজেলা সহকারি রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় হতে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী শ্রীমঙ্গল উপজেলার ৮০টি কেন্দ্রে নৌকা প্রতীকে ড. আব্দুস শহীদ মোট ভোট পেয়েছেন ১ লক্ষ ১৪ হাজার ৩৫০ টি, ধানের শীষ প্রতীকে মো. মুজিবুর রহমান চৌধুরী ৪৯ হাজার ৫০৯ ভোট, হাতপাখা প্রতীকে মো. সালাউদ্দিন ৭শ’ ১৭ ভোট এবং উদীয়মান সূর্য প্রতীকে শান্তিপদ ঘোষ ৮৬ ভোট।
কমলগঞ্জ উপজেলা সহকারি রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় হতে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী কমলগঞ্জ উপজেলার ৭২টি কেন্দ্রে নৌকা প্রতীকে মো. আব্দুস শহীদ মোট ভোট পেয়েছেন ৯৭ হাজার ২৬৩ টি, ধানের শীষ প্রতীকে মো. মুজিবুর রহমান চৌধুরী ৪৩ হাজার ৭৮৬ ভোট, হাতপাখা প্রতীকে মো. সালাউদ্দিন ৬শ’০৮ ভোট এবং উদীয়মান সূর্য প্রতীকে শান্তিপদ ঘোষ ৬১ ভোট।

শ্রীমঙ্গলে চা শ্রমিক সন্তানদের জন্য নির্মিত হচ্ছে ১০ তলা ছাত্রাবাস

শ্রীমঙ্গল সংবাদদাতা::

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল শহরের মৌলভীবাজার সড়কে অবস্থিত বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের নিজস্ব জমিতে সরকারের অর্থায়নে চা শ্রমিক সন্তানদের জন্য নির্মিত হচ্ছে ১০ তলা বিশিষ্ট বহুবিধ সুবিধাসম্পন্ন ছাত্রাবাস। এ ছাত্রাবাসে শুধুমাত্র চা বাগান শ্রমিকদের পরিবারের গরীব ও মেধাবী ছাত্রছাত্রীরা বিনামূল্যে বা স্বল্পব্যায়ে আবাসন সুবিধা পাবে। ৩০০ আসন বিশিষ্ট নির্মিতব্য এ ছাত্রাবাসে ১৫০টি আসন ছাত্রদের জন্য বাকি ১৫০টি আসন ছাত্রীদের জন্য সংরক্ষিত থাকবে। এ ব্যাপারে সরকার ও বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দের দ্বিপাক্ষিক চুক্তি বৃহস্পতিবার (২৭ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় শ্রীমঙ্গলস্থ চা শিল্প শ্রম কল্যাণ বিভাগের হলরুমে সম্পন্ন হয়েছে।

সরকারের পক্ষে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের পক্ষে শ্রম অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অতিরিক্ত সচিব শিবনাথ রায় ও বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের পক্ষে সাধারণ সম্পাদক রামভজন কৈরী চুক্তিনামায় স্বাক্ষর করেন। চুক্তি অনুযায়ী নির্মিতব্য ভবনটির রক্ষণাবেক্ষণ, ছাত্রাবাসসহ সার্বিক কার্যক্রম পরিচালনায় জেলা প্রশাসক বা তাঁর উপযুক্ত প্রতিনিধির সভাপতিত্বে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন শ্রীমঙ্গলস্থ বিভাগীয় শ্রম অধিদপ্তরের ১ জন প্রতিনিধি, কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর শ্রীমঙ্গলের ১ জন প্রতিনিধি উপজেলা প্রশাসনের ২ জন প্রতিনিধি, চা শ্রমিক ইউনিয়নের ৬ জন প্রতিনিধি (১ জন সদস্য সচিবসহ) সহ মোট ১১ জনের সমন্বয়ে গঠিত বোর্ড/কমিটি ৩ বছর দায়িত্ব পালন করবেন এবং পরবর্তীতে বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়ন কেন্দ্রীয় কার্যকরী পরিষদ কর্তৃত গঠিত পরিচালনা কমিটি ভবনের সার্বিক দায়িত্ব গ্রহণ করবেন।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন শ্রম অধিদপ্তর চট্টগ্রাম বিভাগের পরিচালক গিয়াস উদ্দিন আহমদ, বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের পক্ষে সভাপতি মাখন লাল কর্মকার, বাংলাদেশ টি এস্টেট স্টাফ এসোসিয়েশনের সভাপতি মাহবুব রেজা, রাজঘাট ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের সাবেক আহ্বায়ক বিজয় বুরার্জী, শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি ইসমাইল মাহমুদ, চা শ্রমিক ইউনিয়নের অর্থ সম্পাদক পরেশ কালিন্দী, বালিশিরা ভ্যালী কমিটির সভাপতি বিজয় হাজরা, সিলেট ভ্যালী সভাপতি রাজু গোয়ালা, মনু-ধলাই ভ্যালী সম্পাদক নির্মল দাস পাইনকাসহ চা শ্রমিক ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় কমিটির ৩৪ জন সদস্য।

