সদ্য সংবাদ

এসএসসি ফলাফল ঃ কমলগঞ্জে ১২৬ জন জিপিএ-৫ পেয়েছে ॥ পাসের হার ৭৭ ভাগ

Pic--Kamalgonj SSC BAF Shahin Collage
কমলকুঁড়ি রিপোর্ট ॥
সিলেট শিক্ষা বোর্ডের অধীনে চলতি বছরের এসএসসি পরীক্ষায় মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলায় জিপিএ-৫ পেয়েছে ১২৬ জন। এ উপজেলায় ৪টি কেন্দ্রে মোট ২ হাজার ৪১৬ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ১৮৫৮ জন। পাসের হার শতকরা ৭৭ ভাগ। কমলগঞ্জ উপজেলার মোট ৪টি কেন্দ্রের মধ্যে শমশেরনগর বিএএফ শাহীন কলেজ থেকে ৪৬ জন, তেঁতইগাঁও রশিদ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ২১ জন, এ, এ, টি, এম উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১১ জন, পতনঊষার উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১০ জন, হাজী মোঃ উস্তওয়ার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১১ জন, পদ্মা মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৯ জন, কমলগঞ্জ বহুমুখী মডেল উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৪ জন, দয়াময় সিংহ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৩ জন, এম, এ, ওহাব উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৩ জন, ভান্ডারীগাঁও উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ২ জন, কালীপ্রসাদ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ২ জন, চিৎলিয়া জনকল্যাণ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ২ জন, মাধবপুর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১ জন ও আহমদ ইকবাল মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১ জন শিক্ষার্থী জিপিএ-৫ লাভ করেছে।
কমলগঞ্জ উপজেলায় শতভাগ পাস করেছে ২টি বিদ্যালয়। বিদ্যালয়গুলো হচ্ছে-বিএএফ শাহীন কলেজ, ও আব্দুল মছব্বির একাডেমী।
এদিকে বাংলাদেশ মাদ্রাসা বোর্ডের অধীনে অনুষ্ঠিত দাখিল পরীক্ষায় কমলগঞ্জ উপজেলার ৬টি মাদ্রাসা থেকে ৩৯১ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ৩৪১ জন। পাসের হার শতকরা ৮৫.৪৬ ভাগ। এর মধ্যে শতভাগ উত্তীর্ণ হয়েছে আহমদনগর দাখিল মাদ্রাসা ও বড়চেগ দাখিল মাদ্রাসা। কমলগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) মো. জাহাঙ্গীর আলম এই সংবাদের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
শমশেরনগর বিএএফ শাহীন কলেজ : সিলেট শিক্ষাবোর্ডে ৬ষ্ঠ তম স্থান লাভ

এবারের এসএসসি পরীক্ষায় সম্মিলিত মেধা তালিকায় মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর বিএএফ শাহীন কলেজ ৬ষ্ঠ তম স্থান লাভ করেছে। এই কলেজ থেকে ৯৯ জন শিক্ষার্থীর সবাই পাস হয়েছে। এর মধ্যে ৪৬টি জিপিএ-৫ পেয়েছে।

কমলগঞ্জে ২টি বিদ্যালয় শতভাগ পাস করেছে

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলায় চলতি বছরের এসএসসি পরীক্ষায় ২টি বিদ্যালয় শতভাগ পাস করেছে। বিদ্যালয়গুলো হচ্ছে-বিএএফ শাহীন কলেজ ও আব্দুল মছব্বির একাডেমী। ৪৬টি জিপিএ-৫ সহ বিএএফ শাহীন কলেজে ৯৯ জন ও আব্দুল মছব্বির একাডেমী ৩৪ জন পরীক্ষার্থীর সবাই পাস করেছেন। ২টি বিদ্যালয়ে শতভাগ পাস করায় বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের মধ্যে বয়ে গেছে আনন্দের বন্যা।