চুক্তি স্বাক্ষরের ব্যাপারে বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের পক্ষে সাধারণ সম্পাদক রামভজন কৈরী বলেন, ‘চা শ্রমিক ছাত্রছাত্রীদের জন্য এটি বর্তমান চা শ্রমিকবান্ধব সরকারের একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ। তিনি দীর্ঘদিন যাবৎ এর জন্য কাজ করছিলেন। শেষ পর্যন্ত অনগ্রসর চা জনগোষ্টির প্রতি প্রধানমন্ত্রীর সদইচ্ছার ফসল।

তিনি আশা করছেন, খুব তাড়াতাড়ি প্রয়োজনীয় কাজ কর্ম শেষে এর নির্মান কাজ শুরু হবে। এটি নির্মিত হবার পর শ্রমিক সন্তানদের শিক্ষাব্যবস্থার উন্নয়ন সাধন হবে। তিনি যুগান্তকারী এ পদক্ষেপের জন্য বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের সকল নেতৃবৃন্দ ও চা শিল্পে নিয়োজিত সকল শ্রমিকদের পক্ষ থেকে জননেত্রী শেখ হাসিনা ও তাঁর সরকারকে ধন্যবাদ জানাই।’

কমলগঞ্জে জানিপপের অবহিতকরণ কর্মশালা

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

17093

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে জাতীয় নির্বাচন পর্যবেক্ষক পরিষদ (জানিপপ) তাদের নিয়োগ প্রাপ্ত পর্যবেক্ষকের দায়িত্ব পালনকারী পর্যক্ষেকদের অংশ গ্রহনে এক অবহিতকরণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। শুক্রবার (২৮ ডিসেম্বর) বেলা আড়াইটায় কমলগঞ্জ পৌরসভা মিলনায়তনে মৌলভীবাজার জেলার মৌলভীবাজার-১ (বড়লেখা-জুড়ি) ও মৌলভীবাজার-৪ (কমলগঞ্জ-শ্রীমঙ্গল) সংসদীয় আসনের নিয়োজিত ৬৩ জন পর্যবেক্ষক নিয়ে এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। অবহিতকরণ কর্মশালায় জানিপপের প্রশিক্ষক শামীম হোসেনের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কমলগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মো. জুয়েল আহমদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জানিপপ মৌলভীবাজার জেলা সমন্বয়কারী এম এ হামিদ। কর্মশালা শেষে জানিপপ কর্তৃক ৬৩ জন পর্যবেক্ষকদের মাঝে নির্বাচনে ব্যবহৃত প্রয়োজনীয় ব্যবহারিক সামগ্রী প্রদান করা হয়।

শোক সংবাদ ॥ হাজী বয়েত উল্ল্যা ॥

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট

Pic- B
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার মুন্সীবাজার ইউনিয়নের রুপেষপুর গ্রামের স্পেন প্রবাসী মো: ফজির আলী নাদিম ও মো: ফয়জুর রহমান এর পিতা বিশিষ্ট সমাজসেবক হাজী মো: বয়েত উল্ল্যা (৯৫) মঙ্গলবার (২৫ ডিসেম্বর) রাত ৯:৪৫ মিনিটে নিজ বাড়ীতে বার্ধক্যজনিত রোগে ইন্তেকাল করেন। (ইন্না——রাজেউন)। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ৩ ছেলে, ৩ মেয়ে, পুত্রবধু, নাতী-নাতনীসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী ও আত্মীয় স্বজন রেখে গেছেন। বুধবার (২৬ ডিসেম্বর) বিকাল ৩টায় মরহুমের জানাজা শেষে বন্দরবাজারস্থ পারিবারিক কবর স্থানে দাফন সম্পন্ন হয়।